দালালমুক্ত চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতি চাই : পপি

বিনোদন প্রতিবেদক
বিনোদন প্রতিবেদক বিনোদন প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০২:৫৭ পিএম, ২৫ অক্টোবর ২০১৯

যারাই নির্বাচিত হোক না কেন আমি স্বাগত জানাবো। শিল্পী সমিতির কাজ শিল্পীদের স্বার্থ রক্ষায় কাজ করা। আমরা দালালমুক্ত শিল্পী সমিতি চাই। সমিতি যেন সবদিক থেকে দালালমুক্ত থাকে।

শুক্রবার চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচনে ভোট দিতে এসে কথাগুলো বলছিলেন ঢাকাই চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় অভিনেত্রী পপি। দুপুর ১টা ৩০ মিনিটে এফডিসিতে সাংবাদিকদের সাথে কথা বলেন তিনি। কঠোর নিরাপত্তার মধ্যে এ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে

পপি বলেন, ‘আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর নিরাপত্তা দেয়ার আমি সমর্থন জানাই। তারাও কষ্ট করছে যাতে করে পরিবেশটা সুন্দর থাকে। তবে নিরাপত্তা যেন মাত্রাতিরিক্ত না হয়ে যায় সেদিকেও খেয়াল রাখতে হবে। কারণ এখানে বাইরের কেউ নেই, আমরা আমরাই। সবাই এক পরিবার।’

যারা নির্বাচিত হবেন তাদের উদ্দেশে কী বার্তা থাকবে- এমন প্রশ্ন করলে পপি বলেন, ‘নির্বাচিতরা হবে সকল শিল্পীদের প্রতিনিধি। তাদের মাধ্যমে সব ধরনের শিল্পীদের আশার সঞ্চার হবে। এখানে কে ছোট, বড়, ধনী, গরিব, দুঃস্থ এসব ভাবা যাবে না। শিল্পী শিল্পীই। এখন একজন শিল্পীকে আপনি সাহায্য করে সেটা আবার ফেসবুকে ছবিসহ পোস্ট করবেন তাহলে শিল্পীর কদরটা কোথায় গেল? আমি চাইবো এসব বিষয় যেন পরিহার করা হয়।’

নতুন নির্বাচিতদের পাশে থেকে কাজ করবেন জানিয়ে পপি বলেন, ‘আমার কারো প্রতি রাগ বা ক্ষোভ নেই। সবাই আমার কাছে সমান। নির্বাচিতদের পাশে থেকে কাজ করতে চাই। হয়তো আমি অপরাধ মানতে পারি না, সত্যটা মুখ ফসকে বলে ফেলি, এটা অনেকের কাছে সমস্যার কারণ হয়ে থাকতে পারে।’

আজ সকাল ৯টা থেকে শুরু হওয়া ভোট চলবে বিকেল ৫টা পর্যন্ত। এবারের নির্বাচনে ৪৪৯ জন ভোটার। এবারের নির্বাচনে প্রথমবারের মতো নারী প্রার্থী হিসেবে সভাপতি পদে লড়ছেন জনপ্রিয় চিত্রনায়িকা মৌসুমী।

এদিকে সভাপতি পদে মিশা-জায়েদ প্যানেল থেকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন মিশা সওদাগর। বর্তমান শিল্পী সমিতির সভাপতিও মিশা সওদাগর। সহ-সভাপতি পদে প্রার্থী হয়েছেন মনোয়ার হোসেন ডিপজল, রুবেল, নানা শাহ। সাধারণ সম্পাদক পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন বর্তমান কমিটির সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খান এবং ইলিয়াস কোবরা।

সাংগঠনিক পদে প্রার্থী হয়েছেন সুব্রত। তার বিপরীতে কোনো প্রার্থী নেই। আন্তর্জাতিক পদে প্রার্থী হয়েছেন নূর মোহাম্মদ খালেদ আহমেদ, নায়ক ইমন। দপ্তর ও প্রচার সম্পাদক পদে প্রার্থী হয়েছেন জ্যাকি আলমগীর।

সংস্কৃতি ও ক্রীড়া সম্পাদক পড়ে লড়ছেন দুইজন। তারা হলেন জাকির হোসেন ও ডন। কোষাধ্যক্ষ পদে অভিনেতা ফরহাদ নির্বাচন করছেন একা। তার প্রতিদ্বন্দ্বী কোনো প্রার্থী নেই।

কার্যকরী সদস্য পদ রয়েছে ১১টি। এই পদগুলোর জন্য প্রার্থী হয়েছেন ১৪ জন। তারা হলেন - রোজিনা, অঞ্জনা, অরুণা বিশ্বাস, বাপ্পারাজ, আলীরাজ, আফজাল শরীফ, রঞ্জিতা, আসিফ ইকবাল, অলেকজান্ডার বো, জয় চৌধুরী, নাসরিন, মারুফ আকিব, শামীম খান ও জেসমিন।

শিল্পীদের এ নির্বাচনে প্রধান নির্বাচন কমিশনার হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন ইলিয়াস কাঞ্চন।

এমএবি/এনএফ/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]