ভোমরা বন্দরে ৫ কিলোমিটার যানজট, বাধাগ্রস্ত আমদানি-রপ্তানি

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি সাতক্ষীরা
প্রকাশিত: ০৫:৩৮ পিএম, ০৩ অক্টোবর ২০২১

সাতক্ষীরার ভোমরা স্থলবন্দরে সৃষ্টি হয়েছে স্মরণকালের ভয়াবহ যানজট। ফলে বাধাগ্রস্ত হচ্ছে দুই দেশের মধ্যে আমদানি-রপ্তানি কার্যক্রম।

ট্রাকচালকদের অভিযোগ, বন্দরে ট্রাক টার্মিনাল না থাকায় প্রতিনিয়ত যানজট হচ্ছে। তবে গত দুইদিন বন্দর বন্ধ থাকা ও রপ্তানি পণ্যবাহী ট্রাক বেশি আসায় এ অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে।

রোববার (৩ অক্টোবর) সকাল থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত বন্দর থেকে পাঁচ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে যানজট তৈরি হয়েছে। শত শত পণ্যবাহী ট্রাক রাস্তায় দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা গেছে। অনেক ট্রাক দুই দিন আগে থেকে ভারতে প্রবেশের অপেক্ষায়। যানজটের কারণে পণ্যবাহী ট্রাক বন্দর থেকে বের হতে না পারায় কার্যত অচল হয়ে পড়ছে বন্দরের কার্যক্রম। ফলে বন্দরেই নষ্ট হচ্ছে আমদানি করা পেঁয়াজ, আদা, কাঁচামরিচসহ বিভিন্ন পণ্য।

ভোমরা বন্দরের সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট রবিউল ইসলাম জানান, গত দুই দিন বন্দর বন্ধ থাকায় ট্রাকের চাপ বেড়েছে। এছাড়া আগামী কয়েকদিন পর শুরু হবে দুর্গাপূজার ছুটি। এজন্য হঠাৎ রপ্তানি বেড়েছে। ভারত থেকে আসা ট্রাক বন্দরের পার্কিংয়ে থাকলেও রপ্তানি পণ্যবাহী ট্রাক রাস্তায় রয়েছে। যানজট কতক্ষণ থাকবে তা বলা মুশকিল।

ট্রাকচালকরা জানান, শনিবার (২ অক্টোবর) থেকে তারা রাস্তায় রয়েছেন। প্রায় পাঁচ কিলোমিটার দীর্ঘ যানজটের ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে। ভারতে ধীরগতিতে গাড়ি প্রবেশ করছে। অবস্থার উত্তরণে দ্রুত ট্রাক টার্মিনাল নির্মাণের জোর দাবি জানান তারা।

ভোমরা বন্দর আমদানি-রপ্তানিকারক সমিতির সভাপতি আবু হাসান জাগো নিউজকে বলেন, স্বাভাবিক সময়ে প্রতিদিন ২০-৫০ পণ্যবাহী ট্রাক রপ্তানি হয়। সম্প্রতি রপ্তানি বেড়েছে। ভারতীয় কাস্টম কর্তৃপক্ষ বাংলাদেশি পণ্য গ্রহণে ধীরগতির নীতি অনুসরণ করায় এ প্রতিবন্ধকতা তৈরি হচ্ছে। এছাড়া আমদানি করা পণ্য আসতে অনেক দেরি হচ্ছে।

আহসানুর রহমান রাজীব/এএইচ/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]