ট্রেনের যাত্রীদের জন্য কনডমের ব্যবস্থা করছে ভারত

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০২:৪৪ পিএম, ২৬ মে ২০১৮ | আপডেট: ০২:৫৪ পিএম, ২৬ মে ২০১৮

ভারতে নতুন টয়লেট নীতির অনুমোদন দেয়া হচ্ছে। নতুন এ নীতির আওতায় এখন থেকে রেলওয়ে স্টেশনের ভেতরে এবং বাইরে-সব জায়গাতেই স্যানিটারি ন্যাপকিন এবং কনডম পাওয়া যাবে। যাত্রীরা ছাড়াও রেলওয়ে সংলগ্ন আশপাশের এলাকার বাসিন্দা এমনকি পরিদর্শনে আসা ব্যক্তিরা সম্পূর্ণ বিনা খরেচে এসব সুবিধা পাবেন। সম্প্রতি ভারতের রেলওয়ে বোর্ড এ নীতির অনুমোদন দিয়েছে। খবর হিন্দুস্তান টাইমস।

নতুন টয়লেট নীতিতে বলা হয়, রেলওয়ে স্টেশনের ভেতরে এবং বাইরে নির্দিষ্ট পয়ঃনিষ্কাশন ব্যবস্থা না থাকায় স্টেশনের পার্শ্ববর্তী এলাকার বাসিন্দারা (বিশেষ করে পাশ্ববর্তী বস্তি ও গ্রামগুলোর লোকজন) উন্মুক্ত জায়গায় টয়লেট করেন। এমনকি অনেকে রেলওয়ে চত্বরের মধ্যই প্রসাব করেন-যা অস্বাস্থ্যকর। আর এ কারণেই স্বাস্থ্যজনিত নানা সমস্যা দেখা দিচ্ছে।

এসব বিষয় মাথায় রেখে নতুন পলিসির আওতায়, রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ রেলওয়ে চত্বরের মধ্যেই নারী ও পুরুষদের জন্য আলাদা টয়লেট স্থাপন করবে। আর এসব করা হবে মানুষের মাঝে সচেতনতা বাড়ানোর জন্য যাতে করে তারা মাসিক সংক্রান্ত স্বাস্থ্যবিধি ও গর্ভনিরোধক বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে পারে।

নতুন পলিসি অনুযায়ী, রেলওয়ে সংলগ্ন এলাকায় ছোট-বড় প্রতিটি দোকানে নারীদের জন্য ন্যাপকিন ও পুরুষদের জন্য কনডম থাকবে। ইনসিনেরেটরসহ (এক ধরনের দহনযন্ত্র যা অপ্রয়োজনীয় জিনিস পোড়ানোর কাজে ব্যবহৃত হয়) নারীদের ন্যাপকিন প্রদান করা হবে। পুরুষ ও নারীদের পাশাপাশি প্রতিবন্ধীরা এ সুবিধার আওতায় আসবেন। ভারতীয় ও পাশ্চাত্য দুই ঢঙের কমোডই রাখতে হবে এসব টয়লেটে।

নীতিতে আরও বলা হয়, প্রায় সাড়ে ৮ হাজার রেলওয়ে স্টেশনে এসব সুবিধা দিতে যে খরচ হবে তা সিএসআর ফান্ড থেকে মেটানো হবে। সিএসআর ফান্ডের বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে যা আয় হবে, তা দিয়ে এগুলোর রক্ষণাবেক্ষণ কাজে ব্যয় করা হবে।

এসআর/জেআইএম