করোনাকালে রেমিট্যান্স প্রবাহের গতি নিয়ে ‘প্রশ্ন’

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৫:০৬ পিএম, ১৭ জানুয়ারি ২০২১

করোনা মহামারির মধ্যেও অত্যধিক রেমিট্যান্সপ্রবাহ নিয়ে সংশয় তৈরি হয়েছে। দেখা দিয়েছে বিভিন্ন প্রশ্ন। মহামারির মধ্যে এত বেশি রেমিট্যান্স কোথা থেকে আসছে, কীভাবে আসছে এবং ভবিষ্যতে আরও কতদিন এভাবে আসবে এসব প্রশ্ন তার মধ্যে অন্যতম।

গত বছর দুই লাখেরও বেশি প্রবাসী দেশে ফিরে এলেও প্রবাসী আয়ের রেকর্ড সৃষ্টি হয়েছে। কেউ কেউ বলছেন, কিছু দেশ থেকে প্রবাসীরা তাদের শেষ সঞ্চয় নিয়ে একেবারে দেশে ফেরার কারণে এ রেমিট্যান্সপ্রবাহ বেড়েছে।

আবার সরকারি ২ শতাংশ প্রণোদনাকেও রেমিট্যান্স বৃদ্ধির কারণ হিসেবে দেখছেন অনেকেই। কিন্তু এত সব প্রশ্নের উত্তরে এই কারণগুলো কতটা যৌক্তিক তা খুঁজে দেখার সময় এসেছে।

রোববার (১৭ জানুয়ারি) ভার্চুয়ালি আয়োজিত এক সংলাপে এসব মন্তব্য করেন এসডিজি প্ল্যাটফর্মের আহ্বায়ক ও বেসরকারি গবেষণা সংস্থা সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগের (সিপিডি) ফেলো ড. দেবপ্রিয় ভট্টাচার্য।

এসডিজি বাস্তবায়নে নাগরিক প্ল্যাটফর্ম, বাংলাদেশের পক্ষ থেকে ‘সাম্প্রতিক প্রবাসী আয়/রেমিট্যান্সপ্রবাহ এত টাকা আসছে কোথা থেকে?’ শীর্ষক এ ভার্চুয়াল সংলাপের আয়োজন করা হয়।

এসডিজি প্ল্যাটফর্মের দেয়া তথ্য অনুযায়ী, ২০২০ সালে আমাদের পাশের দেশ ভারতের রেমিট্যান্সপ্রবাহ কমেছে ৩২ দশমিক ৩ শতাংশ। ফিলিপাইনের প্রবাহ কমেছে শূন্য দশমিক ৯ শতাংশ। কিন্তু এর বিপরীতে বাংলাদেশের রেমিট্যান্সপ্রবাহ বেড়েছে ১৮ দশমিক ৪ শতাংশ। ২০২০ সালের জানুয়ারি থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত বাংলাদেশের সংগৃহীত রেমিট্যান্সের পরিমাণ দুই হাজার ১৭৪ কোটি ১৮ লাখ মার্কিন ডলার। অন্যদিকে শুধু ছয় মাসের ব্যবধানে এ প্রবৃদ্ধি ছিল ৩৮ শতাংশ।

এ বিষয়ে সেন্টার ফর নন-রেসিডেন্ট বাংলাদেশিসের (এনআরবি) চেয়ারপারসন এম এস শেকিল চৌধুরী বলেন, একটি সময় হুন্ডির মাধ্যমে প্রচুর পরিমাণ বিদেশি অর্থ দেশে আসত। কিন্তু সেটাও এখন ব্যাংকিং চ্যানেলে আসছে। আবার প্রবাসীরা প্রতিবছর দুই থেকে একবার দেশে আসার সময় অনেক ক্যাশ টাকা বয়ে আনতেন। এখন সেটার প্রয়োজন হচ্ছে না। কারণ ব্যাংকিং চ্যানেলে টাকা পাঠালে দুই শতাংশ প্রণোদনা দিচ্ছে সরকার। এছাড়া যেসব ব্যবসায়ী হুন্ডির মাধ্যমে ভারি লেনদেন করতেন তাদের মধ্যেও বৈধ পথে টাকা লেনদেনের আগ্রহ বেড়েছে।

