পাপুলকাণ্ডে কুয়েতও সমানভাবে দায়ী : তথ্যমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক চট্টগ্রাম
প্রকাশিত: ০৮:১৩ পিএম, ০২ জুলাই ২০২০

কুয়েতে মানবপাচারের দায়ে গ্রেফতার লক্ষ্মীপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য মোহাম্মদ শহিদ ইসলাম পাপুলের সঙ্গে কুয়েতের কর্মকর্তারাও সমভাবে দায়ী বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

বৃহস্পতিবার (২ জুলাই) দুপুরে চট্টগ্রামের সল্টগোলায় ৫০ শয্যার ‘বিজিএমইএ কোভিড-১৯ ফিল্ড হাসপাতালের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ভিডিও কনফারেন্সে তিনি এ মন্তব্য করেন।

এ সময় কুয়েতে মানবপাচারের দায়ে সংসদ সদস্য মোহাম্মদ শহিদ ইসলাম পাপুল গ্রেফতারের ফলে সেখানে কর্মী রফতানি ব্যাহত হবে কি না- সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের উত্তরে ড. হাছান মাহমুদ বলেন, ‘কুয়েতের তদন্তে সেখানকার সরকারের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা, রাজনীতিবিদদের সম্পৃক্ততা বেরিয়ে এসেছে। তাদের সম্পৃক্ততা, সহযোগিতা ছাড়া এই কাজগুলো হতো না, সুতরাং তারাও সমভাবে দায়ী। সুতরাং এ ঘটনায় আমাদের শ্রমবাজারে অর্থাৎ কুয়েতে কর্মী রফতানির ক্ষেত্রে আমাদের ওপর কোনো প্রভাব পড়বে বলে আমি মনে করি না।’

এর আগে, বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত হয়ে হাসপাতালটির উদ্বোধন করেন। বিজিএমইএ’র সভাপতি রুবানা হক, প্রথম সহ-সভাপতি মোহাম্মদ আবদুস সালাম ও বোর্ড সদস্যবৃন্দ উদ্বোধনী সভায় অংশ নেন।

তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেন, ‘তৈরি পোশাক রফতানি খাত বাংলাদেশের অর্থনীতির ‘লাইফ-লাইন’। এই খাতসহ বৈশ্বিক মহামারি মোকাবিলায় সমন্বিত প্রচেষ্টার বিকল্প নেই।’

চট্টগ্রামের স্বাস্থ্য সেবার বর্তমান অবস্থার কথা বলতে গিয়ে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘করোনার শুরুতে চট্টগ্রামে রোগীদের স্বাস্থ্যসেবা দেয়ার ক্ষেত্রে অনেক প্রতিকূলতা, সীমাবদ্ধতা ছিল। কিন্তু আমরা ক্রমাগতভাবে সমন্বয় সভা করে প্রশাসন, পুলিশ, ব্যবসায়ী-স্বেচ্ছাসেবী সবাইকে ঐক্যবদ্ধ করেছি, সে কারণে আগের পরিস্থিতি এখন নেই, অনেক উত্তরণ ঘটেছে। আইসিইউ, ভেন্টিলেটরসহ যে সুবিধাগুলোর অপ্রতুলতা ছিল, আমরা সেই সংকট সমাধান করতে সক্ষম হয়েছি।’

এ সময় চট্টগ্রামে ৫০ শয্যার বিজিএমইএ কোভিড-১৯ ফিল্ড হাসপাতাল প্রতিষ্টা করায় তথ্যমন্ত্রী বাংলাদেশ পোশাক প্রস্তুতকারক ও রফতানিকারক সমিতিকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন।

স্বাগত বক্তব্যে বিজিএমইএ’র প্রথম সহ-সভাপতি মোহাম্মদ আবদুস সালাম বলেন, ‘পোশাক শিল্প বাংলাদেশের অর্থনীতিতে নিয়ামক শক্তি হিসেবে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে। বিজিএমইএ শ্রমিক কল্যাণ কর্মসূচির আওতায় হাসপাতাল ও স্বাস্থ্য কেন্দ্র স্থাপনের মাধ্যমে শ্রমিকদের বিনামূল্যে স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা সেবা প্রদান, শ্রমিকদের সন্তানদের জন্য অবৈতনিক স্কুল এবং শ্রমিকদের জন্য বাধ্যতামূলক বীমা সুবিধা প্রদান করে আসছে। বর্তমান কোভিড-১৯ মহামারির কারণে সামাজিক দায়বদ্ধতা বোধ থেকে শ্রমিক কর্মচারী ও স্থানীয় দরিদ্র জনগণের জন্য বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা প্রদানের লক্ষ্যে বিজিএমইএ কোভিড-১৯ ফিল্ড হাসপাতাল স্থাপন করেছে। এছাড়াও কোভিড-১৯ শনাক্তকরণে বিজিএমইএ আরও একটি পিসিআর মেশিন ‘বাংলাদেশ ইনস্টটিউিট অব ট্রপিক্যাল অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজিজেসকে (বিআইটিআইডি) অনুদান হিসাবে প্রদান করবে।’

সভায় উপস্থিত ছিলেন- বিজিএমইএর সহ-সভাপতি এ এম চৌধুরী (সেলিম), বিজিএমইএ’র পরিচালক খন্দকার বেলায়েত হোসেন, অঞ্জন শেখর দাশ, এনামুল আজিজ চৌধুরী, মোহাম্মদ আতিক, বিজিএমইএর প্রাক্তন সভাপতি জনাব এস এম ফজলুল হক, প্রাক্তন সহ-সভাপতি জনাব মোহাম্মদ ফেরদৌস, প্রাক্তন পরিচালক এম ডি এম মহিউদ্দীন চৌধুরী, আবদুল মান্নান রানা ও মোহাম্মদ সাইফ উল্ল্যাহ মনসুর।

আবু আজাদ/এফআর/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]