সিঙ্গাপুরের পথে কিম-ট্রাম্প

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০১:২৭ পিএম, ১০ জুন ২০১৮

ঐতিহাসিক সম্মেলনে অংশ নিতে উত্তর কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট কিম জং উন ও মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প আর কয়েক ঘণ্টার মধ্যে সিঙ্গাপুরে পৌঁছাবেন। কানাডায় জি-৭ বৈঠক শেষে ইতোমধ্যে সিঙ্গাপুরের পথে যাত্রা শুরু করেছে মার্কিন প্রেসিডেন্টকে বহনকারী এয়ারফোর্স-ওয়ান বিমান।

রোববার সিঙ্গাপুরের স্থানীয় সময় রাত ৮টা ৩৫ মিনিটে সেখানে পৌঁছাবে মার্কিন প্রতিনিধি দল। পরের দিন সোমবার সিঙ্গাপুরের প্রধানমন্ত্রী লি সেইন লুংয়ের সঙ্গে বৈঠক করবেন ট্রাম্প। হোয়াইট হাউস বলছে, সিঙ্গাপুরে পৌঁছানোর পর শাংগ্রি লা হোটেলে যাবেন ট্রাম্প।

এয়ার ফোর্স ওয়ানের বিমানে ট্রাম্পের সঙ্গে রয়েছেন মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রী মাইক পম্পেও, জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জন বোল্টন, হোয়াইট হাউসের চিফ অব স্টাফ জন কেলি ও হোয়াইট হাউসের প্রেস সেক্রেটারি সারাহ স্যান্ডার্স।

এদিকে, রোববার সকালের দিকে কিমকে বহনকারী এক দশক আগের কোরীয় পুরনো বিমান আইএল-৬২ সিঙ্গাপুরের উদ্দেশে পিয়ংইয়ং ছেড়েছে। দক্ষিণ কোরিয়ার সংবাদ সংস্থা ইয়োনহাপ এ তথ্য দিলেও এ ব্যাপারে বিস্তারিত কোনো তথ্য দেয়নি।

তবে উত্তর কোরিয়ার প্রেসিডেন্টকে বহনকারী বিমানটি রোববার দুপুরের দিকে সিঙ্গাপুরের চাঙ্গি বিমানবন্দরে পৌঁছাবে বলে প্রত্যাশা করা হচ্ছে।

অন্যদিকে, উত্তর কোরিয়ার একটি ফ্লাইট শনিবার সিঙ্গাপুরে পৌঁছানোর পর গুঞ্জন ছড়িয়ে পড়েছে যে, কিমের ঘনিষ্ঠ সহযোগী কিম চ্যাং সনসহ উত্তর কোরিয়ার অগ্রসর একটি দল ওই ফ্লাইটে করে সিঙ্গাপুরে পৌঁছেছেন।

সম্প্রতি চীন সফর করেছেন কিম জং উন। ওইসময় কিমকে বহনকারী বিমানের সঙ্গে আইএল-৭৬ ফ্লাইটের একটি বিমানও ছিল। রোববার সকালের দিকে আইএল-৭৬ ফ্লাইট সিঙ্গাপুরের উদ্দেশে যাত্রা শুরু করেছে।

চিরবৈরী দুই রাষ্ট্র প্রধানের সম্মেলনের আগে কোরীয় উপদ্বীপে শান্তিপূর্ণ পরিবেশ বিরাজ করছে। কয়েক দশক ধরে পারমাণবিক অস্ত্র তৈরি করে আসছে উত্তর কোরিয়া। গত বছর দেশটি শক্তিশালী হাইড্রোজেন বোমার পরীক্ষা চালায়; যা যুক্তরাষ্ট্রের প্রাণকেন্দ্রে আঘাত হানতে সক্ষম বলে হুমকি দেয় পিয়ংইয়ং।

অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা আরোপসহ যুক্তরাষ্ট্রের সর্বোচ্চ চাপপ্রয়োগের মাঝেও পরপর বেশ কয়েকটি পারমাণবিক বোমার পরীক্ষা চালায় উত্তর কোরিয়া। এমনকি দেশটিতে সামরিক হস্তক্ষেপের হুমকি দেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট।

তবে নতুন বছরের এক ভাষণে শান্তি বার্তা শোনান উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উন। চলতি বছরের শুরুর দিকে দেয়া ওই ভাষণে তিনি বলেন, উত্তর কোরিয়া কাঙ্ক্ষিত পারমাণবিক অস্ত্র মজুদের লক্ষ্যে পৌঁছেছে। এখন দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নের দিকে মনযোগ দেয়া হবে। ওই সময়ই তিনি দক্ষিণ কোরিয়ার সঙ্গে একটি বৈঠক অনুষ্ঠানের ইঙ্গিত দেন।

পরে দুই কোরিয়ার কর্মকর্তারা বৈঠকে বসার পর গত মার্চে দক্ষিণ কোরিয়ার কর্মকর্তারা জানান, ট্রাম্পের সঙ্গে বৈঠক করতে আগ্রহী কিম জং উন। কয়েক সপ্তাহের আলোচনার পর ১২ জুন কিম ও ট্রাম্প বৈঠকে মিলিত হবেন বলে হোয়াইট হাউসের পক্ষ থেকে জানানো হয়।

সূত্র : রয়টার্স।

এসআইএস/জেআইএম

টাইমলাইন  

আপনার মতামত লিখুন :