তিমির পেটে ৪০ কেজি প্লাস্টিক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ১০:০১ এএম, ১৯ মার্চ ২০১৯

ক্ষুধার্ত অথচ পেট ভরা প্লাস্টিকে। সেই পেট ভর্তি প্লাস্টিকের বর্জ্যই প্রাণঘাতী হয়ে উঠল তিমিটির। এমন ঘটনা ঘটেছে ফিলিপাইনের উপকূলে। দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার এই দেশটির সমুদ্র সংলগ্ন অংশ প্লাস্টিকের প্রভাবে ভয়াবহ দূষণের শিকার বলে জানিয়েছেন পরিবেশবিদরা। ক্রমশ বিষাক্ত হয়ে উঠেছে সমুদ্রের পানি। এর প্রভাব পড়ছে সামুদ্রিক জীববৈচিত্রে। সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে তিমি ও কচ্ছপ।

ফিলিপাইন সরকারের আঞ্চলিক মৎস্য কেন্দ্র জানিয়েছে, শনিবার দেশের দক্ষিণ প্রান্তের কমপোসতেলা ভ্যালিতে মারা যায় তিমিটি। শুক্রবার থেকেই ওই অঞ্চলে দেখা গিয়েছিল তিমিটিকে। সাঁতরানোর ক্ষমতা ছিল না। পরের দিনই শুরু হয় রক্তবমি। ক্রমশ মৃত্যুর মুখে ঢলে পড়ে সেটি।

whale-2

মৃত্যুর পরে তিমিটির পেট থেকে উদ্ধার করা হয় ৪০ কেজি প্লাস্টিক। তার মধ্যে ছিল চালের ব্যাগও। ডি বোন কালেক্টর মিউজিয়ামের পরিচালক জানিয়েছেন, এই প্রথম নয়, গত ১০ বছরে তিমি ও ডলফিন মিলিয়ে মোট ৬১টি প্রাণীর প্লাস্টিকের কারণে মৃত্যু হয়েছে। তবে এবারের ঘটনাটি সবচেয়ে ভয়াবহ। কোনও প্রাণীর পেটে এত পরিমাণে প্লাস্টিক আগে কখনও দেখা যায়নি বলে দাবি করেন তিনি।

whale-3

ফিলিপাইনে বর্জ্য ফেলার ক্ষেত্রে কঠোর আইন রয়েছে। কিন্তু পরিবেশবিদদের দাবি, তা শুধুমাত্রই খাতা-কলমেই। শুধু এই দেশেই নয়, এর পার্শ্ববর্তী দেশগুলোও ভয়ানক দূষণের শিকার। গত বছর থাইল্যান্ডেও একটি মৃত তিমির পেট থেকে উদ্ধার হয়েছিল ৮০টি প্লাস্টিকের ব্যাগ।

টিটিএন/এমকেএইচ

আপনার মতামত লিখুন :