ডিজিটালের হাওয়ায় উধাও হালখাতা-নববর্ষের শুভেচ্ছা কার্ড

মনিকা সাহা
মনিকা সাহা , কলকাতা প্রতিনিধি
প্রকাশিত: ১১:০০ এএম, ১১ এপ্রিল ২০১৮ | আপডেট: ১১:২৩ এএম, ১১ এপ্রিল ২০১৮
ডিজিটালের হাওয়ায় উধাও হালখাতা-নববর্ষের শুভেচ্ছা কার্ড

ডিজিটাল যুগের দাপাদাপিতে দিন দিন কমে যাচ্ছে হালখাতা ও বাংলা নববর্ষ কার্ডের চাহিদা। এমনকি বড় বড় শপিং মল থেকেও উধাও হয়ে গেল বাংলা নববর্ষের জন্য শুভেচ্ছা জানানোর কার্ড।

সামনে পয়লা বৈশাখ। বাঙালিদের একটি বিশেষ উৎসব ও বাংলায় নতুন বছরের শুরু। বাঙালি ব্যাবসায়ীরা প্রতি বছর এই বিশেষ দিনটিতে পুরনো সব হিসেব-নিকেশ চুকিয়ে নতুন করে খাতা খোলেন। কিন্তু এই হালখাতার জন্য যেসব দোকানে কার্ডের অর্ডার হতো সেইসব কার্ড বিক্রেতাদের দোকানে নেই কার্ডের অর্ডার।

অন্যদিকে হালখাতার কার্ডের মতো বাংলা নববর্ষের শুভেচ্ছা কার্ডেরও একই হাল। আগে এই দিনে শুভেচ্ছা জানানোর জন্য প্রতিটি কার্ডের দোকানে রীতিমত লাইন দিয়ে কিনতে হতো শুভেচ্ছা কার্ড। কিন্তু ডিজিটাল যুগে এই মুহুর্তে দাঁড়িয়ে বাংলা সংস্কৃতি থেকে প্রায় উঠেই গেলো এই কার্ডের মাধ্যমে শুভেচ্ছা বিনিময় প্রথা। এখন সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে শুভেচ্ছা আদান-প্রদান চলতে থাকে।

কলকাতা সল্টলেক সিটি সেন্টারে আর্চিসের মতো বড় কার্ড গ্যালারিতেও বাংলা নববর্ষের শুভেচ্ছা কার্ডের দেখা নেই। সেখানে নানা রকম কার্ডের সম্ভার থাকলেও নববর্ষের শুভেচ্ছা কার্ড নেই। সল্টলেক সিটি সেন্টারের মতো কলকাতা ইএম বাইপাসের মানিস্কোয়ার, নিউটাউনের অ্যাক্সিস মলেরও একই দৃশ্য। সেখানেও বাংলা নববর্ষের কার্ড উধাও।

কলকাতা কলেজ স্ট্রিটের কার্ড ব্যবসায়ীরা এই প্রসঙ্গে জানান, এই বছর বাংলা নববর্ষ কার্ডের একদমই বিক্রি নেই। আর সেই সঙ্গে বিয়ের কার্ডের অর্ডারও দিনে দিনে কমে যাচ্ছে। এখন কার্ডের ছবি তুলে হোয়াটসঅ্যাপে পাঠিয়ে দেয়া হয়। ফলে ক্রমাগত কার্ডের চাহিদায় কমতি হচ্ছে।

আর এই কম চাহিদার পেছনে সব কিছু ডিজিটাল হওয়াটাকেই দায়ী করছেন ব্যবসায়ীরা।

এসআর/জেআইএম