শোক দিবসে ফ্রি সেবা দেবেন বিএসএমএমইউয়ের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৭:২১ পিএম, ১২ আগস্ট ২০২০

 

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্মৃতির প্রতি সম্মান প্রর্দশনে আগামী ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালের বহির্বিভাগে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা বিনামূল্যে চিকিৎসাসেবা প্রদান করবেন।

এ দিন সকাল সাড়ে ৮টা থেকে দুপুর দেড়টা পর্যন্ত এ সেবা প্রদান করা হবে। এছাড়া পরীক্ষা-নিরীক্ষা সেবাও বিনামূল্যে প্রদান করা হবে। এসব সেবার মধ্যে রয়েছে- ইউরিন আর/এম/ই, সিভিসি, পিবিএফ, ইউরিন ফর সি/এস, উইডাল টেস্ট, সিআরপি, আরবিএস, এস. ক্রিয়েটিনিন, এস. এএলটি, ব্লাড গ্রুপিং, এইচবিএসএজি, এন্টি-এইচসিভিসি, এক্সরে চেস্ট, আল্ট্রাসনোগ্রাম অব হোল এবডোমেন।

বুধবার (১২ আগস্ট) ডা. মিল্টন হলে বিএসএমএমইউ উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়ার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিববুর রহমানের ৪৫তম শাহাদাত বার্ষিকীতে জাতীয় শোক দিবস পালনের কর্মসূচি চূড়ান্তকরণ সংক্রান্ত স্টিয়ারিং কমিটির সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। কর্মসূচি বাস্তবায়নের জন্য বিশেষ করে বিনামূল্যে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসাসেবা প্রদান ও উল্লিখিত পরীক্ষা-নিরীক্ষাসমূহ বিনামূল্যে প্রদানের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্ট সকল বিভাগীয় চেয়ারম্যান ও পরিচালককে (হাসপাতাল) বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনের পক্ষ থেকে নির্দেশ প্রদান করা হয়েছে।

কমসূচির মধ্যে রয়েছে সকাল ৮টা ১৫ মিনিটে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিতকরণ এবং বঙ্গবন্ধুর ম্যুরালে পুস্পস্তবক অর্পণ। অন্যান্য কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের ডা. মিল্টন হলে প্লাজমা কালেকশনের জন্য ডোনার সিলেকশন, ধানমন্ডি ৩২ নম্বর রোডের বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুস্পস্তবক অর্পণ, বনানী কবরস্থানে পুস্পস্তবক অর্পণ, বাদ জোহর বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মসজিদে মিলাদ মাহফিল, দোয়া ও তবারক বিতরণ এবং বাদ ফজর থেকে জোহর পর্যন্ত কেন্দ্রীয় মসজিদে কোরআনখানি। এছাড়া রয়েছে অন্যান্য ধর্মাবলম্বীদের প্রার্থনা অনুষ্ঠানের ব্যবস্থা।

উল্লেখ্য, জাতীয় শোক দিবসে বিশ্ববিদ্যালয়ের হাসপাতাল (ইনডোর), ফিভার ক্লিনিক, পিসিআর ল্যাব ও জরুরি বিভাগ প্রচলিত নিয়মে খোলা থাকবে। তবে এ বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল ক্লাস, অফিস ও বৈকালিক স্পেশালাইজড কনসালটেশন সার্ভিস বন্ধ থাকবে।

এমইউ/এমএসএইচ/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]