অপেক্ষাতেই রাখলো বিএনপি

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০১:১৪ পিএম, ১০ নভেম্বর ২০১৮
ফাইল ছবি

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দলের প্রচারণা, মনোনয়ন বিক্রি কবে নাগাদ শুরু করতে যাচ্ছে বিএনপি- এমন প্রশ্নে দলটির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবীর রিজভী আহমেদ পরে জানানো হবে বলে জানিয়েছেন। ফলে নির্বাচনে বিএনপি অংশগ্রহণ করেছে কি না তার অপক্ষো আরও বাড়লো।

শনিবার সকালে নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে রিজভীর কাছে প্রশ্ন ছিল- ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, তারা নিশ্চিত হয়েছেন বিএনপি নির্বাচনে অংশ নেবে। তাহলে আপনাদের নির্বাচনী প্রচারণা, মনোনয়ন ফরম বিক্রি কবে থেকে শুরু হচ্ছে? জবাবে রিজভী বলেন, ‘পরে জানতে পারবেন।’

তাহলে কি ধরে নেয়া যায় বিএনপি নির্বাচনে অংশ নিচ্ছে- এ প্রশ্নে তিনি বলেন, ‘কেন আপনি ধরে নেবেন আমরা নির্বাচনে যাচ্ছি কি যাচ্ছি না, এটা কি ওবায়দুল কাদের সাহেব প্রশ্ন করার জন্য পাঠিয়েছেন।’

রিজভী বলেন, ‘অবাধ, সুষ্ঠু নির্বাচন ও আওয়ামী লীগ সবসময় উল্টো পথে হাঁটে। ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ অর্থই হচ্ছে- স্বচ্ছ নির্বাচনী ব্যবস্থার বারোটা বেজে যাওয়া। সন্ত্রাসীদের দুর্গ আওয়ামী লীগ কখনোই প্রতিযোগিতামূলক অবাধ নির্বাচনে বিশ্বাস করে না। নিজেদের স্বার্থে যখন যা ইচ্ছা তাই তারা করতে পারে।’

তিনি বলেন, ‘সংলাপ, নির্বাচন, তফসিল ঘোষণা সবই তামাশার নামান্তর মাত্র। অবৈধ ক্ষমতাসীনরা জনগণের দাবি মানছে না। সাত দফা দাবিকে অগ্রাহ্য করেই একতরফা নির্বাচনের পথে এগিয়ে যাচ্ছে তারা। শেখ হাসিনাকে ক্ষমতায় রাখতেই নির্বাচন কমিশন যাবতীয় কার্যক্রম চালাচ্ছে। এ জন্য আগামী নির্বাচনকে প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক করার বা নির্বাচনী মাঠ সমতল করার কোনো গরজ বর্তমান নির্বাচন কমিশনের নেই। আসলে একতরফা তফসিল ঘোষণার পর সারাদেশে বিষাদঘন পরিবেশ বিরাজ করছে।’

রিজভী বলেন, ‘ইতোমধ্যে নির্বাচন নিয়ে সংলাপের নামে সরকারি প্রতারণায় দেশবাসী বিস্মিত ও হতবাক। সরকারের সর্বোচ্চ ব্যক্তি কীভাবে প্রতিশ্রুতি ভঙ্গ করেন! তিনি বলেছিলেন- নতুন মামলা দেয়া হবে না ও গ্রেফতার করা হবে না, যেদিন বলেছেন ঠিক সেই রাত থেকেই আরও বেশি মামলা ও গ্রেফতার শুরু হয়েছে। এমনকি সিইসি তফসিল ঘোষণার সময় বলেছেন- বিরোধী দলের নেতাকর্মীদের গ্রেফতার হয়রানি না করতে, রাজনৈতিক মামলা না দিতে, কিন্তু শুধুমাত্র গতকালই বিরোধী দলের ৩০০’র অধিক নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করা হয়েছে।’

কেএইচ/বিএ/এমএস

আপনার মতামত লিখুন :