মুখরিত হজ ক্যাম্প

রফিক মজুমদার
রফিক মজুমদার , জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৮:৪৬ পিএম, ১৩ জুলাই ২০১৮ | আপডেট: ০৮:৫৯ পিএম, ১৩ জুলাই ২০১৮
ক্যাম্পের সামনে বাস থেকে নামছেন হজযাত্রীরা

ঢাকায় হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর সংলগ্ন আশকোনায় স্থায়ী হজ ক্যাম্প। প্রতিবছর হজে যাওয়ার আগে ঢাকার বাইরের যাত্রীরা এই ক্যাম্পে ওঠেন। এবার শনিবার (১৪ জুলাই) থেকে শুরু হবে হজ ফ্লাইট। এদিন ৮৩৮ জন যাত্রী নিয়ে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের দুটি ফ্লাইট উড়বে জেদ্দার উদ্দেশে। এ ফ্লাইট ধরতে ১০ জুলাই থেকেই ক্যাম্পে আসতে শুরু করেন দূর-দূরান্তের হজযাত্রীরা। তাদের পদচারণায় ইতোমধ্যে মুখরিত হয়ে ওঠেছে এই ক্যাম্প।

Hajj-Camp-2

 একে অপরের সঙ্গে কুশল বিনিময় করছেন  দুজন হজযাত্রী। ছবিটি হজ ক্যাম্প থেকে শুক্রবার বিকেলে তোলা

শুক্রবার হজ ক্যাম্প ঘুরে দেখা যায়, সংখ্যায় কম হলেও আগত হজযাত্রীদের মধ্যে ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনা। লাইনে দাঁড়িয়ে রিপোর্ট করছেন। বিমান অফিস থেকে সংগ্রহ করছেন পাসপোর্টের টিকিট।

সরকারি চাকরি থেকে গত বছর অবসরে যান সালাউদ্দিন আহমেদ। এ বছর স্ত্রীসহ হজে যাচ্ছেন। পাসপোর্ট, ভিসা, টিকিট হাতে পেয়ে মহাআনন্দে। অনুভূতি জানতে চাইলে জাগো নিউজকে তিনি জানান, আলহামদুল্লিলাহ, অনেক ভালো লাগছে।

Hajj-Camp-3

ক্যাম্প থেকে রিপোর্ট সংগ্রহ করছেন হজযাত্রীরা। ছবিটি হজ ক্যাম্প থেকে শুক্রবার বিকেলে তোলা

হজ ক্যাম্পের বিষয়ে তিনি বলেন, আমি ঢাকায় থাকি, হজ ক্যাম্পে উঠবো না, তাই এখানকার বিষয়ে ভালো বলতে পারব না। তবে ঘণ্টা দু’য়েকের অভিজ্ঞতায় বুঝলাম, এখানে বেশ আনন্দ-উদ্দীপনা।

রাজশাহী থেকে আমির হোসেন মোড়লের নেতৃত্বে এসেছেন সাতজন হজযাত্রী। তারা সবাই ক্যাম্পে রিপোর্ট করে মেঝেতে বসে গল্প করছিলেন। কোনো অসুবিধায় পড়েছেন কি না জানতে চাইলে আমির হোসেন বলেন, ঘণ্টা তিনেক হলো আসলাম। এজেন্সির লোক উপরে গেছে। আমাদের কাগজপত্র নাকি ঠিক করতেছে। রোববার বেলা ১১টা ৫৫ মিনিটে আমাদের ফ্লাইট।

Hajj-Camp-4

                   বিমান অফিসে হজযাত্রীরা। ছবিটি শুক্রবার বিকেলে তোলা

উল্লেখ্য, এবার সরকারি ব্যবস্থাপনায় ৬ হাজার ৭৯৮ জন ও বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ১ লাখ ২০ হাজারসহ মোট ১ লাখ ২৬ হাজার ৭৯৮ জন বাংলাদেশি হজ করবেন। এ বছর বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সে যাবেন মোট ৬৩ হাজার ৫৯৯ জন হজযাত্রী। এর মধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় যাবেন ৭ হাজার ১৯৮ জন। অবশিষ্ট ৫৬ হাজার ৪০১ জন যাবেন বেসরকারি ব্যবস্থাপনায়। প্রথমবারের মতো হজযাত্রীদের টিকিট ক্রয় করার পর যাত্রার তারিখ পরিবর্তনে ১০০ মার্কিন ডলার বা সমপরিমাণ টাকা এবং যাত্রা বাতিলের ক্ষেত্রে ২০০ মার্কিন ডলার বা সমপরিমাণ টাকার বাড়তি মাসুল আদায়ের বিধান চালু করা হয়েছে। ঢাকা থেকে জেদ্দা প্রতি ফ্লাইটের উড্ডয়নকাল হবে আনুমানিক ৭ ঘণ্টা।

আরএম/জেডএ/পিআর