প্রবেশন ও মধ্যরাতের আদালত জিতেছে হৃদয়

মুহাম্মদ ফজলুল হক
মুহাম্মদ ফজলুল হক মুহাম্মদ ফজলুল হক , নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৯:০০ এএম, ২৯ ডিসেম্বর ২০২০

বিদায়ের দ্বারপ্রান্তে ২০২০ সাল। দেশের বিচারাঙ্গনের ইতিহাসে ঘটনাবহুল ছিল বছরটি। করোনা মহামারির মধ্যে ভার্চুয়ালি সুপ্রিম কোর্টের কার্যক্রম পরিচালনা, দুই অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেলের পদত্যাগ, বৃদ্ধ মায়ের সেবা ও ছেলে-মেয়ের লেখাপড়া করানোর শর্তে আসামিকে প্রবেশন প্রদান ছিল আলোচনায়। মানবিক ইস্যুতে স্বপ্রণোদিত হয়ে মধ্যরাতে আদালত বসিয়ে বিচারকদের আদেশ দেয়ার বিষয়গুলোও ছিল নাড়া দেয়ার মতো।

বিদায়ের লগ্নে ফিরে দেখা যাক ২০২০ সালে সর্বোচ্চ আদালতের আলোচিত ঘটনাগুলো।

ভার্চুয়াল কোর্ট
দেশে করোনা মহামারি দেখা দিলে স্বাস্থ্যবিধি মানার নির্দেশনার কারণে ১২ মার্চের পর থেকে দেশের সর্বোচ্চ আদালতের সব ধরনের বিচার কার্যক্রম বন্ধ হয়ে যায়। ৯ মে ভার্চুয়াল কোর্ট সম্পর্কিত এক অধ্যাদেশ জারি হয়। অধ্যাদেশে বলা হয়, সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ বা ক্ষেত্রমত হাইকোর্ট বিভাগ, সময়, প্র্যাকটিস নির্দেশনা (বিশেষ বা সাধারণ) জারি করতে পারবে। এরপর ১০ মে ভিডিও কনফারেন্সে সব বিচারপতির বৈঠকের পর (ফুলকোর্ট) ভার্চুয়াল কোর্ট চালুর সিদ্ধান্ত হয়। পরে ৮ জুলাই বিলটি সংসদে পাস হয়। ১৯ জুলাই থেকে সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগে সব কার্যদিবসে ভার্চুয়ালি বিচারকাজ পরিচালনার নির্দেশনা জারি হয়।

jagonews24

করোনাকালে দেশে চালু হয় ভার্চুয়াল কোর্ট

২০ ডিসেম্বর আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক জানান, ভার্চুয়াল কোর্টে ৭২ হাজার মামলা নিষ্পত্তি হয়েছে

দুজন অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেলের পদত্যাগ
২০০৯ সাল থেকে রাষ্ট্রের ১৫তম অ্যাটর্নি জেনারেলের দায়িত্ব পালন করা মাহবুবে আলম গত ২৭ সেপ্টেম্বর ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। এরপর গত ৮ অক্টোবর সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি আবু মুহাম্মদ (এএম) আমিন উদ্দিনকে দেশের ১৬তম অ্যাটর্নি জেনারেল হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয়। এরপর ব্যক্তিগত কারণ দেখিয়ে ১১ অক্টোবর দুই অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেল মুরাদ রেজা ও মো. মোমতাজ উদ্দিন ফকির পদত্যাগ করেন।

২০ বছর আগের মামলার তথ্য তলব
জেলা ও দায়রা জজ আদালত এবং ট্রাইব্যুনালে ১০ থেকে ২০ বছরের বেশি সময় ধরে চলা মামলার তালিকা গত নভেম্বরে প্রকাশিত এক রায়ে তলব করেন হাইকোর্ট। রাবেয়া খাতুন নামে অশীতিপর এক বৃদ্ধা আসামিকে অস্ত্র মামলা থেকে অব্যাহতি দেয়া পূর্ণাঙ্গ রায়ে এ তালিকা চাওয়া হয়। jagonews24পদত্যাগী দুই অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেল মুরাদ রেজা ও মো. মোমতাজ উদ্দিন ফকির

