শ্যামপুরে লাঙ্গলের পক্ষে বাবলার শোডাউন

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০২:৪৯ এএম, ১৪ অক্টোবর ২০১৮

গণমিছিলের নাম করে লাঙ্গল মার্কার পক্ষে নিজের কর্মী সমর্থকদের নিয়ে ব্যাপক শোডাউন করেছেন ঢাকা-৪ আসনের এমপি ও জাতীয় পার্টি ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সভাপতি সৈয়দ আবু হোসেন বাবলা। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে নিজের শক্তি প্রর্দশনের জন্যই গণমিছিলের নামে এই শোডাউন করেন বাবলা।

শনিবার বিকেলে শ্যামপুর কদতমলী থানা জাতীয় পার্টি আয়োজিত বাবলার নেতৃত্বে এই গণমিছিল রাজধানীর দোলাইরপাড় থেকে শুরু হয়ে জুরাইন রেল গেইট হয়ে মীর হাজিরবাগে গিয়ে শেষ হয়। গণমিছিলে জাপার হাজার হাজার নেতাকর্মী সমর্থক ও এলাকার সাধারণ মানুষ অংশ গ্রহণ করেন। হাজারো মানুষের হাতে হাতে লাঙ্গল, বাদ্যযন্ত্রের তালে তালে বর্নিল সাজে মিছিলে নেতাকর্মীদের সরব উপস্থিতি পুরো এলাকা উৎসবের আমেজ সৃষ্টি হয়।

গণমিছিলের আগে সংক্ষিপ্ত সমাবেশে জাপা এমপি সৈয়দ আবু হোসেন বাবলা বলেন, আশির দশকে আমর প্রিয় নেতা পল্লীবন্ধু এরশাদের সহযোগিতায় এই এলাকায় যেমন ব্যাপক উন্নয়ন করেছি। তেমনি বিগত সাড়ে চার বছরেরও বেশি সময় ধরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আন্তরিক সহযোগিতায় শ্যামপুর-কদমতলীবাসীর অভিশাপ খ্যাত জলাবদ্ধতা স্থায়ী সমাধানের জন্য মেগা প্রকল্পের কাজ শুরু হয়েছে।

এই সাড়ে চার বছরের প্রায় শতাধিক ছোট বড় রাস্তাঘাটের সংস্কার, নির্মাণ, পুন নির্মাণ ও উন্নয়ন করেছি। পানি সংকট সমাধানে পাম্প স্থাপন ও মসজিদ মন্দির, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ব্যাপক উন্নয়ন করেছি, রেলস্টেশন করেছি, কবরস্থান, শশ্মানের উন্নয়ন করেছি।

বাবলা আরো বলেন, কোন ফ্রন্ট, আর তথাকথিত জাতীয় ঐক্য করে লাভ হবে না। আওয়ামী লীগ ও জাতীয় পার্টির মতো দলকে বাদ দিয়ে যারা জাতীয় ঐক্যের কথা বলে তারা বোকার স্বর্গে বাস করছে।

বাবলা বলেন, বঙ্গবন্ধুর কন্যা রাষ্ট্র নায়ক শেখ হাসিনা ও পল্লীবন্ধু এরশাদের মধ্যে যতদিন ঐক্য থাকবে ততদিন বাংলার মাঠিতে কোনো অপশক্তি রাষ্ট্র ক্ষমতায় আসতে পারবে না। কোনো চক্রান্ত ষড়যন্ত্র করে দেশের উন্নয়ন অগ্রযাত্রা ব্যাহত করা যাবে না। তিনি উন্নয়নের ধারাবাহিকতা বজায় রাখার স্বার্থে আগামী নির্বাচনে ঢাকা-৪ এর জণগণকে লাঙ্গলে ভোট দেয়ার আহ্বান জানান।

সমাবেশে আরো বক্তব্য রাখেন জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় নেতা সুজন দে, শেখ মাসুক রহমান, শ্যামপুর থানা জাপার সভাপতি কাওসার আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক ইব্রাহিম মোল্লা, কদমতলী থানার সভাপতি শামসুজ্জামান কাজল প্রমুখ।

এমইউএইচ/আরএস

আপনার মতামত লিখুন :