দিল্লির দাঙ্গায় অমিতের মুখে পুলিশের প্রশংসা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ১০:৪৭ পিএম, ১১ মার্চ ২০২০

গত মাসে ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লির দাঙ্গায় দিল্লি পুলিশের বিরুদ্ধে নানান অভিযোগ উঠলেও পুলিশের পক্ষ নিয়ে তাদের প্রশংসা করেছেন দেশটির বিজেপিদলীয় কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। দাঙ্গা নিয়ে আজ দেশটির পার্লামেন্টে আলোচনার সময় এমন কথা বলেন বিজেপির এই সর্বোচ্চ নীতি নির্ধারক।

অমিত শাহ বলেন, দাঙ্গা পরিস্থিতি তিনি নিজে পর্যবেক্ষণ করেছেন এবং দিল্লি পুলিশের কারণেই সহিংসতা ছড়িয়ে পড়েনি বলে দাবি তার। তবে সেই সময়কার ভিডিও ফুটেজে অন্য চিত্র দেখা গিয়েছিল। দাঙ্গার সময় যোগায়োগের চেষ্টা করা হলেও দিল্লি পুলিশ কোনো সাড়া পাওয়া যায়নি বলে ক্ষতিগ্রস্তদের অভিযোগ।

বিজেপির এই সাবেক সভাপতি দাঙ্গা নিয়ে বিরোধী দল কংগ্রেসকেই উল্টো কাঠগড়ায় দাঁড় করিয়েছেন। অন্য দলের দিকে আঙুল তোলার কোনো অধিকার কংগ্রেসের নেই দাবি করে তিনি ভারতের বর্তমান এই বিরোধী দলটির অতীত রেকর্ড তুলে ধরেছেন।

উত্তর-পূর্ব দিল্লির দাঙ্গা নিয়ে লোকসভায় কংগ্রেসসহ অন্যান্য বিরোধীদল অমিত শাহর পদত্যাগ দাবি করলে প্রত্যুত্তরে অমিত শাহ বলেন, ‘ভারতের বিভিন্ন দাঙ্গায় যেসব মানুষ নিহত হয়েছেন তার ৭৬ শতাংশই ঘটেছে কংগ্রেসের শাসনামলে। আমাদের বিরুদ্ধে প্রশ্ন তোলার কোনো নৈতিক ভিত্তি তাদের নেই।’

সম্প্রতি উত্তর-পূর্ব দিল্লিতে গত বছরের শেষে মোদি সরকারের পাশকৃত বিতর্কিত নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের (সিএএ) বিরোধী ও সমর্থকদের মধ্যে জাতিগত দাঙ্গায় অর্ধ শতাধিক মানুষের মৃত্যু হয়। দিল্লি পুলিশসহ কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে দাঙ্গাকারীদের মদদ দেওয়ার অভিযোগ ওঠে।

দিল্লি পুলিশের নিয়ন্ত্রণ কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের হাতে। পুলিশের বিরুদ্ধে অভিযোগ ওঠে, তাদের চোখের সামনে হিন্দুত্ববাদীরা মুসলিমদের বিরুদ্ধে ব্যাপক নির্যাতন, ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগ করে। সহিংসতা রুখতে যথাসময়ে পদক্ষেপ না নেওয়ার জন্যও তাদের দায়ী করা হলেও অমিত শাহ পুলিশের পক্ষ নেন আজ।

দিল্লি পুলিশের প্রশংসা করে তিনি বলেন, ‘প্রশ্ন উঠছে ঘটনার সময় দিল্লি পুলিশ কী করছিল। পুলিশ ঘটনাস্থলেই ছিল। আমি পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছিলাম। ৩৬ ঘণ্টার মধ্যেই পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে তারা। দিল্লি পুলিশের তৎপরতার জন্যই সহিংসতা অন্যত্র ছড়িয়ে পড়েনি।’

১৯৮৪ সালের শিখবিরোধী দাঙ্গা নিয়ে কংগ্রেসদলীয় ভারতের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী রাজীব গান্ধীর একটি মন্তব্য উল্লেখ করে অমিত শাহ বলেন, ‘লোকে বলছে, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী শান্তির আহ্বান জানাননি। আমি করেছি, তবে যদি তা না করতাম... তবে আমি বলিনি যে একটি বড় গাছ পড়লে পৃথিবী কাঁপবে।’

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ বলেন, ‘তিন হাজার শিখ ভাইবোন একাকি পুড়ে মরেছেন এবয় আপনি বলবেন একটি বড় গাছ যখন পড়বে তখন পৃথিবী কাঁপবে।’ অমিত শাহর কথার মধ্যে কংগ্রেস লোকসভা থেকে ওয়াকআউট করে।’ অমিত শাহ দাঙ্গা নিয়ন্ত্রণে দিল্লি পুলিশের প্রশংসা করেন।

এই আলোচনার আগে বিজেপির এমপি মীনাক্ষী লেখী পরিসংখ্যান তুলে ধরে বলেন, ‘ভিন্ন ভিন্ন কংগ্রেসদলীয় প্রধানমন্ত্রীর আমলে ৮৭১টি দাঙ্গার ঘটনা ঘটেছে। এর মধ্যে ২৪৩টি জওহরলাল নেহেরুর আমলে, ৩৩৭টি ইন্দিরা গান্ধীর আমলে এবং ২৯১টি রাজীব গান্ধীর আমলে।

কেন্দ্রীয় সরকারকে অযোগ্য হিসেবে অভিহিত করে লোকসভার কংগ্রেস নেতা অধীর রঞ্জন চৌধুরী প্রশ্ন তোলেন, ‘যদি জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত দোভালের সফর পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের আনতে পারে তাহলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ কেন দাঙ্গা কবলিত এলাকা সফরে গেলেন না।?’

এসএ/বিএ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]