বাংলাদেশে বিনিয়োগ বাড়াতে মালয়েশিয়ার প্রতি আহ্বান

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৫:২৭ পিএম, ০১ জানুয়ারি ২০২৩

বাংলাদেশকে বিনিয়োগের জন্য অত্যন্ত লাভজনক জায়গা হিসেবে উল্লেখ করে বাংলাদেশে বিনিয়োগ বাড়াতে মালয়েশিয়া সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার।

একই সঙ্গে সরকারের বিনিয়োগবান্ধব নীতির সুযোগ কাজে লাগাতে মালয়েশিয়া ভূমিকা রাখবে বলেও আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

রোববার (১ জানুয়ারি) ঢাকায় মালয়েশিয়ার হাই কমিশনার হাজনা মো. হাসিম ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রীর সঙ্গে তার সচিবালয়স্থ দপ্তরে সৌজন্য সাক্ষাৎ করতে এলে তিনি এসব কথা বলেন।

বাংলাদেশ ও মালয়েশিয়া ভ্রাতৃপ্রতিম দুটি দেশের মধ্যকার বিদ্যমান চমৎকার সম্পর্ক তুলে ধরে মন্ত্রী বলেন, মালয়েশিয়া বাংলাদেশের এক অকৃত্রিম বন্ধু। দুই দেশের কৃষ্টি ও সংস্কৃতি প্রায় অভিন্ন। এ কারণে বাংলাদেশের মানুষ বৈদেশিক কর্মক্ষেত্র হিসেবে মালয়েশিয়ায় অত্যন্ত স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করে।

সাক্ষাৎকালে উভয়ে দ্বিপাক্ষিক স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিশেষ করে টেলিযোগাযোগ খাত সংক্রান্ত বিভিন্ন বিষয়াদি নিয়ে মতবিনিময় করেন।

বাংলাদেশে বিনিয়োগ বাড়াতে মালয়েশিয়ার প্রতি আহ্বান

মন্ত্রী গত ১৪ বছরে বাংলাদেশের টেলিযোগাযোগ খাতে অগ্রগতির চিত্র তুলে ধরে বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ডিজিটাল কর্মসূচি বাস্তবায়নের ধারাবাহিকতায় দেশের প্রতিটি খাতে বিস্ময়কর অগ্রগতি অর্জিত হয়েছে। আমাদের ডিজিটাল কর্মসূচি বিশ্বে অনুকরণীয় দৃষ্টান্ত হিসেবে কাজ করছে।

এসময় হাই কমিশনার হাজনা হাসিম বাংলাদেশের বিভিন্ন খাতের অগ্রগতির ভূয়সী প্রশংসা করেন। তিনি কক্সবাজারে একটি হাসপাতাল প্রতিষ্ঠাসহ দেশের আর্থ-সামাজিক সেবায় বিভিন্ন উদ্যোগ এবং টেলিযোগাযোগ খাতে মালয়েশিয়ার বিনিয়োগের বিভিন্ন বিষয়াদি তুলে ধরেন।

বাংলাদেশের সঙ্গে বিদ্যমান চমৎকার সম্পর্কের জন্য মালয়েশিয়া অত্যন্ত গর্বিত বলেও উল্লেখ করেন হাই কমিশনার।

এরপর ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রীর সঙ্গে তার দপ্তরে নতুন যোগদান করা সচিব আবু হেনা মোরশেদ জামান এবং অতিরিক্ত সচিব একে এম আমিরুল ইসলাম সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন।

এসময় মোস্তাফা জব্বার নতুন সচিব ও অতিরিক্ত সচিবকে অভিনন্দন জানান এবং নিজের লেখা ১২টি বই তাদের উপহার দেন।

এইচএস/এমকেআর/জেআইএম

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।