ব্যাংকিং ব্যবস্থা নিয়ে শঙ্কিত বিজিএমইএ

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১০:০৩ পিএম, ০২ এপ্রিল ২০১৮

বাংলাদেশ তৈরি পোশাক প্রস্তুত ও রফতানিকারক সমিতির (বিজিএমইএ) সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান বলেছেন, ব্যবসায়ীরা বারবার বলার অনেক পরে ব্যাংকের সুদ সিঙ্গেল ডিজিটে আসছে। ছয় মাস যেতে না যেতে এখন আবার সাড়ে ১০ শতাংশে চলে আসছে। এরকম হলে আমরা কী করব। ব্যাংকে গিয়ে জিজ্ঞাসা করলে বলে সাড়ে ১০ শতাংশের নিচে আমাদের লাভ থাকে না, ৬ শতাংশ দিলে ব্যাংকের নাকি টাকা থাকে না। আর সাড়ে ১০ শতাংশে দিলে টাকা থাকে, তা হলে এত টাকা দিয়ে ব্যাংক কী করবে, টাকা কি বালিশের নিচে দিয়ে ঘুমাবে। ব্যাংক এবং ফাইনালসিয়াল সেক্টরগুলো একত্রে বসে একটা রেট ঠিক করতে পারে না ? তাদের মধ্যে কি অন্তরিকতা নেই ? আসলে সব জায়গায় তারা চায় ব্যবসা। আমি বর্তমান ব্যাংকিং ব্যবস্থা নিয়ে শঙ্কিত।

সোমবার রাজধানীর কারওয়ান বাজারের বিজিএমইএ ভবনে ‘জার্নালিজস ফেলোশিপ অ্যাওয়ার্ড ’ প্রদান অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

সিদ্দিকুর রহমান বলেন, ব্যাংকিং খাত নিয়ে এক অসুস্থ প্রতিযোগিতা চলছে, এভাবে চলতে পারে না। কিছু অসাধু ব্যবসায়ীর কারণে আমাদের বদনাম হচ্ছে। কিছুদিন আগে হঠাৎ করে রডের দাম ৪০ থেকে ৪৫ শতাংশ বেড়ে গেছে। কী এমন পরিবর্তন হলো যে টনপ্রতি রডের দাম ৪৫ হাজার টাকা থেকে ৫৭ থেকে ৬০ হাজার টাকা হয়ে গেছে। কারণ ছাড়াই রডের দাম বাড়ানো হচ্ছে। সামনে রমজান আসছে, দেখা যাবে সব জিনিসপত্রের দাম বাড়ানো হবে। এসব অসাধু ব্যবসায়ীকে আইনের আওতায় আনার তাগিদ দেন তিনি।

তিনি বলেন, সাংবাদিকদের সঙ্গে বিজিএমইএর সম্পর্ক আরও বাড়ানো দরকার। বর্তমানে আমরা এলডিসি থেকে উন্নয়নশীল দেশের দিকে যাচ্ছি, আর এর পেছনে বড় অবদান আমাদের এ পোশাক খাত।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি বক্তৃতায় শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু বলেন, দারিদ্র্য বিমোচনে ব্যাপকভাবে কাজ করছে তৈরি পোশাক শিল্প খাত। বর্তমানে হাজার হাজার পোশাক শিল্প কারখানা গড়ে উঠেছে। এছাড়া তৈরি পোশাক শিল্প খাতে প্রশিক্ষিত ও দক্ষ জনবল বিদেশে রফতানি করে দেশে মূল্যবান রেমিটেন্স আয় করছে।

মন্ত্রী বলেন, বর্তমান সরকার সাংবাদিকদের উন্নয়নেও বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। এর মধ্যে নবম ওয়েজ বোর্ড গঠন, জাতীয় প্রেস ক্লাবে বহুতল ভবন নির্মাণের উদ্যোগ, জাতীয় সাংবাদিক কল্যাণ ট্রাস্ট গঠন, বাংলাদেশ প্রেস কাউন্সিল পদক প্রদানসহ নানা উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

অনুষ্ঠানে ছয় সাংবাদিককে ‘জার্নালিজস ফেলোশিপ অ্যাওয়ার্ড ’ প্রদান করা হয়। সাংবাদিকদের হাতে এ অ্যাওয়ার্ড তুলে দেন শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু।

পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) সভাপতি মনজুরুল আহসান বুলবুল, ভোরের কাগজের সম্পাদক শ্যামল দত্ত প্রমুখ।

এমএ/জেডএ/পিআর