রায়ের বিষয়ে আইনজীবী আশরাফুল আলম নোবেল জানান, রায় পাওয়ার ছয় মাসের মধ্যে ১০ থেকে ১৫ বছর, ১৫ থেকে ২০ বছর ও ২০ থেকে তার অধিককাল সময় বিচারাধীন মামলার তথ্য-উপাত্ত সংগ্রহ করে সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেলের কাছে তা দাখিল করতে আইন সচিবকে বলা হয়।

অবৈধ অস্ত্র ও গুলিসহ তেজগাঁও থানার গার্ডেন রোডের একটি বাসা থেকে ২০০২ সালের জুন মাসে রাবেয়া খাতুনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। একই বছরের ১৯ সেপ্টেম্বর রাবেয়া খাতুন ও মামলার অন্য আসামি জুলহাসের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দেয় পুলিশ। এরপর ২০০৩ সালের ২৪ মার্চ অভিযোগ গঠন করা হয়। পরে এ মামলায় ছয়জনের সাক্ষ্যগ্রহণ করা হয়।

এ মামলার বিচার দীর্ঘ ১৬ বছরেও সম্পন্ন না হওয়ায় এ নিয়ে একটি জাতীয় দৈনিকে ‘অশীতিপর রাবেয়া: আদালতের বারান্দায় আর কত ঘুরবেন তিনি’ শিরোনামে প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। এ প্রতিবেদন যুক্ত করে হাইকোর্টে রিট আবেদন করার পর রাবেয়া খাতুনকে অব্যাহতি দিয়ে রায় দেন বিচারপতি জাহাঙ্গীর হোসেন সেলিম ও বিচারপতি মো. রিয়াজ উদ্দিন খানের হাইকোর্ট বেঞ্চ।

মধ্যরাতে জাগ্রত আদালত
দেশে মধ্যরাতে আদালত বসানোর ঘটনা আগে থেকেই ছিল। তবে বিদায়ী বছর গভীর রাতে আদালত বসানোর ঘটনা ছিল ব্যতিক্রম। এটিকে ঠিক ভার্চুয়াল আদালতের রায়ও বলা যাবে না। ফোনে ফোনে আদালত তার কার্যক্রম সম্পন্ন করেছেন।jagonews24মরহুম মোস্তফা জগলুল ওয়াহিদের দুই মেয়ে মুশফিকা মোস্তফা ও মোবাশশেরা মোস্তফা

এর মধ্যে একটি হলো দুই শিশুকে তাদের বাবার বাড়িতে ঢুকতে দেয়ার আদেশ। সাবেক অ্যাটর্নি জেনারেল প্রয়াত ব্যারিস্টার কে এস নবীর দুই নাতিকে তাদের বাবা সিরাতুন নবীর বাড়িতে ঢুকতে না দেয়ার বিষয়ে ৩ অক্টোবর রাতে একটি টেলিভিশন টকশোতে আলোচনা হলে তা নজরে আসে আদালতের। তৎক্ষণাৎ স্বপ্রণোদিত হয়ে হাইকোর্টের বিচারপতি আবু তাহের মো. সাইফুর রহমান ও বিচারপতি মো. জাকির হোসেন ওই দুই শিশুকে তাদের পৈতৃক বাড়িতে পৌঁছে দিতে এবং তাদের পর্যাপ্ত নিরাপত্তা নিশ্চিত করার আদেশ দেন।

রাতে আরেকটি আদেশ ছিল দুই বোনকে তাদের বাবার গুলশানের বাড়িতে ঢুকতে দেয়ার বিষয়ে। গুলশান-২ এর বাসিন্দা মরহুম মোস্তফা জগলুল ওয়াহিদের দুই মেয়ে মুশফিকা মোস্তফা ও মোবাশশেরা মোস্তফাকে তাদের বাবার বাড়িতে প্রবেশে বাধা দিচ্ছিলেন ‘সৎমা’। বিষয়টি সংবাদমাধ্যমে এলে ২৬ অক্টোবর হাইকোর্টের বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি আহমেদ সোহেলের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ ওই দুজনকে তাদের বাবার বাড়িতে প্রবেশে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে পুলিশকে নির্দেশ দেন।

