বহু নারীর জীবন নষ্ট করেছেন আমির, সামান্থার ডিভোর্সেও দায়ী: কঙ্গনা

বিনোদন ডেস্ক
বিনোদন ডেস্ক বিনোদন ডেস্ক
প্রকাশিত: ০১:১০ পিএম, ০৪ অক্টোবর ২০২১

দক্ষিণের তারকা দম্পতি নাগা চৈতন্য ও সামান্থা প্রভুর সম্প্রতি ডিভোর্স হয়ে গেছে। তাদের ডিভোর্সকে বলা হচ্ছে ভারতীয় সিনেমা দুনিয়ার ‘দামি’ ডিভোর্স। মাত্র চার বছরেই বিবাহ সম্পর্কের ইতি টানলেন অভিনেতা নাগার্জুনের ছেলে নাগা এবং সামান্থা।

এদিকে এই বিচ্ছেদের জন্য বলিউড সুপারস্টার আমির খানকেই কাঠগড়ায় তুলে দিলেন কঙ্গনা রানাউত।

চার বছর আগে ধুমধাম করে অভিনেত্রী সামান্থার সঙ্গে ছেলের বিয়ের দিয়েছিলেন নাগার্জুন। কিন্তু চতুর্থ বিবাহবার্ষিকীর ঠিক পাঁচ দিন আগে শনিবার (২ অক্টোবর) সামান্থা ও নাগা সোশ্যাল মিডিয়ায় জানিয়ে দেন, তারা সম্পর্কে ইতি টানছেন। দম্পতির এমন সিদ্ধান্তে রীতিমতো তাজ্জব তাদের অনুরাগীরা।

যদিও বেশ কয়েক মাস ধরে শোনা যাচ্ছিল, তাদের সম্পর্কে চিড় ধরেছে। তবে তা যে এত দ্রুত ডিভোর্সের পর্যায়ে পৌঁছে যাবে, এমনটা অনেকেই যেন বিশ্বাস করতে পারছেন না। এই চর্চার মধ্যেই নতুন করে আগুন ধরিয়ে দিলেন বলিউডের ‘বিতর্কের রানী’ কঙ্গনা।

তার দাবি, এই বিচ্ছেদের নেপথ্যে আছেন ‘ডিভোর্স বিশেষজ্ঞ’ আমির খান দায়ী!

সোশ্যাল মিডিয়ায় দীর্ঘ পোস্ট করেছেন কঙ্গনা লেখেন, ‘কোনো সম্পর্কের বিচ্ছেদ ঘটলে দোষ দেওয়া হয় পুরুষকেই। কিন্তু বাস্তবেও এটাই সত্যি। অনেক পুরুষই মহিলাদের বদলানোর চেষ্টা করে। সেই সব পুরুষদের শক্ত হাতে আটকানো উচিত। সাধারণত একশোর মধ্যে একটি মেয়ের ক্ষেত্রে ডিভোর্স হয়।’

সম্প্রতি বি-টাউনের মিস্টার পারফেকশনিস্টের সঙ্গে ‘লাল সিং চড্ডা’ ছবির শুটিং করেছেন নাগা চৈতন্য। সেই প্রসঙ্গ টেনে এনেই কঙ্গনা লেখেন, ‘সামান্থার সঙ্গে হঠাৎ করে চার বছরের বৈবাহিক সম্পর্ক ছিন্ন করল নাগা। অথচ বিয়ের বহু বছর আগে থেকেই ওদের সম্পর্ক ছিল। আসলে সম্প্রতি বলিউড সুপারস্টারের সংস্পর্শে এসেছিল নাগা, যে ডিভোর্স বিশেষজ্ঞ হিসেবেই পরিচিত।’

উল্লেখ্য, সম্প্রতি স্ত্রী কিরণের সঙ্গে ডিভোর্স হয়েছে আমিরের। আর সেই কারণেই তাকে কাঠগড়ায় তুলেছেন কঙ্গনা। তার দাবি, বহু নারীরই জীবন নষ্ট করেছেন আমির! এবার নাগাকেও উসকেছেন সামান্থাকে ডিভোর্স দিতে।

এদিকে, স্বামীর থেকে খোরপোষের কোনো অর্থ না নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন সামান্থা। শোনা যাচ্ছে বিচ্ছেদের জন্য খোরপোষ হিসেবে তাকে ২০০ কোটি টাকার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু সামান্থা তা নিতে রাজি হননি।

এমআই/এলএ/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]