সংগ্রহে ৪০ প্রজাতির বিদেশি মুরগি, নাম লেখাতে চান গিনেসে

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি রাজবাড়ী
প্রকাশিত: ১০:৫৯ এএম, ০৪ অক্টোবর ২০২২
৪০ প্রজাতির বিদেশি মুরগি সংগ্রহ করা জাহাঙ্গীর হোসেন

সেবরাইড, ব্রাহামা, পেনসিল লেগ, সোমাত্রাসহ বিশ্বের দুর্লভ ও বিরল প্রায় ৪০ প্রজাতির মুরগির সংগ্রাহক এখন রাজবাড়ীর কালুখালীর জাহাঙ্গীর হোসেন। ২০১৬ সালে শখের বসে তিন জোড়া বিদেশি মুরগি দিয়ে শুরু করা তার খামারে বিদেশি প্রজাতির প্রায় দেড় শতাধিক মুরগি রয়েছে। বিস্ময়কর হলেও তার খামারের এক জোড়া মুরগি বিক্রি হচ্ছে প্রায় ২০ হাজার থেকে ১ লাখ টাকা পর্যন্ত।

জাহাঙ্গীরের মাসে মুরগি পালনে ১৫ থেকে ২০ হাজার টাকা খরচ হলেও আয় হয় ২৫ থেকে ৩০ হাজার টাকা। ফলে এটি এখন পেশা হিসেবেই নিয়েছেন তিনি। এদিকে, বিভিন্ন দেশে যাওয়ার ভিসা জটিলতা নিরসনে সরকারের সহযোগিতা পেলে ভবিষতে বিদেশি জাতের আরও মুরগি সংগ্রহ করে সর্বোচ্চ মুরগি সংগ্রাহক হিসেবে গিনেস বুক ওয়ার্ল্ডে নাম লেখাতে চান এই খামারি।

জানা গেছে, কালুখালী বোয়ালিয়ার জাহাঙ্গীর হোসেন ২০১৬ সালে ব্যক্তিগত কাজে ভারতে থাকা অবস্থায় ইন্টারনেট দেখে বিদেশি জাতের মুরগি পালনের শখ জাগে। পরবর্তীতে শখ মেটাতে আছিল, টার্কি ও কাদার নাথ জাত দিয়ে শুরু করেন মুরগি পালন। এরপর বিদেশি মুরগির চাহিদা দেখে ভারত, নেপাল, ভুটান, মালদ্বীপ, ইন্দোনেশিয়া, ভিয়েতনামসহ বিভিন্ন দেশে গিয়ে মুরগি সংগ্রহ করেন। এখন তার খামারে ব্রাহামা, সিল্কি, সিবরা, সিলভার সেবরাইড, গোল্ডেন সেবরাইড, পলিস্কেব, সুলতান, প্যারটলিভ, ইউন্ডডট, সোমাত্রা, সিলভার লেস, কসমো, আছিল, ক্রেস্টেড পলিস্তেব, গোল্ডেন সেবরাইড, মল্টেড জাপানিজ, ব্লুবারলেজ, ব্ল্যাকটেল, ইয়োকামাহাসহ প্রায় ৪০ প্রজাতির দেড় শতাধিক মুরগি রয়েছে। বাহারি জাতের এসব মুরগি দেখতে প্রতিদিন তার খামারে আসেন অনেক সৌখিন মানুষ। এবং তার দেখাদেখি উৎসাহী হচ্ছেন অনেকেই।

সংগ্রহে ৪০ প্রজাতির বিদেশি মুরগি, নাম লেখাতে চান গিনেসে

জাহাঙ্গীরের খামারে পালন করা ইন্দোনেশিয়ার আইএনচি মানিক এক লাখ টাকা ও ভিয়েতনামের তাউরান ৭০ হাজার টাকা জোড়া বিক্রি হয়েছে। বর্তমানে তার খামারে সুমাত্রা ৫০ হাজার টাকা জোড়া, ইংল্যান্ডের সেবরাইড ১৫ থেকে ২০ হাজার, আমেরিকা ও কলোম্বিয়ার ব্রাহামা ১৫ থেকে ১৬ এবং ইংল্যান্ডের পেনসিল লেগ ২৫ থেকে ৩০ হাজার টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এবং জিরো সাইজের বাচ্চা বিক্রি হচ্ছে এক হাজার টাকা জোড়া। দুর্লভ ও বিরল জাতের এসব মুরগি কিনতে দেশের বিভিন্নস্থান থেকে অনেক শৌখিন মানুষ প্রতিনিয়ত যোগাযোগ করছেন জাহাঙ্গীরের ইত্যাদি এগ্রো অ্যান্ড হ্যাচারি ডটকম ওয়বেসাইটডসহ তার পেজের মাধ্যমে।

