হ্যারি-মেগানের বিয়েতে খরচ কত?

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ১২:৩৮ পিএম, ১৮ মে ২০১৮

আজকের দিনটা পেরুলেই প্রিন্স হ্যারি ও মেগান মার্কেলের বিয়ে। রাজকীয় এই বিয়ের খরচ কত হতে পারে? সিএনএনের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, খুব সহজেই এ খরচ ১ মিলিয়ন পাউন্ড হয়ে যেতে পারে; বাংলাদেশি টাকায় যা ১২ কোটি টাকার কাছাকাছি।

এরপর বিয়ের মূল খরচটা আসলে বাড়িয়ে দেবে পুরো অনুষ্ঠানের নিরাপত্তা ও ব্রিটিশ সেনাবাহিনীর একটি কুচকাওয়াজারে অনুষ্ঠান।

কিন্তু এই টাকা আসছে কোথা থেকে? যুক্তরাজ্যে এটা বেশ সংবেদনশীল একটা বিষয়। কারণ, শেষ পর্যন্ত এই খরচের বড় একটা অংশ করদাতাদের বইতে হবে।

উিইন্ডসরে প্রিন্স হ্যারি ও মেগান মার্কেলের বিয়ের পুরো নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকবে টেমস ভ্যালি পুলিশ। এর অর্থ হলো সেখানে যে পুলিশ কর্মকর্তারা দায়িত্ পালন করবেন তাদের তার জন্য পারিশ্রমিক দিতে হবে।

প্রেস অ্যাসোসিয়েশনের তথ্য অনুযায়ী, ২০১১ সালে প্রিন্স উইলিয়াম ও কেট মিডলটনের বিয়ের সময় নিরাপত্তা খাতে খরচ হয়েছিল প্রায় ৬.৪ মিলিয়ন পাউন্ড; বাংলাদেশি টাকায় যা ৭৪ কোটি টাকার কাছাকাছি।

ওই খরচের মধ্যে ৩.৬ মিলিয়ন পাউন্ড পুলিশকে দিতে হয়েছিল শুধু ওভারটাইমের জন্য, যা শেষ পর্যন্ত আসলে যুক্তরাজ্য সরকার দিয়েছিল।

তবে এবার কত খরচ হবে সে বিষয়ে সরাসারি কিছু বলতে রাজি হননি পুলিশের একজন মুখপাত্র।

তবে করদাতাদের জন্য ভালো খবর হলো এবারের রাজকীয় এই বিয়ের খরচ গত বিয়ের চেয়ে কম হবে বলে আশা করা হচ্ছে। কারণ, এবারে বিয়ের অনুষ্ঠান হচ্ছে লন্ডনের বাইরে, যার অর্থ হলো এতে কম মানুষ থাকবে ও আনুষাঙ্গিক খরচও কম হবে।

ব্রিটিশ রাজতন্ত্রবিরোধী গ্রুপ রিপাবলিক বলছে, যেই বিয়ে করুক না কেন, সাধারণ করদাতাদের কেন তার খরচ দিতে হবে।

সংগঠনটি আরও বলছে, জাতীয় কোনো অনুষ্ঠানের আদলে এই রাজকীয় বিয়ে আসলে বেসরকারি, ব্যক্তিগত অনুষ্ঠান। বিয়ের মাধ্যমে রাজপরিবার গণমাধ্যমগুলোকে ব্যবহার করে আর শেষ পর্যন্ত এ বিয়ের খরচের বড় একটা অংশ করদাতাদের বইতে হয়।

সরকার যাতে হ্যারি ও মেগানের বিয়েতে কোনো খরচ না করে তার আর্জি জানিয়ে ৩২ হাজার স্বাক্ষর সম্বলিত একটি পিটিশনও দায়ের করেছে রিপাবলিক।

যুক্তরাজ্য সরকার বিয়েতে খরচের বিষয়ে কোনো তথ্য দেয়নি। সরকারের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, অনুষ্ঠানের আগে তারা কোনো তথ্য দেবে না।

অনুষ্ঠানের দিন উইন্ডসরের সৌন্দর্য বর্ধনের জন্য বরাদ্দ দেয়া হয়েছে ২.৬ মিলিয়ন পাউন্ড।

এসব ছাড়া বিয়ের মূল অনুষ্ঠানের খরচ তো থেকেই গেল। কেনিংসটন প্যালেস এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, বিয়ের একেবারে মূল খরচগুলোর ব্যয় রাজপরিবার বহন করবে, যেমন: গির্জার খরচ, মিউজিক, ফুল, সাজসজ্জা এবং অর্ভ্যর্থনা।

রাণী এলিজাবেথ দুপুরের অনুষ্ঠানের আয়োজক এবং হ্যারির বাবা প্রিন্স চার্লস সন্ধ্যার অনুষ্ঠানের আয়োজক হিসেবে রয়েছেন।

তবে দুই অনুষ্ঠানই উইন্ডসর রাজপ্রাসাদেই আয়োজন করা হচ্ছে; যার অর্থ হলো এসবের জন্য কোনো সেন্টার ভাড়া লাগবে না।

সিএনএন।

এনএফ/এমএস

আপনার মতামত লিখুন :