জরুরি অবস্থার মধ্যেই সরকারি চাকরিজীবীদের বেতন বাড়াল মালদ্বীপ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৮:৪৬ পিএম, ০৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

রাজনৈতিক অনিশ্চয়তা ও জরুরি অবস্থার মধ্যে মালদ্বীপের সিভিল সার্ভিস কমিশনের অধীনে কর্মরত সরকারি চাকরিজীবীদের বেতন বাড়ালো দেশটির সরকার। রাজবন্দিদের মুক্তি দিতে দেশটির সুপ্রিম কোর্টের এক আদেশের জেরে ব্যাপক রাজনৈতিক অস্থিতিশীলতা তৈরি হয়েছে মালদ্বীপে। এর মধ্যেই বুধবার এক বিবৃতিতে সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতন বাড়ানো ঘোষণা দিয়েছে দেশটির প্রেসিডেন্ট আব্দুল্লা ইয়ামিন নেতৃত্বাধীন ক্ষমতাসীন সরকার।

মালদ্বীপের গণতান্ত্রিকভাবে নির্বাচিত প্রথম প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ নাশিদসহ বিরোধীদলীয় ৯ সংসদ সদস্যকে সন্ত্রাসবাদের মামলা থেকে অব্যাহতি দিয়ে সুপ্রিম কোর্ট এক আদেশ জারির পর পর্যটন স্বর্গ হিসেবে পরিচিত দ্বীপ রাষ্ট্রটিতে চরম রাজনৈতিক সঙ্কটের শুরু হয় গত বৃহস্পতিবার।

বিরোধীদলীয় নেতাদের মুক্তি দিতে ও বরখাস্তকৃত ১২ সংসদ সদস্যকে স্বপদে বহাল রাখতে সুপ্রিম কোর্ট বৃহস্পতিবার যে রায় দিয়েছেন তা বাস্তবায়নে অস্বীকৃতি জানিয়েছেন বর্তমান প্রেসিডেন্ট আব্দুল্লা ইয়ামিন।

সোমবার দেশটিতে জরুরি অবস্থা জারির পর সুপ্রিম কোর্ট অবরুদ্ধ করে রাখতে নিরাপত্তা বাহিনীকে নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। জরুরি অবস্থা জারির কয়েক ঘণ্টার মধ্যে মালদ্বীপের প্রধান বিচারপতি আব্দুল্লাহ সাইদ ও জ্যেষ্ঠ বিচারপতি আবু হামিদকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

গ্রেফতার দুই বিচারপতির বিরুদ্ধে কয়েক কোটি মালদ্বীপিয়ান রূপি ঘুষ গ্রহণের প্রমাণ পাওয়া গেছে বলে বুধবার দেশটির পুলিশ জানিয়েছে। পুলিশ বলছে, সাবেক প্রেসিডেন্ট মামুন আব্দুল গাইয়ুমসহ এ দুই বিচারপতি সরকার পতনের নীল নকশা করেছিল। তাদের বিরুদ্ধে তদন্ত চলছে।

এক বিবৃতিতে, মালদ্বীপ সিভিল সার্ভিস কমিশন বলছে, সরকারি টেকনিক্যাল খাতের কর্মকর্তা-কর্মচারী ও অফিস সহকারীদের বেতন বাড়ানো হয়েছে। ১ ফেব্রুয়ারি থেকে এ বেতন বৃদ্ধি কার্যকর হয়েছে।

সূত্র : দ্য সান।

এসআইএস/এমএস