ছাত্রলীগ নেতা রাকিব হত্যার মূলহোতা এখনও অধরা

জসীম উদ্দীন
জসীম উদ্দীন জসীম উদ্দীন , নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৮:২৩ পিএম, ১২ জানুয়ারি ২০১৯

রাজধানীর মহাখালীতে ছাত্রলীগের ১৯ নম্বর ওয়ার্ড (বনানী) সভাপতি তানজিল হোসেন রাকিবকে (২৭) কুপিয়ে হত্যার এক মাস পার হলেও মূল অভিযুক্ত সজিবকে এখনও গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ।

নিহতের পরিবারের দাবি, মামলার তদন্তে পুলিশের গাফিলতি রয়েছে। তারা চাইলে দ্রুত মূল অভিযুক্তকে গ্রেফতার করা সম্ভব।

তবে পুলিশ বলছে, ঘটনার পর থেকে ত্রিমুখী কারণ খতিয়ে দেখছে পুলিশ। গত তিনদিন আগে একজনকে গ্রেফতার করে রিমান্ডে এনে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। হত্যায় জড়িত থাকার কথা স্বীকারও করেছে সে। খুব শিগগির মূল হোতাকেও গ্রেফতার করা সম্ভব হবে।

jagonews

প্রসঙ্গত গত ৬ ডিসেম্বর রাত ১২টার দিকে রাজধানীর মহাখালী টিএনটি কলোনী মাঠে ব্যাডমিন্টন খেলা শেষে ফেরার পথে নিজ বাসার কাছেই সঙ্গী নূর হোসেনসহ অতর্কিত হামলার শিকার হন রাকিব। পরে স্থানীয়দের সহযোগিতায় অচেতন অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক রাকিবকে মৃত ঘোষণা করেন। নূর ইসলামকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

লাশের সুরতহাল প্রতিবেদনে পুলিশ জানায়, রাকিবের ঠোঁটের বাম কোণ থেকে বাম চোয়ালসহ থুতনি পর্যন্ত গভীর জখম, মাথার পেছনে কয়েক জায়গায় ও ঘাড়ে গভীর জখম, বাম হাতের কনুই, কব্জি ও বুকের কয়েক জায়গায় জখম রয়েছে।

এ ঘটনায় বনানী থানায় বাদী হয়ে হত্যা মামলা করেন নিহতের বাবা আলতাফ হোসেন (মামলা নং ৬)। মামলার আসামিদের মধ্যে স্বেচ্ছাসেবক লীগের সমর্থক শফিকুল ইসলাম সজিব ও জসিমের নামসহ অজ্ঞাতদের উল্লেখ করা হয়েছে।

পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, রাকিবের বাবা আলতাফ হোসেন ঢাকায় বিটিসিএলের লাইনম্যানের চাকরি করেন। তাদের গ্রামের বাড়ি বরিশালের বাবুগঞ্জ উপজেলার চন্ডপাড়ায়। দুই ভাই ও বোনের মধ্যে রাকিব মেঝো। পরিবারের সঙ্গে মহাখালী বিটিসিএল কলোনীর কল্যাণ-৬০৪ নম্বর বাসায় থাকত।

তেজগাঁও কলেজ থেকে ব্যবস্থাপনা বিভাগে ফার্স্ট ক্লাস নিয়ে বিবিএ পাসের পর সরকারি তিতুমীর কলেজে এমবিএ ভর্তির আবেদন করেন।

যোগাযোগ করা হলে নিহতের ভাই তারেক হোসেন জাগো নিউজকে বলেন, রাকিব হত্যার এক মাস পার হয়েছে। মাত্র একজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। মূল অভিযুক্ত এখনো গ্রেফতার হয়নি। পরিবারের পক্ষ থেকে যোগাযোগ করা হলে পুলিশ নির্বাচনী নানা ব্যস্ততার কথা জানায়। এখন নির্বাচন শেষ আমরা চাই দ্রুত সময়ের মধ্যে রাকিব হত্যার মূল হোতা সজিবকে গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা করা হোক।

jagonews

মামলার বাদী নিহত রাকিবের বাবা আলতাফ হোসেন বলেন, ছেলে হারানোর শোক কাটিয়ে উঠা সম্ভব তখনই যখন দেখব খুনি গ্রেফতার হয়েছে। সর্বোচ্চ সাজা পেয়েছে। দুঃখজনক হলেও সত্য যে এখনো সেই কাজটি পুলিশ করতে পারেনি।

এ ব্যাপারে বনানী থানার পরিদর্শক (অপরেশন) মো. সাইহান ওলিউল্লাহ জাগো নিউজকে বলেন, বনানী ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সভাপতি রাকিব হত্যার ঘটনাটি খুবই গুরুত্বের সঙ্গে দেখা হচ্ছে। ঘটনায় জড়িত বিল্লালকে গ্রেফতারের পর রিমান্ডে এনে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। খুব দ্রুত সময়ের মধ্যে মামলার অগ্রগতি জানতে পারবেন।

বনানী থানার এক কর্মকর্তা জানান, জিজ্ঞাসাবাদে রাকিব হত্যার চাঞ্চল্যকর তথ্য দিয়েছে বিল্লাল। খুব শিগগির তদন্তের অগ্রগতি জানতে পারবেন।

জেইউ/এএইচ/আরআইপি

আপনার মতামত লিখুন :