প্রতারণা করে হাতিয়ে নেওয়া হলো ৯৫ লাখ টাকা, কারাগারে দুই ভাই

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি রাজশাহী
প্রকাশিত: ০২:৪৮ পিএম, ১৯ অক্টোবর ২০২১

রাজশাহীতে ডিবি পুলিশ পরিচয়ে এক চিকিৎসকের কাছে থেকে ৯৫ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে তিন প্রতারক। এ ঘটনায় প্রতারক চক্রের দুই সদস্যকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

সোমবার (১৮ অক্টোবর) দিনগত রাত ২টার দিকে তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় প্রতারক দুই সহোদরকে তাদের বাড়ি থেকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

গ্রেফতাররা হলেন-নগরীর রাজপাড়া থানার লক্ষীপুর মিঠুর মোড় এলাকার এ কে এম মোতাহারুল ইসলামের ছেলে মো. ফয়সাল আহমেদ (৩৮) ও মো. তাসফিন আহমেদ (৩৩)। তারা ভুক্তভোগী ডা. মো. আজিজুল হক আব্দুল্লাহর স্ত্রীর বড় বোনের ছেলে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেন রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশের (আরএমপি) অতিরিক্ত সহকারী পুলিশ কমিশনার ও আএমপির নগর মুখপাত্র গোলাম রুহুল কুদ্দুস।

এজহারের বরাত দিয়ে তিনি জানান, আত্মীয়তা ও বিশ্বস্ততার সূত্র ধরে তাসফিন, ফয়সাল ও ফয়সালের ভায়রা মো. রুবেল সরকার রাসেল (৩৩) পরিকল্পনা করে ডা. আজিজুল হককে হাইকোর্টের ভুয়া দুর্নীতি দমন মামলার কাগজ ও আয়করের ভুয়া কাগজ দেখান। এছাড়া রুবেল নিজেকে ডিবি পুলিশ ও ওয়ারেন্ট অফিসার হিসেবে পরিচয় দেন। এভাবে ভয় দেখিয়ে চলতি বছরের ১৫ জুলাই থেকে ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ৯৫ লাখ টাকা হাতিয়ে নেন তারা।

তিনি আরও জানান, প্রতারক চক্রের সদস্যরা পর্যায়ক্রমে টাকাগুলো নেয়ার সময় ডা. আজিজুল হককে জানায়, দুর্নীতি দমন ব্যুরো, আয়কর বিভাগ এবং হাইকোর্টের রায়ের বিষয়ে কাগজ বের হতে সময় লাগবে। তাই এ বিষয়ে কারো সঙ্গে কথা বলা যাবে না। কেউ জানলে তার ও তার পরিবারের যে কোনো বড় ধরনের ক্ষতি হতে পারে বলেও ভয়-ভীতি দেখান তারা। পরবর্তীতে তাদের আচরণে সন্দেহ হওয়ায় ডা. আজিজুল হক খোঁজ নিয়ে জানতে পারেন হাইকোর্টে দুর্নীতি ও আয়করের মামলাটি ভুয়া। আসামিরা প্রতারণা করে তার কাছ থেকে বিপুল অংকের টাকা হাতিয়ে নিয়েছে।

পুলিশের এই কর্মকর্তা আরও জানান, আটকের পর জিজ্ঞাসাবাদে দুই আসামি ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে। তাদের প্রতারণার মাধ্যমে অর্থ আত্মসাতের মামলায় সকালে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। অপর পলাতক আসামিকেও গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

ফয়সাল আহমেদ/ এফআরএম/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]