সিপিডি জানায়, কোভিড-১৯ মহামারির ধাক্কায় পুরো বিশ্বের অর্থনীতি পর্যুদস্ত। কমে গেছে আন্তর্জাতিক বাণিজ্য। বিপুল সংখ্যক প্রবাসী শ্রমিক কাজ হারিয়ে দেশে ফিরেছেন। বিপুল সংখ্যক তাদের কর্মস্থলে ফিরে যেতে পারেননি। প্রাবাসী আয়ের ক্ষেত্রে এর প্রভাব নিয়ে সবাই শঙ্কিত ছিলেন এবং এ কারণে বিশ্বব্যাপী প্রবাসী আয় হ্রাস পাবে বলে ধারণা করা হয়েছিল। কিন্তু বিস্ময়ের সঙ্গে দেখা যাচ্ছে যে, প্রবাসী আয়ের ক্ষেত্রে বাংলাদেশ রেকর্ড করে চলেছে। প্রবাসী আয়ের এ ঊর্ধ্বমুখী ধারা যেমন আমাদের জন্য স্বস্তিদায়ক, ঠিক একইভাবে তা নিয়ে রয়েছে নানা আলোচনা। এই অর্থের উৎস নিয়েও রয়েছে নানা বিতর্ক।

jagonews24

রিফিউজি অ্যান্ড মাই গ্রিটিং মুভমেন্ট রিসার্চ ইউনিট (রামরু) এর চেয়ারপারসন অধ্যাপক তাসনীম সিদ্দিকী বলেন, রেমিট্যান্সের ঊর্ধ্বগতি মানে প্রবাসীরা ভালো আছেন এটা ভাবা উচিত নয়। তবে যেসব প্রবাসী ইতোমধ্যেই কাজ হারিয়ে দুরবস্থার মধ্যে রয়েছেন তাদের বিষয়ে বিশেষ গুরুত্ব দেয়া উচিত।

প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ বলেন, প্রবাসী আয়ের ওপর সরকারি ২ শতাংশ প্রণোদনা যদি আরও কিছুটা বাড়ানো যায় তবে এই প্রবৃদ্ধি টেকসই হবে। এরকম প্রণোদনা যদি আমরা পোশাকখাতের জন্য করতে পারি তাহলে আমরা আরও লাভবান হতে পারব। ইতোমধ্যেই ফিরে আসা বাংলাদেশিদের জন্য ২০০ কোটি টাকার তহবিল গঠন করেছেন প্রধানমন্ত্রী। যেই টাকাগুলো ঋণ হিসেবে বিতরণ করা হবে প্রবাসী কল্যাণ ব্যাংকের মাধ্যমে।

তিনি আরও বলেন, এটা নিয়ন্ত্রণ করবে প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়। কিন্তু ব্যাংকটির যথেষ্ট লোকবল এবং অবকাঠামোর অভাবে টাকাগুলো এই মুহূর্তে বিতরণ করা সম্ভব হচ্ছে না। এটা নিয়ে মন্ত্রণালয় কাজ করছে। ফিরে আসা বাংলাদেশিদের কাজে লাগাতে মাত্র চার শতাংশ সুদে সর্বোচ্চ তিন লাখ টাকা পর্যন্ত জামানতবিহীন এই ঋণের ব্যবস্থা করছে সরকার।

সমাপনী বক্তব্যে দেবপ্রিয় বলেন, পরিশ্রমী এসব মানুষের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করা না গেলে সমস্যায় পড়বে বাংলাদেশ। কারণ কর্মসংস্থানের ওপর ভিত্তি করেই বৈশ্বিক উন্নয়ন কর্মসূচি অর্জন নির্ভর করছে। অনেকেই বলছেন, রেমিট্যান্সের প্রবাহ ২০২১ সালে শেষ পর্যন্ত চলতে পারে আবার কারও কারও মতে অব্যাহত থাকবে এই প্রবৃদ্ধি।

