মুখে মিষ্টি কথা অন্তরের ভিন্নতা মুনাফেকি


প্রকাশিত: ০৫:১৯ এএম, ২৬ ডিসেম্বর ২০১৬

আল্লাহ তাআলা হজের সময়ের করণীয় বর্ণনার পর মুমিন এবং কাফিরদের অবস্থা বর্ণনা করেছেন। প্রথমেই আল্লাহ তাআলা মুনাফিকদের বিষয়টি স্পষ্ট করে তুলে ধরেছেন। মুনাফিকরা মুসলমানদের সঙ্গে প্রকাশ্যে মিষ্টি কথা বলে কিন্তু অন্তরে কপটতা পোষণ করে। আল্লাহ তাআলা এ সব মুনাফিকদেরকে ইসলমের দুশমন বলে আখ্যায়িত করেছেন। এ আয়াতে মুনাফিকদের ব্যাপারে মুমিনদেরকে সতর্ক করে দিয়ে বলেন-

Quran

আয়াতের অনুবাদ

Quran

আয়াত পরিচিতি ও নাজিলের কারণ
সুরা বাকারার ২০৪ নং আয়াতে আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহকে মুনাফিকদের ভয়াবহ কপটতা ও ষড়যন্ত্র থেকে হিফাজত থাকতে সতর্ক করেছেন। মুনাফিকরা ইসলাম ও মুসলমানদের সঙ্গে ভালো ভালো কথা বলবে ঠিকই তারা অন্তরে কপটতা পোষণ করে মুসলমানদেরকে বিপদের পথে ঠেলে দেবে।  কারণ তারা ইসলামের শত্রু।

আয়াতে বর্ণনা করা হয়েছে যে, মুনাফিকরা প্রকাশ্যে মুসলমানদের সঙ্গে মিষ্টি মিষ্টি কথা বলে অথচ ইসলাম এবং মুসলমানদের ব্যাপারে শত্রুতা পোষণ করে।

প্রকাশ্যে প্রিয়নবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের খোশামোদ, আন্তরিকতা এবং আনুগত্য প্রদর্শন করে। তাদের আন্তরিকতার ওপর আল্লাহ তাআলাকে সাক্ষী রাখে এবং বলে আমরা খাঁটি মুসলমান। তারা বলে আমরা জীবন দিয়ে ইসলামকে ভালোবাসি। মূলত তারা মুনাফিক। তারা ছিল কলহ প্রিয়। তারা ছিল সুযোগ সন্ধানী। সুযোগ পেলেই তারা লুটতরাজ করতো এবং বিভিন্ন বিষয়ে ফেতনা-ফাসাদ সৃষ্টি করতো।

অধিকাংশ তাফসিরে এসেছে যে, আয়াতটি ‘আখনাস ইবনে শরাইখ মখফি’ সম্পর্কে নাজিল হয়েছে। সে প্রকৃত পক্ষে মুনাফিক ছিল। প্রকাশ্যে ইসলামের কথা বলতো অথচ অন্তরে ইসলামের বিরোধিতা করতো। অথচ সে ছিল অত্যন্ত সুবক্ত। প্রাঞ্জলভাষী। সে রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের দরবারে এসে ইসলামের প্রতি তার আন্তরিক ভালোবাসার কথা বলে বেড়াতো।

পড়ুন- সুরা বাকারার ২০৩ নং আয়াত

পরিষেশে...
ইসলামের বিরোধিতায় মুনাফিকদের কাজ থেমে নেই। কুরআন এবং হাদিসের বিদ্বেষীদের সব ষড়যন্ত্র ও চমৎকার কথাবার্তা ফাঁদে পড়ে ঈমান-আমল বরবাদ করা যাবে না। কুরআন সুন্নাহর আলোকে ইসলামি অনুশাসন মেনে চলতে হবে। মানুষ যাতে মুনাফিকদের মিষ্টি কথা ও প্রাঞ্জলভাষায় মায়া জালে আবদ্ধ হয়ে ঈমানহারা না হয়, সে জন্যই কুরআনের এ আয়াতে মুসলিম উম্মাহ সতর্ক বার্তা।

আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহকে মুনাফিকদের মিষ্টি আচরণ, প্রাঞ্জলভাষা এবং উত্তম ব্যবহারের ফাঁদ থেকে হিফাজত করুন। কুরআন-সুন্নাহর বিধান বাস্তবায়নের তাওফিক দান করুন। আমিন।

এমএমএস/পিআর

আপনার মতামত লিখুন :