সরকার আগুন নিয়ে খেলছে, হুঁশিয়ারি মোশাররফের

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৫:১৩ পিএম, ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০২১
ফাইল ছবি

জিয়াউর রহমানের খেতাব বাতিলের ষড়যন্ত্র করে ‘সরকার আগুন নিয়ে খেলছে’ বলে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন খন্দকার মোশাররফ হোসেন।

রোববার (১৪ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে এক আলোচনা সভায় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য এই হুঁশিয়ারি দেন।

তিনি বলেন, ‘জিয়াউর রহমানকে ছাড়া মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস লেখা সম্ভব হবে না। আজ যারা মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস বিকৃত করছেন। ইতিহাস যারা লেখবেন সত্যকে মেনে নিয়ে লেখবেন। এদেশে ২৫ মার্চের আগে স্বাধিকারের আন্দোলন হয়েছে, স্বায়ত্তশাসনের আন্দোলন হয়েছে, পাকিস্তানের ক্ষমতায় যাওয়ার আন্দোলন হয়েছে, কিন্তু জিয়াউর রহমানই সশস্ত্র মুক্তিযুদ্ধ শুরু করেছেন।’

বিএনপির এই নেতা আরও বলেন, ‘আর তাকে নিয়ে আপনারা টানাটানি করছেন। আগুন নিয়ে খেলছেন। আপনাদের হাত পুড়ে যাবে, ছাই হয়ে যাবে। এই খেতাব কেউ দেয়নি, এই খেতাব শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানসহ যারা খেতাব পেয়েছেন তারা প্রত্যেকে অর্জন করেছেন। এই খেতাবের ওপর হাত দেয়ার কোনো অধিকার কারও নেই।’

খন্দকার মোশাররফ বলেন, ‘এ সরকার তো সম্পূর্ণ অনৈতিকভাবে জনগণের ঘাড়ের ওপর চেপে আছে। তাদের পক্ষে নৈতিক কথা বলা সম্ভব নয়। মিথ্যার ওপর প্রতিষ্ঠিত, মিথ্যা তাদের বলতে হবে, তারা অন্যায়ের ওপর প্রতিষ্ঠিত তাদের অন্যায়ই করতে হবে।’

‘আজকে বাংলাদেশে সুশাসনের অভাব, বিচারহীনতা, আজ গণতন্ত্র নেই, অর্থনীতিতে লুটপাট, ব্যাংকগুলো লুটপাট হচ্ছে, রিজার্ভ ডাকাতি হচ্ছে, শেয়ারবাজার লুট হচ্ছে। একটি জায়গা আপনি দেখাতে পারবেন না যেখানে তারা কোনো ভালো কাজ করেছে এবং ন্যায়ের কাজ করেছে, কোনো সত্য প্রতিষ্ঠা করেছে। তাদের এই দুর্গন্ধ বাংলাদেশে শুধু নয়, বিদেশে ছড়িয়ে পড়েছে।’

তিনি বলেন, ‘আল জাজিরা একটা রিপোর্ট দিয়েছে সরকারের পক্ষ থেকে নাকচ করে দেওয়া হলো। যদি ওই রিপোর্টের বিষয়বস্তুগুলো মিথ্যা হয় তাহলে সরকারের দায়িত্ব ছিল এ বিষয়ে প্রতিবাদ করা। কিন্তু তারা বিষয়বস্তুর মধ্যে যাননি, শুধু রাজনৈতিকভাবে নাকচ করে দিয়েছেন।’

গত ৯ ফেব্রুয়ারি জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিলের (জামুকা) সভায় জিয়াউর রহমানসহ বঙ্গবন্ধুর আত্মস্বীকৃত খুনি শরিফুল হক ডালিম, নূর চৌধুরী ও মোসলেহ উদ্দিনের রাষ্ট্রীয় খেতাব বাতিলের সিদ্ধান্ত হয়।

কেএইচ/জেডএইচ/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]