তিনি আরও বলেন, প্রবাসী কল্যাণ ব্যাংকের মাধ্যমে ২০০ কোটি টাকা বিতরণ কার্যক্রম নেয়া হয়েছে তার মধ্যে মাত্র কয়েক লাখ টাকা বিতরণ করেছে ব্যাংকটি। নানা অসুবিধার কারণে প্রবাসীদের কাছে টাকা পৌঁছাতে পারছে না তারা। এখন প্রশ্ন উঠেছে, কেন অন্য কোনো সিডিউল ব্যাংকের মাধ্যমে এই ঋণ বিতরণ করা হবে না।

খেটে খাওয়া এইসব মানুষের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থার জন্য যেকোনোভাবে সরকারের এগিয়ে আসা উচিত বলে মনে করেন তিনি।

ইএআর/এমআরআর/জেআইএম

করোনা ভাইরাস - লাইভ আপডেট

১১,৫১,৮৯,৫২৬
আক্রান্ত

২৫,৫৪,৪১৪
মৃত

৯,০৮,৫৪,৯০২
সুস্থ

# দেশ আক্রান্ত মৃত সুস্থ
বাংলাদেশ ৫,৪৬,৮০১ ৮,৪১৬ ৪,৯৭,৭৯৭
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ২,৯৩,২১,৮০৩ ৫,২৭,৭০২ ১,৯৮,১৮,৭৪৮
ভারত ১,১১,৩৮,২১২ ১,৫৭,৩৭২ ১,০৮,০৯,৩৮১
ব্রাজিল ১,০৫,৮৯,৬০৮ ২,৫৫,৮৩৬ ৯৪,৫৭,১০০
রাশিয়া ৪২,৬৮,২১৫ ৮৬,৮৯৬ ৩৮,৩৮,০৪০
যুক্তরাজ্য ৪১,৮৮,৪০০ ১,২৩,২৯৬ ২৯,৫৯,৮৮৪
ফ্রান্স ৩৭,৬০,৬৭১ ৮৬,৮০৩ ২,৫৮,৩৮৪
স্পেন ৩২,০৪,৫৩১ ৬৯,৬০৯ ২৭,২২,৩০৪
ইতালি ২৯,৫৫,৪৩৪ ৯৮,২৮৮ ২৪,২৬,১৫০
১০ তুরস্ক ২৭,২৩,৩১৬ ২৮,৭০৬ ২৫,৮৬,০৭৩
১১ জার্মানি ২৪,৫৮,০১৭ ৭১,১২৩ ২২,৬৪,৬০০
১২ কলম্বিয়া ২২,৫৫,২৬০ ৫৯,৮৬৬ ২১,৫১,৬৩৩
১৩ আর্জেন্টিনা ২১,১২,০২৩ ৫২,০৭৭ ১৯,১১,৩৩৮
১৪ মেক্সিকো ২০,৮৯,২৮১ ১,৮৬,১৫২ ১৬,৩৯,৯৪৩
১৫ পোল্যান্ড ১৭,১৯,৭০৮ ৪৪,০০৮ ১৪,৩৮,০৩২
১৬ ইরান ১৬,৪৮,১৭৪ ৬০,২৬৭ ১৪,০৬,৮৪৫
১৭ দক্ষিণ আফ্রিকা ১৫,১৩,৯৫৯ ৫০,০৭৭ ১৪,৩১,৩৩৬
১৮ ইউক্রেন ১৩,৫৭,৪৭০ ২৬,২১২ ১১,৭৬,৯১৮
