‘ভোটের আগেই প্রতি কেন্দ্রে ৫০০ ব্যালটে সিল মারা হবে’

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি সিরাজগঞ্জ
প্রকাশিত: ০৫:৪১ পিএম, ২৪ নভেম্বর ২০২১

‘নৌকা প্রতীকে প্রকাশ্যে সিল মারতে হবে। নৌকায় যারা ভোট দেবেন না, তাদের কেন্দ্রে যাওয়ার দরকার নেই। ভোটের আগেই প্রতি কেন্দ্রে ৫০০ ব্যালটে সিল মারা হবে।’

সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া উপজেলার পূর্ণিমাগাঁতী ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনের আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী ও তার সমর্থকরা এসব কথা বলে বেড়াচ্ছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

বুধবার (২৪ নভেম্বর) দুপুরে স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী মো. আল-আমিন সরকার সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেন।

চেয়ারম্যান বাজার এলাকায় আয়োজিত জনাকীর্ণ সংবাদ সম্মেলনে আল-আমিন সরকার বলেন, ক্ষমতাসীন দলের প্রার্থী আমার কর্মীদের ওপর সন্ত্রাসী হামলা, ভাঙচুর ও মারধর চালাচ্ছেন। প্রচারণায় বাধা দিচ্ছেন। সকালে ভোট চাইতে গেলে আমার চার নারী কর্মীকে বেদম মারধর করেছে নৌকা প্রার্থীর সন্ত্রাসী বাহিনী। তাদের তাণ্ডবে আমি নিজের জীবনের নিরাপত্তা নিয়েই শঙ্কিত হয়ে পড়েছি। অপরদিকে ইউনিয়ন পরিষদ এলাকায় আমার বেশ কিছু কর্মীকে অবরুদ্ধ করে রাখা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, এর আগেও আমার নির্বাচনী অফিসে নৌকার প্রার্থী রেজাউল ইসলাম তপন ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি রাশেদুলের নেতৃত্বে হামলা চালানো হয়। আমার তিন কর্মীকে কুপিয়ে জখম করা হয়। এসব কারণে এখানে সুষ্ঠু নির্বাচন নিয়ে শঙ্কার সৃষ্টি হয়েছে।

এ সময় তিনি প্রশাসনের কাছে অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের দাবি জানান।

তবে এসব অভিযোগ অস্বীকার করে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী রেজাউল ইসলাম তপন বলেন, আমি কখনো গণ্ডগোল পছন্দ করি না। আমি নিরপেক্ষ নির্বাচন চাই। স্বতন্ত্র প্রার্থী যেসব অভিযোগ দিয়েছেন, তা সম্পূর্ণ মিথ্যা।


এ বিষয়ে জানতে চাইলে উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মাসুদ রানা জাগো নিউজকে বলেন, এ নিয়ে কোনো লিখিত অভিযোগ পাইনি। পেলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

ইউসুফ দেওয়ান রাজু/এসজে/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]