হয়তো নায়ক বনেও যাবো একদিন : তাসকিন আহমেদ

বিনোদন প্রতিবেদক
বিনোদন প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০২:৫৮ পিএম, ০৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ | আপডেট: ০৪:৪৯ পিএম, ০৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

রাজধানীর তেজগাঁওয়ে কোক স্টুডিও। ভেতরে যেতেই দেখা গেল চলছে লাইট ক্যামেরার অ্যাকশন। হঠাৎ সেটে উপস্থিত বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের ডানহাতি পেসার তাসকিন আহমেদ। ইয়ামাহা ব্র্যাণ্ডের শুভেচ্ছাদূত তাসকিন এখানে মাহমুদ মাহিনের পরিচালনায় ইয়ামাহা মটরসাইকেলের একটি বিজ্ঞাপনে অংশ নিয়েছেন। শনিবার কাজের ফাঁকে জাগো নিউজের বিনোদন বিভাগের মুখোমুখি হলেন তিনি। তার সাক্ষাৎকার নিয়েছেন ইমরুল নূর-

জাগো নিউজ : কেমন আছেন?
তাসকিন : আলহামদুলিল্লাহ, অনেক ভাল আছি।

জাগো নিউজ : অনেকগুলো পণ্যের মডেল হিসেবে কাজ করেছেন বিজ্ঞাপনে। অভিনয় করতে কেমন লাগে?
তাসকিন : ভালই লাগে। প্রথমে একটু আনইজি লাগতো। এখন কমফোর্টেবল লাগে। তাছাড়া অভিনয়টা তো আমাদের প্রফেশন না। খেলাধূলাটাই আমাদের কাছে সব। তাই আমাদের জন্য স্ক্রিপ্টটাও ওরকমভাবে করে দেওয়া হয় যাতে অতো ঝামেলা পোহাতে না হয়। আমি আমার মতো করে চেষ্টা করি ভালো কিছু করার।

জাগো নিউজ : ইয়ামাহা ব্র্যাণ্ডের শুভেচ্ছাদূত হওয়া প্রসঙ্গে কিছু বলুন....
তাসকিন : ইয়ামাহা'র ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর হিসেবে কাজ করছি। চেষ্টা করি খেলার ফাঁকে ওদের কাজগুলোতে সময় দেওয়ার। বেশ ভালোই লাগে কাজ করতে। আজকের কাজটা ইয়ামাহা মটরসাইকেলের টিভিসির। পাবলিক অ্যাওয়ারনেসের বিষয় কেন্দ্রিক একটা বিজ্ঞাপন। দর্শকের ভালো লাগবে এটি।

জাগো নিউজ : আপনাকে প্রায়ই বিজ্ঞাপনে দেখা যায়। বিভিন্ন পণ্যের মডেল হিসেবেও র্যাম্প ও বিলবোর্ডে হাজির হন। খেলোয়াড়ি জীবন শেষে অভিনয়ে নিয়মিত হবার ইচ্ছে আছে?
তাসকিন : আসলে অভিনয় অনেক কঠিন একটা কাজ। হয়তো এটি আমার প্রফেশন নয় বলে কাজ করা অনেকটা টাফ মনে হয়। তবে এনজয় করি আমি। আর নিয়মিত হবার কোনো পরিকল্পনা এখন পর্যন্ত নেই।

taskin

জাগো নিউজ : হাবিবুল বাশার, মোহাম্মদ আশরাফুলসহ আরও অনেক ক্রিকেটারই বিজ্ঞাপনের পাশাপাশি মাঝেমধ্যে নাটকেও কাজ করেছেন। আপনি দেখতেও তো অনেক সুদর্শন। নাটক-সিনেমার প্রস্তাব পেলে করবেন?
তাসকিন : হা হা হা। আপাতত না করবো। কারণ এখন অভিনয়ের ইচ্ছে নেই। বাংলাদেশের দলের হয়ে কমপক্ষে আরো দশ বছর খেলতে চাই। এরপর কি হয় জানি না। দেখা যাক কি হয়। হয়তো নায়ক বনেও যাবো একদিন! হা হা হা হা....

জাগো নিউজ : কিছুদিন আগেই তো আপনি বিয়ে করলেন। সংসার জীবন কেমন কাটছে?
তাসকিন : বেশ ভালো আছি। রাবেয়ার সাথে আমার পরিচয় স্কুল জীবন থেকে। আমার বাবা-মায়েরও ওকে বেশ পছন্দ। আর রাবেয়া আমাকে আমার খেলাধূলা বা সবকিছু নিয়ে অনেক সাপোর্ট করে। এটা আমার জন্য প্লাস পয়েন্ট। সবমিলিয়ে বেশ ভালো আছি। দোয়া করবেন আমাদের জন্য।

জাগো নিউজ : আপনার রেস্টুরেন্ট কেমন চলছে?
তাসকিন : চলছে। কিন্ত আমি ওরকম সময় দিতে পারি না। মাঝেমধ্যে যাই সেখানে। যারা মূলত বিলিয়ার্ড খেলে তারাই সেখানে যায়। খেলাধূলার ফাঁকে নাস্তা করার ব্যবস্থা আছে। এখানে স্ন্যাকস, স্যুপসহ নানা ধরনের খাবারই পাওয়া যায়।

জাগো নিউজ : সামনেই বাংলাদেশ টিম শ্রীলংকা যাচ্ছে। কেমন প্রস্তুতি নিচ্ছেন ওই সফরের জন্য?
তাসকিন : আমি এই সিরিজের জন্য এখনো ফিট নই। আর এখনো বলতে পারছিনা আমাকে নিয়ে কী সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। আর প্রস্ততি নিচ্ছি নিয়মিত। খেলা আমার জন্য সবকিছু। এর জন্য নিয়মিতই হার্ডওয়ার্ক করি।

জাগো নিউজ : ছোটবেলা থেকেই কি ইচ্ছা ছিল ক্রিকেটার হওয়ার?
তাসকিন : হ্যাঁ। ছোটবেলা থেকেই ক্রিকেট নিয়ে বেশ আগ্রহ ছিল ক্রিকেটার হবো, বাংলাদেশ দলের হয়ে দেশের জন্য খেলবো। এই জায়গাটা থেকে আমি তৃপ্ত। দেশবাসীর কাছে দোয়া চাই যেন সুস্থ থাকতে পারি, দেশ ও দলের জন্য সম্মান বয়ে আনতে পারি।

এলএ/এমএ/আইআই

বিনোদন, লাইফস্টাইল, তথ্যপ্রযুক্তি, ভ্রমণ, তারুণ্য, ক্যাম্পাস নিয়ে লিখতে পারেন আপনিও - jagofeature@gmail.com