মাওলানা আবুল কালাম আজাদের বংশধর আমির খান

বিনোদন প্রতিবেদক
বিনোদন প্রতিবেদক বিনোদন প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৩:১৪ পিএম, ১৩ জুলাই ২০২০

আমির খানকে বলা হয় বলিউডের মিস্টার পারফেকশনিস্ট। চিত্রনাট্য থেকে শুরু করে ছবির সব খুঁটিনাটি বিষয়ে মনযোগ থাকে তার। সেই ‘তারে জমিন পর’, ‘থ্রি ইডিয়টস’, ‘ধোবিঘাট’, ‘লগন’, ‘দঙ্গল’র মতো ছবির পাশাপাশি আমির খানের অভিনয় দর্শকদের মুগ্ধ করেছে মঙ্গল পাণ্ডের মতো ইতিহাস আশ্রিত ছবিতেও৷

আমির খান তিন দশকের সিনেমার ক্যারিয়ারে কেবল মিস্টার পারফেকশনিস্টের তকমা পেয়েছেন তা নয়। হিন্দি ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে তার ছবি এখনও সব থেকে বেশি আয় করে। তার টেলিভিশন শো ‘সত্যমেব জয়তে’র জনপ্রিয়তাও আকাশছোঁয়া।

সেরা অভিনেতা হিসেবেই আমির কে সবাই চেনেন। কিন্তু তার আসল পরিচয় কি কেউ জানেন? হয় তো কেউ কেউ জানেন। একজন বিখ্যাত স্বাধীনতা সংগ্রামীর বংশধর তিনি।

আমির নিজেই তার পরিচয় দিয়েছেন এক ভারতীয় গণমাধ্যমে। পরাধীন ভারতের স্বাধীনতা সংগ্রামের উজ্জ্বল একটি নক্ষত্র মাওলানা আবুল কালাম আজাদ আমিরের প্রমাতামহ।

১৮৮৮ সালে মক্কায় জন্মগ্রহণ করেন আবুল কালাম আজাদ। পরবর্তীকালে তিনি ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেসের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ নেতা হয়ে ওঠেন৷ স্বাধীনতার পর জওহরলাল নেহরুর মন্ত্রীসভায় গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করেন আবুল কালাম আজাদ। তিনি ছিলেন ভারতের প্রথম শিক্ষামন্ত্রী।

আমির খান এই মানুষটির ঋণ স্বীকার করেন বার বার। বেশ কয়েকবার এই নায়ক জানিয়েছেন। তার চাচা তথা বিগত দিনের বিশিষ্ট চলচ্চিত্রকার নাসির হুসেন যখন সিনেমার জগতে আসার কথা ভাবছিলেন, তখন পরিবারের অনেকেই বিরোধিতা করেছিলেন। সেই সময় নাসিরের পাশে ছিলেন আবুল কালাম আজাদ।

নাসিরের হাত ধরেই আমিরের বাবা তাহির হুসেন সিনেমার দুনিয়ায় পা রাখেন। আমির বলেন, ‘বাবা সিনেমায় না আসলে আমার কাছে সিনেমা জগৎ অচেনা থেকে যেতো।’

এমএবি/এলএ/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]