বাঁশখালীতে নিহত শ্রমিকদের পরিবারকে ক্ষতিপূরণ দেয়ার দাবি বিএনপির

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৬:৫৪ পিএম, ১৭ এপ্রিল ২০২১

চট্টগ্রামের বাঁশখালীতে কয়লা বিদ্যুৎকেন্দ্রে শ্রমিক-পুলিশ সংঘর্ষে নিহতদের ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি হতাহতদের পরিবারকে ক্ষতি পূরণের দাবি জানান।

বিএনপির ভারপ্রাপ্ত দফতর সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স স্বাক্ষরিত বিবৃতিতে ফখরুল বলেন, 'দাবি-দাওয়া নিয়ে বিক্ষোভরত শ্রমিকদের ওপর নির্বিচারে পুলিশের গুলিবর্ষণ এবং শ্রমিকদের প্রাণ কেড়ে নেয়ার ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও ধিক্কার জানাচ্ছি। শ্রমিকদের বুকে গুলি চালিয়ে হঠকারীমূলকভাবে শ্রমিক বিক্ষোভ দমন করতে গিয়ে পাঁচটি প্রাণ ঝরিয়েছে পুলিশ। এর দায়-দায়িত্ব সরকারকেই বহন করতে হবে।'

ফখরুল বলেন, 'যে শ্রমিকরা মাথার ঘাম পায়ে ফেলে দেশের উন্নয়নে অগ্রণী ভূমিকা পালন করে সেই শ্রমিকদের বুকে গুলি চালানো কেবলমাত্র আওয়ামী ফ্যাসিবাদী শাসকদের পক্ষেই সম্ভব। যার বিকৃত প্রতিক্রিয়া সারাদেশে ফুটে উঠতে শুরু করেছে। আজ বাঁশখালীতে বিক্ষোভরত শ্রমিকদের ওপর গুলিবর্ষণ করে হত্যার ঘটনা নিঃসন্দেহে দেশে বিরাজমান দুঃশাসনেরই বহিঃপ্রকাশ। দেশে এখন সভ্যতা বিধ্বংসী অমানবিক শক্তির উত্থান ঘটেছে।'

তিনি বলেন, 'এর আগে ২০১৬ সালের ৪ এপ্রিল একই বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপনকে ঘিরে স্থানীয় জনসাধারণের ডাকা সমাবেশের ওপর পুলিশ হামলা চালিয়ে চারজন মানুষকে হত্যা করেছিল। আজ আবারও একই স্থানে পুলিশের গুলিবর্ষণ ও পাঁচজন শ্রমিক হত্যার ঘটনা কলঙ্কজনক ইতিহাস হয়ে থাকবে।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, 'আজ চট্টগ্রামের বাঁশখালীতে বিদ্যুৎ কেন্দ্রে শ্রমিকদের ওপর গুলি চালিয়ে পাঁচজনকে হত্যা ও ৩০ জনকে গুরুতর আহত করার নির্দয় ঘটনার সাথে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার আহবান জানাচ্ছি। নিহতদের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা এবং আহতদের সুস্থতা কামনা করছি। নিহতদের পরিবারকে যথাযথ ক্ষতিপূরণ প্রদানেরও আহবান জানাচ্ছি।'

কেএইচ/জেডএইচ/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]