‘মায়ের চিকিৎসায় কাউকে কোনো দায়িত্ব দেননি সচিব’

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৪:৩২ পিএম, ২৪ আগস্ট ২০২১

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব রওনক মাহমুদের মায়ের চিকিৎসার বিষয়ে মন্ত্রণালয় থেকে কোনো চিঠি ইস্যু করা হয়নি বলে জানিয়েছেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ. ম. রেজাউল করিম।

মঙ্গলবার (২৪ আগস্ট) দুপুরে সচিবালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা জানান।

প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী বলেন, ‘আমি ঢাকার বাইরে ছিলাম। গণমাধ্যমের সূত্র ধরে আমি জানতে পেরেছি আমাদের মন্ত্রণালয়ের সচিবের মায়ের চিকিৎসার জন্য মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। এ বিষয়ে আজ একনেক মিটিংয়ে আমি সচিব মহাশয়কে বিষয়টি নিয়ে জিজ্ঞেস করলে তিনি বলেন, ‘আমি কাউকে এ ধরনের কাজ করতে বলিনি।’ তিনি নিজেও ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়েছিলেন, তারপরও তার ৯৫ বছর বয়সী মা করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন, পরে তাকে ঢাকায় নিয়ে আসা হয়েছে। তিনি অসুস্থ মাকে নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি করিয়েছেন। হয়তো মন্ত্রণালয় অধিদপ্তরের কেউ কেউ হাসপাতালে সহানুভূতি জানাতে গেলে যেতে পারেন। সেখানে তিনি কাউকে কোনো দায়িত্ব প্রদান করেননি। আমি মন্ত্রণালয়ে খোঁজ নিয়ে দেখেছি মন্ত্রণালয়ের সচিবের মায়ের দেখভাল করার জন্য কাউকে দায়িত্ব দেওয়া হয়নি।’

শ. ম. রেজাউল করিম আরও বলেন, ‘সচিব অসুস্থ থাকা অবস্থায় আমি নিজেও হাসপাতালে গিয়েছিলাম। আমার তো মনে হয় আমি অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে থাকলেও গণমাধ্যমের অনেকে সহানুভূতি জানাতে বা খবর নিতে তারাও যেতে পারেন বা অন্য কেউ যেতে পারেন। একইভাবে তাকে দেখতে যেতে পারেন সহানুভূতি জানাতে পারেন। মন্ত্রণালয় থেকে যেসব চিঠি ইস্যু করা হয় তার একটা দাপ্তরিক তারিখ থাকে, সময় থাকে এবং কর্মকর্তার স্বাক্ষর থাকে।’

চিঠি ছাড়া কাউকে এ ধরনের দায়িত্ব দেওয়া যায় কি-না জানতে চাইলে মন্ত্রী বলেন, ‘সচিব আমাকে জানিয়েছেন কাউকে অফিসিয়াল নিয়মের বাইরে গিয়ে তার মাকে দেখভাল করা বা কোনো দায়িত্ব পালন করার জন্য তিনি বলেননি।’

মন্ত্রী বলেন, ‘আমি গণমাধ্যমের নিউজের একটি জায়গায় দেখেছি শুধু দায়িত্ব দেওয়া নয়, রীতিমতো চিঠি ইস্যু করেছে মন্ত্রণালয় বলা হয়েছে। চিঠি ইস্যু করা হলে একটা স্মারক নম্বর থাকে, মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা, কনসার্ন অফিসারের স্বাক্ষর থাকে। আমি চেক করে দেখেছি মন্ত্রণালয় থেকে এরকম কোনো কিছু হয়নি। এ বিষয়ে এর বাইরে আমার কিছু বলার নেই। সচিব বলেছেন তিনি মৌখিকভাবেও এ ধরনের কোনো নির্দেশনা দেননি।’

আইএইচআর/জেডএইচ/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]