কুয়েতে বাংলাদেশি স্কুল না থাকায় সমস্যায় শিক্ষার্থীরা

সাদেক রিপন
সাদেক রিপন সাদেক রিপন , কুয়েত প্রতিনিধি কুয়েত
প্রকাশিত: ০৬:১২ পিএম, ০৪ মে ২০১৯

সারা বিশ্বে প্রায় ১ কোটিরও বেশি প্রবাসী বাংলাদেশির বসবাস। উন্নত জীবনের আশায় প্রতিনিয়ত বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বাংলাদেশিরা পাড়ি জমাচ্ছেন। প্রবাসে পরিবার নিয়েও থেকে যাচ্ছেন অনেকে। বাংলাদেশি স্কুল না থাকায় পরবাসীদের ছেলে-মেয়েদের পড়াশোনায় সমস্যা দেখা দিয়েছে।

kue4.jpg

‘কুয়েতে বাংলাদেশি ছেলে-মেয়েদের পড়াশোনার বড়ই সমস্যা। দেশটিতে কোনো বাংলাদেশি প্রতিষ্ঠান এখনো পর্যন্ত গড়ে উঠেনি। ভারত, পাকিস্তানসহ বাহিরের অন্যান্য দেশের স্কুলগুলোতে বাংলাদেশি শিক্ষার্থীদের পড়তে হয়। সেখানে শিক্ষার খরচও অনেক বেশি। ফলে প্রবাসীদের আয়ের সঙ্গে খরচ বহন করা কষ্টকর হয়ে যায়।’

kue4.jpg

শুক্রবার ৩ মে বাংলাদেশ দূতাবাস কুয়েত আয়োজিত বৈশাখী মেলা ১৪২৬ উদযাপন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রবাসী লক্ষ্মীপুর (রায়পুর-২) আসনের সংসদ সদস্য কাজী শহিদ ইসলাম পাপুল এসব বলেন।

তিনি বলেন, ‘কুয়েতে বাংলাদেশি একটি স্কুল প্রতিষ্ঠায় রাষ্ট্রদূত চেষ্টা করে যাচ্ছেন। সরকার থেকে অনুদান পেলে বাকিটা আমরা যারা ব্যবসায়ী আছি সবাই মিলে সহযোগিতা করব।’

kue4.jpg

কুয়েতে নিযুক্ত বাংলাদেশি রাষ্ট্রদূত এস এম আবুল কালামের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কাজী শহিদ ইসলাম পাপুল (এম.পি)। এ ছাড়া উপস্থিত ছিলেন কাউন্সিলর দূতালয় প্রধান মোহাম্মদ আনিসুজ্জামান, কাউন্সিলর পাসপোর্ট ও ভিসা সচিব জহিরুল ইসলাম খান, প্রশাসনিক কর্মকর্তা মিজানুর রহমান, সাজেদুল ইসলামসহ বাংলাদেশ কমিউনিটি নেতারা।

উপস্থিত ছিলেন সামাজিক, সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতাকর্মীরাসহ বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ার সংবাদকর্মীরা। দুপুরে দূতাবাসে কুয়েতে প্রবাসী বাংলাদেশি রমণীদের হাতে তৈরি নানা রকমের স্বাদের পিঠা ও মিষ্টিতে মুখরিত হয়ে উঠে মেলা প্রাঙ্গণ।

kue4.jpg

পান্তা, ইলিশ মরিচ ভর্তাসহ নানা ধরনের খাবারের আয়োজনে মনে হয় এ যেন একখণ্ড বাংলাদেশ। সন্ধ্যায় মাল্টিপারপাস হল রুমে জাতীয় সংগীতের মধ্য দিয়ে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান শুরু হয়। এরপর কবিতা আবৃত্তি, নৃত্য, জারি, সারি ও বাউল দেশাত্ববোধক গানে মঞ্চ মাতিয়ে তুলেন কুয়েত প্রবাসী শিল্পীরা গোষ্ঠীরা।

এমআরএম/এমএস

প্রবাস জীবনের অভিজ্ঞতা, ভ্রমণ, গল্প-আড্ডা, আনন্দ-বেদনা, অনুভূতি, স্বদেশের স্মৃতিচারণ, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক লেখা পাঠাতে পারেন। ছবিসহ লেখা পাঠানোর ঠিকানা - [email protected]

আপনার মতামত লিখুন :