হাতিয়া থেকেই প্রতিদিন বিভিন্ন জেলায় যাচ্ছে ১০০০ টন ইলিশ

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি নোয়াখালী
প্রকাশিত: ০২:২৮ পিএম, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১

নোয়াখালীর মেঘনায় জেলেদের জালে ধরা পড়ছে ঝাঁকে ঝাঁকে ইলিশ। পরিমাণ ও আকারে বড় হওয়ায় জেলেরাও বেশ খুশি। দেশের বিভিন্নস্থান থেকে শত শত পাইকার ইলিশ কিনতে এখন হাতিয়ায় অবস্থান করেছে।

hatia1

জানা গেছে, দ্বীপ উপজেলা হাতিয়ার ৩০ ঘাট থেকে প্রতিদিন কমপক্ষে এক হাজার টন ইলিশ দেশের বিভিন্ন জেলায় যাচ্ছে। এর মধ্যে সড়ক পথে যোগাযোগ থাকায় ১নং হরনী ইউনিয়নের বয়ারচরের চেয়ারম্যান ঘাট থেকেই দৈনিক কমপক্ষে ৩০০ টন ইলিশ মাছ দেশের বিভিন্ন জেলায় যায়।

hatia1

চেয়ারম্যান ঘাট ছাড়াও হাতিয়ার কিল্লার বাজার, বাংলা বাজার, বুড়ির দোনা, কাজীর বাজার, আসকা বাজার, পাতাং মার্কেট, মুক্তারিয়ার ঘাট, কাদিরা ঘাট, জঙ্গল্যার ঘাট, দানার দোল ঘাট, বউ বাজার ঘাট, চেয়ারম্যান বাজার ঘাট, রামচরণ ঘাট, তমরদ্দি ঘাট, চেঙ্গা বাজার ঘাট, কাটাখালী ঘাট, আমতলী ঘাটে, জাহাজমারা ঘাট, কিল্লার বাজার ঘাটে এখন সকাল বিকাল রমরমা ইলিশের হাট বসে।

hatia1

জাতীয় মৎস্যজীবী সমিতির হরনী ইউনিয়নের সভাপতি মো. বেলায়েত হোসেন শাহরাজ জাগো নিউজকে বলেন, ইউনিয়নে কমপক্ষে পাঁচ হাজার জেলে ইলিশ ধরায় নিয়োজিত। হাতিয়ার ৩০টি ঘাট থেকে প্রতিদিন কমপক্ষে এক হাজার টন ইলিশ দেশের বিভিন্ন জেলায় যাচ্ছে। ইলিশের মৌসুমে হাতিয়ায় বিভিন্ন জেলার ব্যবসায়ীদের পদচানায় মুখর থাকে।

hatia1

চেয়ারম্যান ঘাটে ১২০ টি মৎস্য আড়ৎ রয়েছে। এরমধ্যে মেঘনা ফিশিং এজেন্সির মালিক মো. হাবিব জানান, ইলিশের কারণে বছরের এ সময়ে চেয়ারম্যান ঘাট বেশ জমজমাট থাকে।

hatia1

হাতিয়া উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা অনিল চন্দ্র দাস বলেন, আগস্টে হাতিয়া থেকে পাঁচ হাজার টন ইলিশ দেশের বিভিন্ন জেলায় গেছে। সেপ্টেম্বরে এ উপজেলায় আরও বেশি ইলিশ ধরা পড়েছে। মাস শেষে পরিমানটা জানানো যাবে।

ইকবাল হোসেন মজনু/এএইচ/এমএস/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]