১৯ ইন্দোনেশিয়া ১৩,৪৭,০২৬ ৩৬,৫১৮ ১১,৬০,৮৬৩
২০ পেরু ১৩,৩২,৯৩৯ ৪৬,৬৮৫ ১২,৩৬,৬৬৮
২১ চেক প্রজাতন্ত্র ১২,৫২,২৪২ ২০,৭০১ ১০,৮২,৬১৭
২২ নেদারল্যান্ডস ১০,৯৬,৪৩৩ ১৫,৬৪৯ ২৫০
২৩ কানাডা ৮,৭১,০০৪ ২২,০২৮ ৮,১৮,৫৭০
২৪ চিলি ৮,৩২,৫১২ ২০,৬৮৪ ৭,৮৭,৭০০
২৫ রোমানিয়া ৮,০৮,০৪০ ২০,৫০৯ ৭,৪৪,০৪০
২৬ পর্তুগাল ৮,০৫,৬৪৭ ১৬,৩৮৯ ৭,২৩,৪৬৫
২৭ ইসরায়েল ৭,৮১,৮৫৭ ৫,৭৭৯ ৭,৩৬,৮৮৮
২৮ বেলজিয়াম ৭,৭২,২৯৪ ২২,১০৬ ৫২,৫৮৫
২৯ ইরাক ৭,০৩,৭৭৮ ১৩,৪৫৮ ৬,৪৩,১৫৬
৩০ সুইডেন ৬,৬৯,১১৩ ১২,৮৮২ ৪,৯৭১
৩১ পাকিস্তান ৫,৮২,৫২৮ ১২,৯৩৮ ৫,৪৭,৪০৬
৩২ ফিলিপাইন ৫,৮০,৪৪২ ১২,৩৬৯ ৫,৩৪,৪৬৩
৩৩ সুইজারল্যান্ড ৫,৫৮,৬২২ ১০,০০৫ ৫,১১,৪৩৭
৩৪ মরক্কো ৪,৮৪,১৫৯ ৮,৬৪৫ ৪,৬৯,৮৬৮
৩৫ সার্বিয়া ৪,৬৬,৮৮৫ ৪,৪৭৫ ৪,০০,৩৪৭
৩৬ অস্ট্রিয়া ৪,৬২,৭৬৯ ৮,৬০৫ ৪,৩৩,৮৭৩
৩৭ হাঙ্গেরি ৪,৩৫,৬৮৯ ১৫,১৮৮ ৩,২৪,২০২
৩৮ জাপান ৪,৩৩,৫০৪ ৭,৯৩৩ ৪,১২,১১৫
৩৯ জর্ডান ৪,০২,২৮২ ৪,৭৫৬ ৩,৫৪,১৪৩
৪০ সংযুক্ত আরব আমিরাত ৩,৯৬,৭৭১ ১,২৫৩ ৩,৮৩,৯৯৮
৪১ লেবানন ৩,৮০,০৩৬ ৪,৮০৫ ২,৯৬,২৩৭
৪২ সৌদি আরব ৩,৭৮,০০২ ৬,৫০৫ ৩,৬৮,৯২৬
৪৩ পানামা ৩,৪১,৪২০ ৫,৮৫৮ ৩,২৭,৩১৭
৪৪ স্লোভাকিয়া ৩,১১,০০২ ৭,৩৮৮ ২,৫৫,৩০০
৪৫ মালয়েশিয়া ৩,০৪,১৩৫ ১,১৪১ ২,৭৮,৪৩১
৪৬ বেলারুশ ২,৮৯,১৩৬ ১,৯৯৩ ২,৭৯,৪৫০
৪৭ ইকুয়েডর ২,৮৬,৭২৫ ১৫,৮৫০ ২,৪৭,৮৯৮
৪৮ নেপাল ২,৭৪,২৯৪ ২,৭৭৭ ২,৭০,৫৪৩
৪৯ জর্জিয়া ২,৭১,৩৭৯ ৩,৫৩২ ২,৬৫,৬৮৬
৫০ বলিভিয়া ২,৪৯,৭৬৭ ১১,৬৬৬ ১,৯৩,৬৫২
৫১ বুলগেরিয়া ২,৪৯,৬২৬ ১০,৩০৮ ২,০৬,৬৩০
৫২ ক্রোয়েশিয়া ২,৪৩,৪৫৮ ৫,৫৪৮ ২,৩৫,০১৭
৫৩ ডোমিনিকান আইল্যান্ড ২,৪০,২০১ ৩,১১৮ ১,৯২,৬৫১
৫৪ আজারবাইজান ২,৩৫,০১৪ ৩,২২৫ ২,২৮,৯৮২
