‘হিম্মতওয়ালা’ কেন দুর্ভাগ্যের কারণ ছিল শ্রীদেবীর

বিনোদন ডেস্ক
বিনোদন ডেস্ক বিনোদন ডেস্ক
প্রকাশিত: ১১:২৬ এএম, ০৪ নভেম্বর ২০১৮

২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮। ওইদিন দিবাগত রাতে আকস্মিক মৃত্যু হয় হিন্দি চলচ্চিত্রে প্রথম নারী সুপারস্টার শ্রীদেবীর। তার মৃত্যুতে শোকস্তব্ধ হয়ে গিয়েছিল বলিউড ইন্ডাস্ট্রি। বহুদিন ধরে অনেকে এই দুর্ঘটনাকে মন থেকে মেনেই নিতে পারেনি। শ্রীদেবীকে নিয়ে আর কোনো লেটেস্ট আপডেট পায় না তার ফ্যানেরা। তবে ‘হাওয়া হাওয়াই গার্ল’কে নিয়ে সম্প্রতি নতুন তথ্য বেরিয়ে এসেছে যা তার ফ্যানেরা আগে জানতেন না।

‘শ্রীদেবী : দ্য ক্যুইন অব হার্টস’ বইতে শ্রীদেবীর এক সাক্ষাৎকারের কথা উল্লেখিত রয়েছে। শ্রীদেবীর সাউথ ইন্ডাস্ট্রির মাধ্যমে অভিনয়ের হাতেখড়ি হলেও বলিউডে তার প্রায় প্রতিটি ছবি সুপারহিট। বলিপাড়ার ক্যুইন হয়ে উঠেছিলেন খুব কম সময়ের মধ্যেই।

১৯৮৩ সালের ব্লকবাস্টার ছবি ‘হিম্মতওয়ালা’ ছবির পর জনপ্রিয়তার শীর্ষে ওঠেন তিনি। তার আগে বহু ছবি করেছিলেন বটে কিন্তু তার সমসাময়িক অভিনেত্রী জয়াপ্রদার জনপ্রিয়তার জন্য শ্রীদেবীর ভূমিকা অসম্পূর্ণই থেকে যাচ্ছিল। ‘হিম্মতওয়ালা’ পুরোপুরি বদলে দিয়েছিল শ্রীদেবীর ভাগ্য। রাতারাতি ফেমাস বনে যান তিনি। কিন্তু এই ছবিকেই সেই পুরনো সাক্ষাৎকারে দুর্ভাগ্য বলেছিলেন এই নারী সুপারস্টার। নিজের জীবনের সেরা ছবিকে কেন দুর্ভাগ্য বলেছিলেন সেই কারণও ব্যক্ত করেছিলেন।

তার কথায়, তিনি গ্ল্যামারাস অভিনেত্রী কোনোদিনই হতে চাননি। তিনি তার অভিনয় ক্ষমতায় মুগ্ধ করতে চেয়েছিলেন দর্শকদের। তামিল ছবিতে দর্শকরা আমাকে সাধারণভাবে অভিনয় করতে দেখতে চায়। কিন্তু হিন্দি ছবিতে গ্ল্যামারটাই বেশি প্রাধান্য পেয়ে এসেছে। আমি যখন ‘সদমা’ করলাম ছবিটা ফ্লপ হয়ে গেল। আর ‘হিম্মতওয়ালা’ সেরা হিট ছবি। আমার মনে হয়, প্রথম হিন্দি কমার্শিয়াল ছবি হিট হওয়াটা ব্যাড লাক।

এসআর/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]