দ. কোরিয়াকে ‘মূল্যবান উপহার’ দেয়ার অঙ্গীকার উত্তরের

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৮:৩১ পিএম, ০৯ জানুয়ারি ২০১৮ | আপডেট: ০৮:৪৪ পিএম, ০৯ জানুয়ারি ২০১৮

সীমান্ত উত্তেজনা কমিয়ে আনতে সামরিক আলোচনায় সম্মত হয়েছে উত্তর ও দক্ষিণ কোরিয়ার কর্মকর্তারা। দুই বছরের মধ্যে প্রথমবারের মতো উত্তর ও দক্ষিণের কর্মকর্তা উচ্চ-পর্যায়ের দ্বিপাক্ষিক বিরল এক বৈঠকে বসে উত্তেজনা কমিয়ে আনতে এ ঐকমত্যে পৌঁছেছেন।

একই সঙ্গে আগামী ফেব্রুয়ারিতে দক্ষিণে অনুষ্ঠেয় শীতকালীন অলিম্পিকে প্রতিনিধি পাঠাতেও রাজি হয়েছে উ. কোরিয়া। দক্ষিণের সরকার বলছে, উভয় দেশের সামরিক বাহিনীর মধ্যে আবারো হটলাইন চালুর সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। দুই বছর আগে উত্তর এবং দক্ষিণের এ হটলাইন বন্ধ হয়ে যায়।

তবে পারমাণবিক নিরস্ত্রীকরণের ব্যাপারে উত্তরের মনোভাব ইতিবাচক নয় বলে জানিয়েছেন সিউলের কর্মকর্তারা। বৈঠকের একদিন পর উভয় কোরিয়া এক যৌথ বিবৃতি প্রকাশ করেছে। এতে সীমান্তের সামরিক উত্তেজনা কমিয়ে আনতে সেনাবাহিনীর উচ্চ পর্যায়ে আলোচনা করতে ঐকমত্যে পৌঁছানো হয়েছে বলে নিশ্চিত করা হয়েছে।

সম্পর্ক উন্নয়নে অজ্ঞাত স্থানে অারো উচ্চ পর্যায়ের বৈঠক হয়েছে বলেও বিবৃতিতে জানানো হয়েছে। দক্ষিণ কোরিয়ার সংবাদসংস্থা ইয়োনহা নিউজ অ্যাজেন্সি এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

উত্তেজনা বাড়াতে এমন কাজ করা থেকে পিয়ংইয়ংয়ের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে সিউল। তবে সিউলের এ আহ্বানের জবাবে পিয়ংইয়ং বলছে, কোরীয় দ্বীপে শান্তিপূর্ণ পরিবেশের নিশ্চয়তার প্রয়োজন রয়েছে।

বৈঠকের উদ্বোধনী ভাষণে উত্তর কোরিয়ার প্রতিনিধি দলের প্রধান রি সন ওন মোটামুটি নিরপেক্ষ ছিলেন। নতুন বছরে এ আলোচনা ‘ভালো উপহার’ বয়ে আনবে বলে প্রত্যাশা করেন উত্তরের এ কর্মকর্তা।

সূত্র : বিবিসি।

এসআইএস/আইআই

আপনার মতামত লিখুন :