শেষ মুহূর্তের প্রচারণায় জমজমাট ডিআরইউ নির্বাচন

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৫:০৮ পিএম, ২৯ নভেম্বর ২০২১

শেষ মুহূর্তের প্রচারণায় জমে উঠেছে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির (ডিআরইউ) প্রাঙ্গণ। সোমবার (২৯ নভেম্বর) সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত ডিআরইউ প্রাঙ্গণে প্রার্থীদের প্রচারণায় ব্যস্ত থাকতে দেখা যায়।

প্রতিবছর উৎসবমুখর পরিবেশে অনুষ্ঠিত হয় এই নির্বাচন। এবারের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে মঙ্গলবার (৩০ নভেম্বর)।

ডিআরইউতে সভাপতি পদ প্রার্থী কবির আহমেদ বলেন, এই নির্বাচন পুরো জাতি খেয়াল করে। সাংবাদিকদের চাকরির সমস্যা, ওয়েজবোর্ড না মানাসহ পেশাগত মানের বিষয়টিকে গুরুত্ব দিয়ে কাজ করতে চাই। ডিআরইউতে সঠিক নেতৃত্ব আসলে এটা সম্ভব। চাকরির নিরাপত্তাসহ নানা সমস্যা দূর করার সর্বোচ্চ চেষ্টা করবো। তাই শেষ মুহূর্তে এসে প্রচারণা চালাচ্ছি।

সভাপতি প্রার্থী নজরুল ইসলাম মিঠু জানান, ডিআরইউ সদস্যরা খুবই বুদ্ধিমান। প্রার্থীদের যোগ্যতা, মেধা-মনন, পরিশ্রম দেখে ভোট দেবেন তারা। সবচেয়ে শক্তিশালী সংগঠন যেহেতু, এখানে নেতৃত্ব দিতে যোগ্যদের নির্বাচিত করবে ভোটাররা। আশা করছি তারা আমাকে ভোট দেবেন।

dru-Election-1.jpg

আরেক সভাপতি প্রার্থী রিয়াজ চৌধুরী বলেন, শেষ মুহূর্তের প্রচারণা চলছে। ভোটাররা যদি আস্থা রাখে নির্বাচনে জয় নিয়ে ফিরবো আশা করি।

সভাপতি প্রার্থী সাখাওয়াত হোসেন বাদশা বলেন, ডিআরইউর নির্বাচনটি উৎসবমুখর পরিবেশে অনুষ্ঠিত হয়। সদস্যদের মধ্যে ঐক্য-ভ্রাতৃত্ব রয়েছে। এটা নির্বাচনে জয় লাভের পরও থাকে। আশা করি যোগ্যদের বেছে নেবেন ভোটাররা।

আরেক সভাপতি প্রার্থী সৈয়দ শুকুর আলী শুভ বলেন, অবকাঠামোগত যে উন্নয়নগুলো দরকার তা বাস্তবায়ন করবো। কর্মচারীদের থাকার ব্যবস্থাসহ সাংবাদিকতা পেশার উন্নয়নে কাজ করবো। আমার আবেদন সাধারণ সদস্যরা আমাকে ভোট দিয়ে নির্বাচিত করবে।

সাধারণ সম্পাদক পদপ্রার্থী জামিউল আহসান সিপু বলেন, ডিআরইউ পেশাজীবী সাংবাদিকদের একটি সংগঠন। এখানে সবাই সবাইকে জানে ও চিনে। এজিএমে সবাই অংশ নেয়, তাই সবার সঙ্গে দেখা হয়। ডিআরইউ নির্বাচনে এখানে সবাই যারা অংশ নেয় ও যারা বিজয়ী হয় তারা ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করে। এটা ডিআরইউর ঐতিহ্য।

আরেক সাধারণ সম্পাদক পদপ্রার্থী মো. মঈন উদ্দিন খান বলেন, এই পদে নির্বাচিত হওয়ার জন্য গত কয়েক মাস ধরে নিরবিচ্ছিন্নভাবে কাজ করেছি। ভোটারদের সাড়া দেখে আমি আশাবাদী যে, তারা আমাকেই বেছে নেবেন।

ডিআরইউ নির্বাচনে সাধারণ সম্পাদক পদপ্রার্থী নূরুল ইসলাম হাসিব বলেন, ২০১৯ সালে সাধারণ সম্পাদক পদে মাত্র দুই ভোটের জন্য জয়ী হতে না পারলেও ভোটারদের বিপুল সমর্থন ও ভালোবাসায় ধন্য হয়েছি। এবারের নির্বাচনেও ভোট ও দোয়া কামনা করছি।

dru-Election-1.jpg

সাংগঠনিক সম্পাদক পদ প্রার্থী সাইফুল ইসলাম বলেন, আমরা প্রতিটি ভোটারের কাছে যাওয়ার চেষ্টা করেছি। আজ ভোট চাচ্ছি আগামীকালও ডিআরইউ রীতি অনুযায়ী ভোট চাইবো।

সাংগঠনিক সম্পাদক পদ প্রার্থী আব্দুল্লাহ আল কাফি বলেন, উৎসবমুখর পরিবেশে নির্বাচনটি হয়। আমরা নিজেদের জন্য ভোট চাচ্ছি। সামনে ডিআরইউ যতো কাজ ও উদ্যোগ নেবে তার সঙ্গে থাকবো।

দপ্তর সম্পাদক রফিক রাফি জানান, পেশাদার রিপোর্টারদের সংগঠন ডিআরইউ। নির্বাচনটি উৎসবমুখর পরিবেশে হয়। গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ার নির্বাচন এটি। তাই আশা করি সদস্যরা যোগ্য প্রার্থীকেই বেছে নেবেন।

নির্বাচনে কার্যনির্বাহী সদস্য প্রার্থী হাসান জাবেদ বলেন, আজকে সবাই এজিএমে এসেছে। তাই সুযোগটাকে কাজে লাগাচ্ছি প্রচারণা করে। ভোটারদের কাছে ভোট চাচ্ছি।

নির্বাচনে আরেক কার্যনির্বাহী সদস্য প্রার্থী মাহমুদুল হাসান বলেন, এজিএমের পরের দিনই নির্বাচন। আমাদের ডিআরইউ নির্বাচনটি নিরপেক্ষ ও সুষ্ঠু হয়।

কেমন নেতৃত্ব চান জানতে চাইলে ভোটার গৌতম ঘোষ বলেন, ডিআরইউকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য যাদের যোগ্য মনে করবো তাদের ভোট দেব। আমাদের জন্য যারা কাজ করবে, সংগঠনের জন্য কাজ করবে তাদের চাই সংগঠনে।

আরেক ভোটার আব্দুল্লাহ মুয়াজ বলেন, আমরা এমন ব্যক্তিদের চাই যাদের কোয়ালিটি আছে সংগঠনকে নেতৃত্ব দেওয়ার মতো। যারা চালাতে পারবে সংগঠনটি।

আরএসএম/জেডএইচ/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]