৫৫ তিউনিশিয়া ২,৩৩,৬৬৯ ৮,০২২ ১,৯৮,৭৭৮
৫৬ আয়ারল্যান্ড ২,২০,২৭৩ ৪,৩১৯ ২৩,৩৬৪
৫৭ কাজাখস্তান ২,১৪,০৮৯ ২,৫৪০ ১,৯৭,৭৮২
৫৮ ডেনমার্ক ২,১২,২২৪ ২,৩৬৭ ২,০২,৯১৪
৫৯ কোস্টারিকা ২,০৫,০৮৬ ২,৮১২ ১,৮১,৮৫১
৬০ লিথুনিয়া ১,৯৯,৮২৫ ৩,২৬৩ ১,৮৫,৭৭০
৬১ গ্রীস ১,৯৪,৫৮২ ৬,৫৫৭ ১,৬৫,৭১৮
৬২ কুয়েত ১,৯৩,৩৭২ ১,০৯২ ১,৮১,১১৯
৬৩ স্লোভেনিয়া ১,৯১,০৫৬ ৩,৮৬৩ ১,৭৫,২১০
৬৪ মলদোভা ১,৮৭,৮৪৭ ৪,০০২ ১,৬৭,৪৪২
৬৫ ফিলিস্তিন ১,৮৭,৩০৯ ২,০৬৩ ১,৬৮,৭৬৩
৬৬ মিসর ১,৮৩,০১০ ১০,৭৩৬ ১,৪১,৩৪৭
৬৭ গুয়াতেমালা ১,৭৪,৬৫৩ ৬,৪০২ ১,৬১,৮১৬
৬৮ আর্মেনিয়া ১,৭২,৪৫৬ ৩,২০০ ১,৬৩,৭৩৮
৬৯ হন্ডুরাস ১,৭০,৯৮৫ ৪,১৭৪ ৬৬,৭০৯
৭০ কাতার ১,৬৪,৬০০ ২৫৯ ১,৫৪,৪২০
৭১ প্যারাগুয়ে ১,৬০,৪৪৮ ৩,১৯৮ ১,৩৪,৩৯২
৭২ ইথিওপিয়া ১,৫৯,৯৭২ ২,৩৭৩ ১,৩৫,১৭৭
৭৩ নাইজেরিয়া ১,৫৬,০১৭ ১,৯১৫ ১,৩৩,৯০৪
৭৪ ওমান ১,৪২,১৬৯ ১,৫৮০ ১,৩২,৯৪৫
৭৫ মায়ানমার ১,৪১,৯৬৫ ৩,১৯৯ ১,৩১,৫৩৪
৭৬ ভেনেজুয়েলা ১,৩৯,৫৪৫ ১,৩৪৮ ১,৩১,৬৪৭
৭৭ লিবিয়া ১,৩৪,৯৬৭ ২,২১৬ ১,২২,০৭৯
৭৮ বসনিয়া ও হার্জেগোভিনা ১,৩৩,০৮৮ ৫,১৪৫ ১,১৬,৮২১
৭৯ বাহরাইন ১,২৩,০৩৯ ৪৫২ ১,১৫,৮৯৫
৮০ আলজেরিয়া ১,১৩,২৫৫ ২,৯৮৭ ৭৮,২৩৪
৮১ আলবেনিয়া ১,০৮,৮২৩ ১,৮৩৫ ৭১,১৭৩
৮২ কেনিয়া ১,০৬,১২৫ ১,৮৫৯ ৮৬,৭১৭
৮৩ উত্তর ম্যাসেডোনিয়া ১,০৩,৭৪৬ ৩,১৫১ ৯১,৮৭৫
৮৪ দক্ষিণ কোরিয়া ৯০,৩৭২ ১,৬০৬ ৮১,৩৩৮
৮৫ চীন ৮৯,৯২৩ ৪,৬৩৬ ৮৫,০৮৭
৮৬ লাটভিয়া ৮৭,১০৩ ১,৬৩৮ ৭৬,২১১
৮৭ কিরগিজস্তান ৮৬,৩০৮ ১,৪৯৮ ৮৩,২৬৯
৮৮ ঘানা ৮৪,০২৩ ৬০৭ ৭৭,৯৭২
৮৯ শ্রীলংকা ৮৩,৭০৫ ৪৭৬ ৮০,০২০
৯০ উজবেকিস্তান ৭৯,৯৬১ ৬২২ ৭৮,৫১৩