সংগ্রহে ৪০ প্রজাতির বিদেশি মুরগি, নাম লেখাতে চান গিনেসে

স্থানীয় লিটন শেখ ও সোবাহান মোল্লা বলেন, জাহাঙ্গীরের বাড়ি তাদের বাড়ির পাশে। বিদেশি জাতের রং বেরঙের মুরগি তার খামারে আছে শুনে দেখতে এসেছেন। এবং মুরগি দেখে তারা অবাক। মুরগিগুলো দেখতে অনেক সুন্দর। নিজ চোখে না দেখলে কেউ বুঝতে পারবে না। কোনোটার লেজ লম্বা, মাথায় ঝুঁটি, আবার ঠোঁট টিয়া পাখির মতো এবং দেখতেও বাহারি রঙের। এরকম মুরগি এর আগে তারা দেখেননি। যার কারণে তারা নিজেরাও এরকম খামার করতে চান।

সংগ্রহে ৪০ প্রজাতির বিদেশি মুরগি, নাম লেখাতে চান গিনেসে

খামারি জাহাঙ্গীর হোসেন জানান, ২০১৬ সালের শখের বসে তিন জোড়া মুরগি দিয়ে শুরু করেন। পরবর্তীকালে এসব মুরগির চাহিদা দেখে অন্য বিদেশি জাতের মুরগি সংগ্রহ করতে থাকেন। এখন তার খামারে প্রায় ৪০ প্রজাতির মুরগি রয়েছে। এসব মুরগির ডিম থেকে নিজের তৈরি মেশিনের সাহায্যে বাচ্চা উৎপাদন করে অনলাইনে বিক্রি করছেন। প্রথমে শখের বসে হলেও এখন পেশা হিসেবে নিয়েছেন মুরগিপালন। এতে মাসে ১৫ থেকে ২০ হাজার টাকা খরচ হলেও আয় করেন ২৫ থেকে ৩০ হাজার টাকা।

সংগ্রহে ৪০ প্রজাতির বিদেশি মুরগি, নাম লেখাতে চান গিনেসে

তিনি আরও জানান, এখন পর্যন্ত মুরগি সংগ্রহ করতে বিশ্বের বেশ কয়েকটি দেশে গিয়েছেন। তবে ভিসা জটিলতায় অনেক দেশে যেতে পারছেন না। তার ইচ্ছা আরও বিভিন্ন দেশে গিয়ে দুর্লভ জাতের মুরগি সংগ্রহ করা। এবং বিদেশি জাতের মুরগির সর্বোচ্চ সংগ্রাহক হিসেবে গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ডে তার নাম লেখানো। এজন্য ভিসা জটিলতা নিরসনে সরকারের সহযোগিতা কামনা করেছেন তিনি।

সংগ্রহে ৪০ প্রজাতির বিদেশি মুরগি, নাম লেখাতে চান গিনেসে

রাজবাড়ী সদর উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. খায়ের উদ্দিন আহমেদ বলেন, ব্যবসায়িক দিক হিসাব করে এসব মুরগি পালন করা যাবে না। শৌখিনতা হিসেবে এসব মুরগি অনেকে পালন করে থাকেন। তার মধ্যে কালুখালীর জাহাঙ্গীর অন্যতম। তবে এ ধরনের শৌখিন খামারিদের সব ধরনের সাহায্য সহযোগিতা প্রাণিসম্পদ দপ্তর করে থাকে। এই খামারে বিভিন্ন দেশের প্রায় ৩০ জাতের মুরগি রয়েছে। মুরগির ডিম থেকে জাহাঙ্গীর নিজস্ব পদ্ধতিতে উদ্ভাবিত মেশিনের সাহায্যে বাচ্চা ফোটান। তার এরকম কার্যক্রম প্রশংসনীয়।

রুবেলুর রহমান/এমআরআর/জেআইএম

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।