ঈদের আগেই খালেদার মুক্তি চান ১০১৭ সাংবাদিক

জাগো নিউজ ডেস্ক
জাগো নিউজ ডেস্ক জাগো নিউজ ডেস্ক
প্রকাশিত: ১০:০৪ এএম, ২৭ মে ২০১৯

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে ঈদুল ফিতরের আগেই মুক্তি দিতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন ১০১৭ জন সাংবাদিক।

গতকাল রোববার গণমাধ্যমে পাঠানো হয় ওই বিবৃতি। এতে সাংবাদিকরা বলেন, ‘খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা নিয়ে আমরা উদ্বিগ্ন। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, তার দু’হাত ও কাঁধের ব্যথা মারাত্মক পর্যায়ে। ডায়াবেটিসও বিপজ্জনক মাত্রায়। মুখের ভেতর ক্ষত সৃষ্টি হয়েছে। স্বাস্থ্যের এমন অবনতি হয়েছে যে, তিনি স্বাভাবিকভাবে খাওয়া-দাওয়া করতে পারছেন না।’

বিবৃতিতে আরও বলা হয়, ‘এ অবস্থায় বন্দি রেখে তাকে মৃত্যুর মুখে ঠেলে দেয়া অমানবিক, অযৌক্তিক, প্রতিহিংসামূলক ও অগ্রহণযোগ্য। আমাদের প্রত্যাশা, অনতিবিলম্বে সরকার তাকে মুক্তি দিয়ে গণতন্ত্র ও গণমানুষের দাবির প্রতি শ্রদ্ধা জানাবে।’

khaleda-zia

বিবৃতিতে সই করা সাংবাদিকদের মধ্যে রয়েছেন রিয়াজ উদ্দিন আহমেদ, আমানুল্লাহ, আলমগীর মহিউদ্দিন, আবুল আসাদ, অধ্যাপক আবদুল গফুর, শওকত মাহমুদ, রুহুল আমিন গাজী, ড. রেজোয়ান সিদ্দিকী, কবি আল মুজাহিদী, মোবায়েদুর রহমান, ফজলুর রহমান মুন্সী, মোস্তফা কামাল মজুমদার, সালাহউদ্দিন মোহাম্মদ বাবর, কামাল উদ্দিন সবুজ, এম এ আজিজ, এম আবদুল্লাহ, কবি আবদুল হাই শিকদার, এরশাদ মজুমদার, সৈয়দ আবদাল আহমেদ, কাদের গণি চৌধুরী, আবদুস শহিদ, গোলাম তাহাবুর, ছড়াকার আবু সালেহ।

মাশুক চৌধুরী, খায়রুল আনোয়ার মুকুল, বাকের হোসাইন, শহিদুল ইসলাম, সৈয়দ মেজবাহ উদ্দিন, কবি হাসান হাফিজ, কবি মাহমুদ শফিক, এ ইউ এম ফখরুদ্দিন, শেহাব উদ্দিন আহমেদ নাফা, চিন্ময় মুৎসুদ্দী, জিয়াউল হক, রীটা রহমান, মাহমুদা চৌধুরী, মমতাজ বিলকিস বানু, রোজী ফেরদৌস, মুন্সী আবদুল মান্নান, কাজী রওনাক হোসেন, নূরুল হুদা, জাহাঙ্গীর আলম প্রধান, ইলিয়াস হোসেন, শফিউল আলম দোলন, সাখাওয়াত হোসেন বাদশা, বদিউল আলম, নূরুল হাসান খান, বখতিয়ার রানা, গোলাম মোস্তফা, আবদুল আউয়াল ঠাকুর, জাহিদ চৌধুরী, কবি জাহাঙ্গীর ফিরোজ, শাহ আহমদ রেজা, ড. আবদুল হাই সিদ্দিক, মাসুমুর রহমান খলিলি, মাসুদ মজুমদার, আজম মীর, রেজাউর রহমান সোহাগ, নুরুদ্দিন আহমেদ, এ কে এম মোহসীন, মিজানুর রহমান ভূঁইয়া।

কবি আনোয়ারুল কবির বুলু, আতাহার খান, এনাম আবেদীন, শামসুদ্দিন হারুন, আনোয়ার আল দীন, লোটন একরাম, কায়কোবাদ মিলন, আবুল কালাম মানিক, মুরসালীন নোমানী, মাহফুজুর রহমান, শাহাদাত হোসেন খান, এস এস জাহাঙ্গীর, সৈয়দ আলী আসফার, মো. শহীদুজ্জামান, মাঈনুদ্দিন আহমেদ, আবু জাফর পান্না, রফিকুল ইসলাম আজাদ, আনিসুর রহমান খান, মোকাররম হোসেন, ফারুক আহমেদ, মুজতাহিদ ফারুকী, বাছির জামাল, শাহীন হাসনাত, জহিরুল আলম, ফখরুল আলম কাঞ্চন, মোস্তফা খন্দকার, সালাউদ্দিন বাবলু, আমিরুল মোমেনিন মানিক, শফিউল আলম গ্যালমান, শফিক আহমেদ, আমিনুর রহমান সরকার, খন্দকার হাসনাত করিম, ড. মাহবুব হাসান, নির্মল চক্রবর্তী, কামার ফরিদ, সৈয়দ শাহজাহান, খালেদ হায়দার, শামসুদ্দিন আহমেদ, আবু সাঈদ জুবেরী।

আবু রূশদ, শিরিন সুলতানা, লিসা ইসলাম, লুৎফুর রহমান বীনু, নুরুল আলম রোকন, মোদাব্বের হোসেন, আহমদ মতিউর রহমান, মোহন হাসান, আলী মামুদ, আবু সালেহ আকন, ওবায়দুর রহমান শাহীন, আসাদুজ্জামান আসাদ, সানাউল হক, খুরশিদ আলম, শাহীন চৌধুরী, আতিকুর রহমান রুমন, এরফানুল হক নাহিদ, মুহাম্মদ আনোয়ারুল হক (গাজী আনোয়ার), মো. শাহজাহান সাজু, মো. দিদারুল আলম, দেওয়ান মাসুদা সুলতানা, আবুল কালাম, খন্দকার আলমগীর হোসাইন প্রমুখ।

জেডএ/জেআইএম

আপনার মতামত লিখুন :