সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের পাশে ‘চুয়াডাঙ্গা ভলান্টিয়ার্স’

জাগো নিউজ ডেস্ক
জাগো নিউজ ডেস্ক জাগো নিউজ ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৯:৩৮ পিএম, ১৫ জানুয়ারি ২০২২

স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন চুয়াডাঙ্গা ভলান্টিয়ার্সের উদ্যোগে পিছিয়ে পড়া প্রায় অর্ধশতাধিক শিশুর মাঝে শিক্ষা উপকরণ বিতরণ করা হয়েছে।

শুক্রবার (১৪ জানুয়ারি) দুপুরে এসব উপকরণ বিতরণ করা হয়। এসময় এলাকার বিশিষ্টজন ও চুয়াডাঙ্গা ভলান্টিয়ার্সের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

সংগঠন সূত্রে জানা যায়, প্রায় অর্ধশত শিশুকে তিন মাসের খাতা, কলম, রাবার, স্কেল, পেন্সিল কাটার, পেন্সিল বক্স, রং পেন্সিল, মাস্ক ও চকলেট দেওয়া হয়। চুয়াডাঙ্গা শহরের গুলশান পাড়া, শান্তি পাড়া, পলাশ পাড়া, হাসপাতাল পাড়া, বেলগাছি এলাকার অসহায় ও সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের মাঝে এসব জিনিসপত্র বিতরণ করা হয়।

সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের পাশে ‘চুয়াডাঙ্গা ভলান্টিয়ার্স’

করোনা পরিস্থিতিতে শিক্ষা উপকরণ পেয়ে খুশি শিশু ও তাদের অভিভাবকরা। সাদিয়া আক্তার নামের এক শিশুর বাবা লতিফ সরদার বলেন, করোনাকালে দীর্ঘদিন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় শিশুরা একেবারে ঝিমিয়ে পড়েছে। এ অবস্থায় খাতা-কলম ও পেন্সিল পেয়ে তারা অনেক আনন্দিত।

চুয়াডাঙ্গা ভলান্টিয়ার্সের প্রধান সমন্বয়ক আসলাম অর্ক বলেন, সমাজের সুবিধাবঞ্চিত এবং পিছিয়ে পড়া শিশুদের পাশে দাঁড়াতে আমাদের এ ক্ষুদ্র প্রয়াস। করোনার দীর্ঘ বন্ধের পর আবারও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়া হয়েছে। এসব শিশুরা যাতে ভালোভাবে পড়াশোনা চালিয়ে যেতে পারে সেজন্য এ উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের পাশে ‘চুয়াডাঙ্গা ভলান্টিয়ার্স’

পরিচ্ছন্নকর্মীদের মাঝে ঈদ উপহার, মিসকিনদের আর্থিক সহায়তা, মেধাবী শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা, করোনায় ১০ কেজি চাল প্রজেক্ট, মুমূর্ষু রোগীদের রক্তদানে সহযোগিতা, অসহায় রোগীর চিকিৎসা প্রদানসহ বিভিন্ন সামাজিক উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছে চুয়াডাঙ্গা ভলান্টিয়ার্স।

এসময় চুয়াডাঙ্গা ভলান্টিয়ার্সের সদস্য ও ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজের শিক্ষার্থী ডা. ইমরান হোসেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী ওয়াসিম আল মাসতুর, নারী উদ্যেক্তা সাবরিনা জামান মিম, মাসুদ পারভেজ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এসআর/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]