কানাডায় মদ-সিগারেটে মেতেছেন সেই সৌদি তরুণী

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৪:০৩ পিএম, ১৮ জানুয়ারি ২০১৯

অনেক নাটকীয়তার পর কানাডায় আশ্রয়প্রাপ্ত সেই সৌদি তরুণী মদ-সিগারেটের মাধ্যমে নিজের বন্দিদশা থেকে মুক্তির ঘটনাকে উদযাপন করছেন। কানাডায় নতুন আবাসস্থল থেকে রেড ওয়াইন ও জ্বলন্ত সিগারেটের ছবি ফাঁস হয়েছে। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম ডেইলি মেইলের এক প্রতিবেদনে এমন তথ্য জানানো হয়েছে।

গত সপ্তাহে বিশ্ব গণমাধ্যমের অন্যতম শিরোনামে পরিণত হন রক্ষণশীল পরিবারের শাসন বেড়ি ভেঙে পালিয়ে ব্যাংকক বিমানবন্দরে অবস্থান নেওয়া সৌদি তরুণী রাহাফ মোহাম্মদ আল-কুনুন। কানাডায় শরণার্থী হয়ে আশ্রয় পাওয়ার পর নামের শেষে থাকা আল-কুনুন অংশটি বাদ দেন তিনি।

আঠারো বছর বয়সী ওই তরুণী দেশে ফেরত যেতে অস্বীকৃতি জানিয়ে থাইল্যান্ড হয়ে অস্ট্রেলিয়ায় পালানোর চেষ্টা করেন। পরে তাকে থাইল্যান্ডের একটি বিমানবন্দরে আটক করা হয়। তার পরিবার তাকে ফিরিয়ে নিতে চাইলেও সে তাতে অসম্মতি দেন। তার দাবি, সৌদিতে ফিরিয়ে দেয়া হলে তার রক্ষণশীল পরিবার তাকে মেরে ফেলতে পারে।

বিমানবন্দরে আটক ওই তরুণীকে পরে জাতিসংঘের শরাণার্থী বিষয়ক সংস্থার কাছে হস্তান্তর করে থাইল্যান্ড কর্তৃপক্ষ। সংস্থাটির সহায়তায় তাকে কানাডায় পাঠানো হয়। সেখানে ওই তরুণী তার প্রথম সপ্তাহের দিনযাপন করছেন। আর সেখানে গিয়ে তিনি এমন কাজ করছেন এর আগে তার রক্ষণশীল দেশে সেগুলো করার সুযোগ পেত না সে।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে রাহাফ কিছু ছবি শেয়ার করেছেন। ছবিতে একটি রেড ওয়াইনের বোতল ও জ্বলন্ত সিগারেট দেখা যায়। তিনি এসবের মাধ্যমে তার বন্দিদশা থেকে মুক্তির মুহূর্ত উদযাপন করছেন। উল্লেখ্য, কানাডায় ১৮ বছর বয়সী যে কোনো ব্যক্তির জন্য গাঁজা খাওয়ার বৈধতা রয়েছে।

পারিবারিক সফরে কুয়েতে থাকা ওই তরুণী গত ৪ জানুয়ারি সেখান থেকে পালিয়ে অস্ট্রেলিয়ার উদ্দেশে ব্যাংকক বিমানবন্দরে পৌঁছান। কিন্তু ব্যাংকক বিমানবন্দরে সৌদি আরবের একজন কূটনীতিক তার সঙ্গে দেখা করে তার পাসপোর্ট জব্দ করেন বলে দাবি রাহাফের।

তিনি আশঙ্কা করেন জোর করে তাকে কুয়েতে ফেরত পাঠানো হতে পারে। তাই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নিজের অবস্থার কথা বিশ্ববাসীকে জানান। পরে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সহযোগিতায় তাকে কানাডায় পাঠানো হয়।

এসএ/পিআর