দুই পৌর নির্বাচনে ধানের শীষসহ জামানত হারিয়েছেন ৬ প্রার্থী

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি ঝিনাইদহ
প্রকাশিত: ০৮:০৫ পিএম, ০১ মার্চ ২০২১
ধানের শীষ প্রতীকের দুই প্রার্থী আমিরুল ইসলাম খান চুন্নু ও মাহবুবার রহমান

ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ ও মহেশপুর পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে চারজন করে মোট আটজন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। এর মধ্যে জামানত হারিয়েছেন ধানের শীষসহ ছয় প্রার্থী।

নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা গেছে, কালীগঞ্জ পৌরসভায় মোট ভোট পড়েছে ২৬ হাজার ৮৩৯টি। নিয়ম অনুযায়ী জমানত বাঁচাতে হলে একজন প্রার্থীকে আট ভাগের এক ভাগ অর্থাৎ ৩ হাজার ৩৫৪ ভোট পেতে হবে। কিন্তু নৌকা প্রতীক নিয়ে আশরাফুল আলম আশরাফ পান ১৯ হাজার ৩২৭ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মাহবুবার রহমান ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে পান ৩ হাজার ৭৪ ভোট, ইসলামী শাসনতন্ত্র আন্দোলনের হাতপাখার নুরুল ইসলাম পান ১ হাজার ৪৭১ ভোট এবং স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী নারিকেল গাছ প্রতীকের এনামুল হক ইমান পান ২৮১৬ ভোট। ফলে এখানে আওয়ামী লীগের দলীয় প্রার্থী আশরাফুল আলম আশরাফ বাদে সবাই জমানত হারিয়েছেন।

অন্যদিকে, মহেশপুর পৌরসভা নির্বাচনে মোট ভোট পড়েছে ১৫ হাজার ৯৭৫। জমানত বাঁচাতে হলে একজন প্রার্থীকে ১ হাজার ৯৯৬ ভোট পেতে হবে। কিন্তু আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী ও বর্তমান মেয়র আব্দুর রশিদ খাঁন নৌকা প্রতীকে পান ১৩ হাজার ৫৯৮ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিনএপি মনোনীত ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে আমিরুল ইসলাম খাঁন চুন্নু পান ১ হাজার ৫৫ ভোট, নারকেল গাছ প্রতীক নিয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী সাংবাদিক গোলাম মোস্তফা কিরণ পান ৯২২ ভোট ও ইসলামী শাসনতন্ত্র আন্দোলনের হাতপাখার তাহাবুর রহমান পান ৩৮৩ ভোট। ফলে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী আব্দুর রশিদ খাঁন বাদে সবাই জমানত হারিয়েছেন।

আব্দুল্লাহ আল মাসুদ/এসজে/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]