হত্যা মামলার সাক্ষী হওয়ায় সাংবাদিককে কুপিয়ে জখম

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক সিলেট
প্রকাশিত: ০৯:০৩ পিএম, ১৬ জানুয়ারি ২০২২
হাসপাতালে ভর্তি সাংবাদিক আব্দুর রব

সিলেটের কানাইঘাটে আব্দুর রব (৪৫) নামে স্থানীয় এক সাংবাদিককে কুপিয়ে ও রড দিয়ে পিটিয়ে জখমের অভিযোগ উঠেছে আসামি পক্ষের বিরুদ্ধে।

রোববার (১৬ জানুয়ারি) দুপুরে উপজেলার লক্ষ্মীপ্রসাদ পূর্ব ইউনিয়নের লোহাজুরি জামে মসজিদের সামনে এ হামলার ঘটনা ঘটে। আব্দুর রব ওই ইউনিয়নের এরালীগুল গ্রামের বাসিন্দা এবং সিলেটের স্থানীয় দৈনিক বিজয়ের কণ্ঠ পত্রিকার স্টাফ রিপোর্টার।

স্থানীয় সূত্র জানায়, সাংবাদিক আব্দুর রব মসজিদ নির্মাণ কাজ দেখে বাড়িতে ফিরছিলেন।
এরালীগুল গ্রামের নজরুল ইসলাম নজু হত্যা মামলার এজাহারভুক্ত আসামি জুনেদ আহমদ ও আলা উদ্দিন মড়ইয়ের (৫৫) নেতৃত্বে একদল সন্ত্রাসী দুপুরে মসজিদের সামনে ধারালো অস্ত্র, লোহার রড ও লাঠি-সোটা নিয়ে তার হামলা চালায়।

রবকে উপর্যুপরি কুপিয়ে শরীরের বিভিন্ন জায়গায় গুরুতর জখম করে। এ সময় তার চিৎকারে মসজিদের কাজে থাকা শ্রমিক ও স্থানীয় লোকজন এগিয়ে এলে হামলাকারীরা পালিয়ে যায়। পরে আব্দুর রবকে আশঙ্কাজনক উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠান।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, আলা উদ্দিন মড়ই ও তার ছেলে জুনেদ আহমদসহ হামলাকারীরা কয়েক মাস আগে এরালীগুল গ্রামের নজরুল ইসলাম নজু হত্যা মামলার এজাহারভুক্ত আসামি। এ হত্যা মামলার সাক্ষী সাংবাদিক আব্দুর রব। যার কারণে মামলার আসামিরা তাকে দেখে নেওয়ার হুমকি দিয়ে আসছিল।

আব্দুর রবের পরিবারের সদস্যরা জানান, নজরুল ইসলাম নজু হত্যা মামলার আসামিদের সেল্টারদাতা আলা উদ্দিন মড়ই শনিবার রাতে সাবেক ইউপি সদস্য মস্তাক আহমদের বাড়িতে একটি বৈঠকে এবং স্থানীয় মন্তাজগঞ্জ বাজারে প্রকাশ্যে আব্দুর রবের ওপর হামলা করবে বলে ঘোষণা দেয়। এর পরদিনই রোববার মড়ইয়ের নেতৃত্বে তার ওপর এ হামলা চালানো হয়।

এ বিষয়ে কানাইঘাট থানার পরিদর্শক (তদন্ত) জাহিদুল হক জাগো নিউজকে বলেন, হামলাকারীদের আটক করতে এলাকায় পুলিশি অভিযান চলছে। এ ঘটনায় থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

ছামির মাহমুদ/এসজে/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]