৯১ জাম্বিয়া ৭৯,৫৫৭ ১,১০৪ ৭৫,৫৬৩
৯২ মন্টিনিগ্রো ৭৬,৮৬৮ ১,০২৩ ৬৭,২০৭
৯৩ নরওয়ে ৭২,০২৬ ৬২৩ ৬৬,০১৪
৯৪ এস্তোনিয়া ৬৭,৭৩৯ ৬০৫ ৫০,৩৫১
৯৫ সিঙ্গাপুর ৫৯,৯৫৬ ২৯ ৫৯,৮৪২
৯৬ মোজাম্বিক ৫৯,৯১৪ ৬৬৫ ৪২,৭৯৭
৯৭ এল সালভাদর ৫৯,৮৬৬ ১,৮৬৯ ৫৫,৩১২
৯৮ ফিনল্যাণ্ড ৫৮,৬৪৫ ৭৫৫ ৪৬,০০০
৯৯ উরুগুয়ে ৫৮,৫৮৯ ৬১১ ৫০,৬২৪
১০০ আফগানিস্তান ৫৫,৭৭০ ২,৪৪৬ ৪৯,৩৪৭
১০১ লুক্সেমবার্গ ৫৫,৬৩২ ৬৪১ ৫২,০৬২
১০২ কিউবা ৫১,৫৮৭ ৩২৮ ৪৬,৯২৬
১০৩ উগান্ডা ৪০,৩৬৭ ৩৩৪ ১৪,৯৮৯
১০৪ নামিবিয়া ৩৯,১৮২ ৪৩০ ৩৬,৪৯৮
১০৫ জিম্বাবুয়ে ৩৬,১১৫ ১,৪৬৮ ৩২,৯০৫
১০৬ ক্যামেরুন ৩৫,৭১৪ ৫৫১ ৩২,৫৯৪
১০৭ সাইপ্রাস ৩৫,০০৯ ২৩১ ২,০৫৭
১০৮ সেনেগাল ৩৪,৮৩২ ৮৮৮ ২৯,৪০২
১০৯ আইভরি কোস্ট ৩২,৭৯১ ১৯৩ ৩২,৬২৪
১১০ মালাউই ৩২,১৪৮ ১,০৫৩ ১৯,৯০৪
১১১ বতসোয়ানা ৩০,৭২৭ ৩৩২ ২৪,৮৮৪
১১২ অস্ট্রেলিয়া ২৮,৯৮৬ ৯০৯ ২৬,১৮০
১১৩ সুদান ২৮,৪০৬ ১,৮৯০ ২২,৯৭৫
১১৪ থাইল্যান্ড ২৬,০৭৩ ৮৪ ২৫,৪২০
১১৫ ড্যানিশ রিফিউজি কাউন্সিল ২৬,০৫০ ৭১১ ২০,৪৬৬
১১৬ জ্যামাইকা ২৩,৮৩৮ ৪৩২ ১৩,৬২৫
১১৭ মালটা ২২,৯৯৩ ৩১৯ ১৯,৭৪৩
১১৮ অ্যাঙ্গোলা ২০,৮৫৪ ৫০৮ ১৯,৪০০
১১৯ মালদ্বীপ ১৯,৯৭৯ ৬২ ১৭,৩৪৩
১২০ মাদাগাস্কার ১৯,৮৩১ ২৯৭ ১৯,২৯৬
১২১ রুয়ান্ডা ১৮,৯৮৬ ২৬৪ ১৭,৩২২
১২২ ফ্রেঞ্চ পলিনেশিয়া ১৮,৪১৪ ১৩৯ ৪,৮৪২
১২৩ মায়োত্তে ১৭,৬০০ ১১০ ২,৯৬৪
১২৪ মৌরিতানিয়া ১৭,২১৭ ৪৪১ ১৬,৫৮৩
১২৫ ইসওয়াতিনি ১৭,০২৫ ৬৫২ ১৪,৮০০
১২৬ ফ্রেঞ্চ গায়ানা ১৬,৬২৭ ৮৫ ৯,৯৯৫
১২৭ গিনি ১৬,০৮১ ৯১ ১৪,৯৯৪
১২৮ সিরিয়া ১৫,৬৪২ ১,০৩২ ৯,৮৮০
১২৯ কেপ ভার্দে ১৫,৪৩২ ১৪৭ ১৪,৮৭৫
১৩০ গ্যাবন ১৪,৮৪৯ ৮৭ ১৩,২৮৮
