‘নর্দমা টয়লেট পরিষ্কার করার জন্য সাংসদ নির্বাচিত হইনি’

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০১:২৪ পিএম, ২২ জুলাই ২০১৯

ভারতের মধ্যপ্রদেশের বিজেপি দলীয় সংসদ সদস্য প্রজ্ঞা ঠাকুর বিতর্কিত মন্তব্য করে আবারও সমালোচনার মুখে পড়েছেন। কিছুদিন আগে অনুষ্ঠিত দেশটির লোকসভা নির্বাচনের প্রচারণায় গিয়ে ভারতের জাতির জনক মহাত্মা গান্ধীর হত্যাকারী নাথুরাম গডসেকে ‘দেশপ্রেমিক’ আখ্যা দিয়ে ব্যাপক বিতর্কের জন্ম দিয়েছিলেন তিনি।

প্রথমবারের মতো নির্বাচনে অংশ নিয়ে বিজেপির সাংসদ বনে যাওয়া প্রজ্ঞা ঠাকুর এবার দলটির নেতাকর্মীদের উদ্দেশে বললেন, ‘তিনি নর্দমা এবং টয়লেট পরিষ্কার করার জন্য নির্বাচিত হননি।’ দলটির অনেক নেতা-কর্মী প্রজ্ঞা ঠাকুরের এই মন্তব্যকে দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির স্বচ্ছ ভারত অভিযান মিশনের উল্টো হিসেবে দেখছেন।

আরও পড়ুন : উ. কোরিয়ায় নির্বাচন : ভোট পড়েছে ৯৯.৯৮ শতাংশ

মধ্যপ্রদেশের ভোপালের সেহোরে বিজেপির এক কর্মী সমাবেশে প্রজ্ঞা ঠাকুর বলেন, আমরা আপনাদের নর্দমা পরিষ্কার করে দেয়ার জন্য নির্বাচিত হইনি, ঠিক আছে? আপনাদের টয়লেটও পরিষ্কার করে দেয়ার জন্য নির্বাচিত হইনি। দয়া করে বোঝার চেষ্টা করুন। যে কাজের জন্য আমি নির্বাচিত হয়েছি, আমি সেটি সততার সঙ্গে পালন করবো। আর এটা আমি আগেও বলেছি, এখনো বলবো।

তিনি বলেন, একজন সাংসদের কর্তব্য স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের সঙ্গে সমন্বয়ের মাধ্যমে লোকসভা কেন্দ্রের সামগ্রিক উন্নয়নের জন্য কাজ করা; যার মধ্যে স্থানীয় বিধায়ক এবং পৌরসভার কাউন্সিলররাও রয়েছেন। আমাকে যখন-তখন ফোন না করে আপনাদের স্থানীয় ইস্যু ও কাজের সমাধান স্থানীয় প্রতিনিধিকে দিয়ে করিয়ে নিন।

আরও পড়ুন : ৩ মাসে ১৩২ গ্রামে জন্মায়নি কোনও কন্যা শিশু

বিজেপির একজন কর্মী তার এলাকার স্বাস্থ্য ও পরিচ্ছন্নতার বিষয়ে প্রজ্ঞা ঠাকুরের কাছে জানতে চাইলে এমন প্রতিক্রিয়া দেখান তিনি।

২০০৮ সালে মালেগাঁও বিস্ফোরণ কাণ্ডে অভিযুক্ত প্রজ্ঞা ঠাকুর নির্বাচনের আগে প্রচারের সময় নানা বিতর্কিত মন্তব্য করেছিলেন। যার মধ্যে অন্যতম মহাত্মা গান্ধীর হত্যাকারী নাথুরাম গডসেকে ‘দেশপ্রেমিক আখ্যা দেয়া।

তিনি বলেছিলেন, নাথুরাম গডসে একজন দেশপ্রেমিক ছিলেন, আছেন এবং একজন দেশপ্রেমিকই থাকবেন। যারা তাকে সন্ত্রাসী বলছে, তাদের উচিত নিজের দিকে তাকানো। এ সব মানুষকে নির্বাচনে উপযুক্ত জবাব দেয়া হবে। প্রথমে ক্ষমা চাইতে অস্বীকার করলেও পরে প্রজ্ঞা দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বার্তার পর ক্ষমা স্বীকার করতে বাধ্য হন। মোদি বলেন, মহাত্মা গান্ধীকে অপমান করার জন্য আমি আমার মন থেকে প্রজ্ঞাকে ক্ষমা করব না।

সূত্র : এনডিটিভি।

এসআইএস/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]