এছাড়া বরিশালে ছয় বছরের শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার চার শিশুকে মুক্তি দিয়ে ৯ অক্টোবর রাতে দেয়া আদেশও আলোচনায় আসে।

মা-বাবার সেবাসহ নানা শর্তে প্রবেশনের রায়
আইনে প্রবেশন (পরীক্ষাকাল) সুবিধা অনেক আগে থেকেই থাকলেও বিদায়ী বছরে এ সংক্রান্ত কিছু রায় বেশ আলোচনা তুলেছে। এর মধ্যে সবচেয়ে আলোচনায় এসেছে গত ৮ নভেম্বর দেয়া এক আদেশ। সেদিন ইয়াবা মামলায় পাঁচ বছরের কারাদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি মতি মাতবরকে বৃদ্ধ মায়ের সেবাযত্ন করাসহ তিন শর্তে প্রবেশনে পরিবারের সঙ্গে থাকার অনুমতি দেন হাইকোর্ট, যা দেশের ইতিহাসে প্রবেশন আইনে হাইকোর্টের দেয়া দ্বিতীয় রায়। আদালত দেড় বছরের জন্য প্রবেশন মঞ্জুর করেন মতি মাতবরের।jagonews24পাঁচ বছরের কারাদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি মতি মাতবরকে বৃদ্ধ মায়ের সেবাযত্ন করাসহ তিন শর্তে প্রবেশন দেয়া হয়

তাকে দেয়া শর্তগুলো হলো— ৭৫ বছর বয়সী মায়ের যত্ন নিতে হবে; সন্তানের লেখাপড়া ও দেখাশোনা নিশ্চিত করতে হবে এবং আইন অনুযায়ী বয়স না হওয়া পর্যন্ত মেয়ের বিয়ে দিতে পারবেন না। দেড় বছরের জন্য তাকে একজন প্রবেশন কর্মকর্তার তত্ত্বাবধানে থাকতে হবে বলেও আদেশ দেন আদালত।

সুপ্রিম কোর্টে প্রথম আইনজীবী বহিষ্কার
দেশে প্রথম কোনো আইনজীবী হিসেবে ইউনুছ আলী আকন্দকে আইন পেশা পরিচালনায় গত ১২ অক্টোবর তিন মাসের জন্য নিষেধাজ্ঞা দেন আপিল বিভাগ। একই সঙ্গে তাকে ২৫ হাজার টাকা অর্থদণ্ডও করা হয়, যা অনাদায়ে ১৫ দিন জেল খাটতে হবে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে বিচার বিভাগ নিয়ে বিরূপ মন্তব্য করায় প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন সাত বিচারপতির পূর্ণাঙ্গ আপিল বেঞ্চ আদালত অবমাননার দায়ে তাকে এ দণ্ড দেন।

এছাড়া রায়ে আমৃত্যু উল্লেখ না করলে যাবজ্জীবন ৩০ বছর বলে দেয়া আদেশ, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সব ম্যুরালের (ভাস্কর্য) ও নির্মাণাধীন ম্যুরালের নিরাপত্তা নিশ্চিতে অবিলম্বে ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ, বিদেশে অর্থপাচারের সঙ্গে জড়িতদের যাবতীয় তথ্য অর্থাৎ দেশের বাইরে অর্থপাচারে সম্পৃক্তদের নাম, ঠিকানা, অর্থের পরিমাণ এবং পাচারের অর্থে বাড়ি তৈরির তথ্য তলব, গ্রিনলাইন পরিবহনের বাসের চাপায় পা হারানো প্রাইভেটকারচালক রাসেল সরকারকে ২০ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দেয়ার নির্দেশও আলোচনায় আসে।

এফএইচ/এমআরআর/এইচএ/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]