১৩১ তাজিকিস্তান ১৩,৩০৮ ৯০ ১৩,২১৮
১৩২ হাইতি ১২,৪৯৩ ২৫০ ৯,৭৬৩
১৩৩ রিইউনিয়ন ১২,৪১৬ ৫২ ১১,২৭০
১৩৪ বেলিজ ১২,৩১৩ ৩১৫ ১১,৮৬০
১৩৫ বুর্কিনা ফাঁসো ১২,০৩০ ১৪৩ ১১,৫৮৮
১৩৬ হংকং ১১,০৩৩ ২০০ ১০,৫৬৩
১৩৭ এনডোরা ১০,৯০৮ ১১০ ১০,৫০১
১৩৮ লেসোথো ১০,৪৯৫ ২৯৫ ৩,৭৬৮
১৩৯ গুয়াদেলৌপ ৯,৭৪৬ ১৫৯ ২,২৪২
১৪০ সুরিনাম ৮,৯৩৩ ১৭৩ ৮,৪১৩
১৪১ কঙ্গো ৮,৮২০ ১২৮ ৭,০১৯
১৪২ গায়ানা ৮,৫৯৫ ১৯৭ ৭,৯৯৩
১৪৩ বাহামা ৮,৫১৯ ১৭৯ ৭,৩০৯
১৪৪ মালি ৮,৩৯০ ৩৫৫ ৬,৪০৮
১৪৫ দক্ষিণ সুদান ৮,১৪৪ ৯৫ ৪,২১৭
১৪৬ আরুবা ৭,৯০৮ ৭৪ ৭,৬৫৫
১৪৭ ত্রিনিদাদ ও টোবাগো ৭,৭১৬ ১৩৯ ৭,৪৭৪
১৪৮ সোমালিয়া ৭,৫১৮ ২৪৯ ৩,৮৪৬
১৪৯ টোগো ৬,৯৩৩ ৮৫ ৫,৬৬৩
১৫০ মার্টিনিক ৬,৬৮৭ ৪৫ ৯৮
১৫১ নিকারাগুয়া ৬,৪৪৫ ১৭৩ ৪,২২৫
১৫২ ইকোয়েটরিয়াল গিনি ৬,০৯৫ ৯২ ৫,৬৩২
১৫৩ জিবুতি ৬,০৮৯ ৬৩ ৫,৯২০
১৫৪ আইসল্যান্ড ৬,০৫৫ ২৯ ৬,০১৭
১৫৫ বেনিন ৫,৪৩৪ ৭০ ৪,২৪৮
১৫৬ সেন্ট্রাল আফ্রিকান রিপাবলিক ৫,০০৪ ৬৩ ৪,৯২০
১৫৭ নাইজার ৪,৭৪০ ১৭২ ৪,২৫০
১৫৮ কিউরাসাও ৪,৭৩১ ২২ ৪,৬৪৫
১৫৯ গাম্বিয়া ৪,৭১২ ১৫০ ৪,০৮৯
১৬০ জিব্রাল্টার ৪,২৪৩ ৯৩ ৪,১২৭
১৬১ চ্যানেল আইল্যান্ড ৪,০৩৯ ৮৬ ৩,৯৩৯
১৬২ চাদ ৩,৯৮৬ ১৪০ ৩,৪৮০
১৬৩ সিয়েরা লিওন ৩,৮৮৭ ৭৯ ২,৬২১
১৬৪ সান ম্যারিনো ৩,৭৯১ ৭৪ ৩,৩২৫
১৬৫ কমোরস ৩,৫৭৮ ১৪৪ ৩,৩৩১
১৬৬ সেন্ট লুসিয়া ৩,৩৯০ ৩৬ ৩,০১৩
১৬৭ গিনি বিসাউ ৩,২৬২ ৪৮ ২,৬১৩
১৬৮ বার্বাডোস ৩,১১৫ ৩৬ ২,৪৪৩
১৬৯ মঙ্গোলিয়া ৩,০০০ ২,৩৩০
১৭০ ইরিত্রিয়া ২,৮৮৪ ২,৩৪৪
১৭১ সিসিলি ২,৬৮৮ ১১ ২,৩৬৫
১৭২ লিচেনস্টেইন ২,৫৭৬ ৫৪ ২,৪৮৪
১৭৩ ভিয়েতনাম ২,৪৭২ ৩৫ ১,৮৯৮
১৭৪ ইয়েমেন ২,৪৩৬ ৬৬০ ১,৫৮০
১৭৫ নিউজিল্যান্ড ২,৩৮২ ২৬ ২,২৮৭
১৭৬ বুরুন্ডি ২,২১৭ ৭৭৩
১৭৭ টার্কস্ ও কেইকোস আইল্যান্ড ২,১১৪ ১৪ ১,৮৭৩
১৭৮ সিন্ট মার্টেন ২,০৬০ ২৭ ২,০০৪
১৭৯ লাইবেরিয়া ২,০১৪ ৮৫ ১,৮৮৪
১৮০ মোনাকো ১,৯৬৫ ২৪ ১,৭২০
১৮১ সেন্ট ভিনসেন্ট ও গ্রেনাডাইন আইল্যান্ড ১,৬২৮ ৯৩৮
১৮২ সেন্ট মার্টিন ১,৫৪৪ ১২ ১,৩৯৯
১৮৩ পাপুয়া নিউ গিনি ১,৩৬৫ ১৪ ৮৪৬
১৮৪ তাইওয়ান ৯৫৫ ৯১৯
১৮৫ ভুটান ৮৬৭ ৮৬৫
১৮৬ কম্বোডিয়া ৮৪৪ ৪৭৮
১৮৭ অ্যান্টিগুয়া ও বার্বুডা ৭৬৯ ১৪ ৩০৭
১৮৮ বারমুডা ৭১৩ ১২ ৬৮২
১৮৯ ডায়মন্ড প্রিন্সেস (প্রমোদ তরী) ৭১২ ১৩ ৬৯৯
১৯০ ফারে আইল্যান্ড ৬৫৮ ৬৫৭
১৯১ মরিশাস ৬১৯ ১০ ৫৮৮
১৯২ সেন্ট বারথেলিমি ৫৭৩ ৪৬২
১৯৩ তানজানিয়া ৫০৯ ২১ ১৮৩
১৯৪ আইল অফ ম্যান ৪৯৪ ২৫ ৪৫১
১৯৫ কেম্যান আইল্যান্ড ৪৪৭ ৪১৫
১৯৬ ক্যারিবিয়ান নেদারল্যান্ডস ৪২৯ ৪০২
১৯৭ ব্রুনাই ১৮৭ ১৮১
১৯৮ ব্রিটিশ ভার্জিন দ্বীপপুঞ্জ ১৫৩ ১৩১
১৯৯ গ্রেনাডা ১৪৮ ১৪৭
২০০ ডোমিনিকা ১৪৪ ১৩০
২০১ পূর্ব তিমুর ১১৩ ৯০
২০২ ফিজি ৫৯ ৫৪
২০৩ নিউ ক্যালেডোনিয়া ৫৮ ৫৫
২০৪ ফকল্যান্ড আইল্যান্ড ৫৪ ৪৬
২০৫ ম্যাকাও ৪৮ ৪৭
২০৬ লাওস ৪৫ ৪২
২০৭ সেন্ট কিটস ও নেভিস ৪১ ৪০
২০৮ গ্রীনল্যাণ্ড ৩০ ৩০
২০৯ ভ্যাটিকান সিটি ২৭ ১৫
২১০ সেন্ট পিয়ের এন্ড মিকেলন ২৪ ১৬
২১১ মন্টসেরাট ২০ ১৩
২১২ এ্যাঙ্গুইলা ১৮ ১৮
২১৩ সলোমান আইল্যান্ড ১৮ ১৪
২১৪ পশ্চিম সাহারা ১০
২১৫ জান্ডাম (জাহাজ)
২১৬ ওয়ালিস ও ফুটুনা
২১৭ মার্শাল আইল্যান্ড
২১৮ সামোয়া
২১৯ ভানুয়াতু
তথ্যসূত্র: চীনের জাতীয় স্বাস্থ্য কমিশন (সিএনএইচসি) ও অন্যান্য।
করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]