ফাইনাল জিততে সাকিবদের ৫ করণীয়

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ০২:০০ পিএম, ২৭ মে ২০১৮

রোববার আইপিএলের ফাইনালে চেন্নাই সুপার কিংসের বিপক্ষে খেলবে সাকিব আল হাসানের সানরাইজার্স হায়দরাবাদ। চলতি মৌসুমে হায়দরাবাদ অসাধারণ ক্রিকেট খেললেও প্রতিপক্ষ চেন্নাই এলেই অসহায় হয়েছেন সাকিবরা। এবারের আসরে ধোনি-রায়নাদের বিপক্ষে ৩ ম্যাচের ১টিতেও জিততে পারেননি সাকিব-রশিদরা।

অন্যদিকে হায়দরাবাদের বিপক্ষে দুর্দান্ত এই রেকর্ড নিয়ে ফাইনাল ম্যাচে মনস্তাত্ত্বিক লড়াইয়ে এগিয়ে থাকবে চেন্নাই। কিন্তু তাই বলে তো বিনা যুদ্ধেই ম্যাচ হেরে যেতে পারে না হায়দরবাদ। চেন্নাইয়ের বিপক্ষে টানা তিন ম্যাচের পরাজয়ের ধারা ভাঙতে সাকিবদের যা করণীয় তা দেখে নেয়া যাক:

একাদশ নির্বাচনে চাই দক্ষতা
নিজেদের সেরা একাদশ নির্বাচনে প্রায় প্রতি ম্যাচেই দ্বিধায় পড়ে যাচ্ছে হায়দরাবাদ। বোলিং ডিপার্টমেন্টে ভারসাম্য আনার লক্ষ্যে বিভিন্ন পরিবর্তন ঘটিয়ে উল্টো ক্ষতিই হয়েছে তাদের। দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার ম্যাচেও অভিষিক্ত খলিল আহমেদ এবং কার্লোস ব্রাথওয়েটের বাজে বোলিংয়ের কারণে হারার মুখে ছিল হায়দরাবাদ। অথচ খলিলকে সুযোগ দেয়ার জন্য তারা বসিয়ে রেখেছে স্বন্দ্বিপ শর্মার মতো পেসারকে এবং ব্রাথওয়েট খেলছেন উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান অ্যালেক্স হেলসের বদলে। অথচ ব্রাথওয়েট ছাড়াই ২০ ওভার বোলিং করার মতো বোলার রয়েছে হায়দরাবাদের একাদশে। এছাড়া টপঅর্ডারে হেলসের মতো মারকুটে ব্যাটসম্যান থাকলে ব্যাটিং ডিপার্টমেন্টেও স্থিতিশীলতা পেতে পারে হায়দরাবাদ। তাই ফাইনাল জিততে নিজেদের একাদশে এই দুইটি পরিবর্তন আনতেই পারেন সাকিবরা।

টপঅর্ডারে চাই ঝড়ো সূচনা
প্রথম পর্বের সেরা দল হয়ে প্লে’অফের টিকিট পেলেও ব্যাটিং ডিপার্টমেন্টের ব্যর্থতা ছিল চোখে পড়ার মতো। অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন ব্যতীত আর কেউই রান করতে পারেননি নিয়মিত। টুর্নামেন্টের শুরুতে মিডলঅর্ডার নিয়ে হায়দরাবাদের দুশ্চিন্তা থাকলেও, ক্রমেই তা চলে এসেছে টপঅর্ডারে। প্লে’অফ পর্বের দুই ম্যাচে পাওয়ার প্লে’তে মাত্র ৪৭ এবং ৪৫ রান করতে সক্ষম হয়েছে তারা। অথচ টি-টোয়েন্টি ম্যাচে বড় সংগ্রহ পেতে ঝড়ো সূচনার কোন বিকল্প নেই। তাই ফাইনাল ম্যাচ টপঅর্ডার ব্যাটসম্যানদের কাছ থেকে ঝড়ো শুরুর দিকে চেয়ে থাকবেন সাকিবরা।

রান তাড়ায় চাই সুনির্দিষ্ট পরিকল্পনা
চলতি মৌসুমে আগে ব্যাট করে যেকোন সংগ্রহ দাঁড় করিয়ে, পরে সেই রান ডিফেন্ড করার পরিকল্পনাতেই সাফল্য পেয়েছে হায়দরাবাদ। কিন্তু কখনো পরে ব্যাট করতে হলেই দেখা দেয় হায়দরাবাদের দৈন্যতা। ব্যাটিং ডিপার্টমেন্ট প্রায় পুরোটাই শিখর ধাওয়ান এবং কেন উইলিয়ামসন নির্ভর হওয়াতে রান তাড়ায় সমস্যায় পড়তে হয় তাদের। অথচ ফাইনালের ভেন্যু মুম্বাইতে রান তাড়া করে জয়ের পাল্লাই ভারী। তাই চেন্নাইয়ের বিপক্ষে ম্যাচে সাফল্য পেতে রান তাড়া করার জন্য সুনির্দিষ্ট পরিকল্পনা নিয়েই নামতে হবে সাকিবদের।

ডেথ ওভারের জন্য চাই স্পেশালিস্ট বোলার
চলতি আসরে রান ডিফেন্ড করে জয়ের হারই বেশি হায়দরাবাদের। তবু ডেথ ওভারে কোন বোলারদের রাখবেন তা নিয়ে ফি ম্যাচেই দ্বিধায় পড়েছেন অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন। প্রথম কোয়ালিফায়ারে এই হিসেবের ভুলেই চেন্নাইয়ের বিপক্ষে হেরেছিল হায়দরাবাদ। ফাইনাল ম্যাচেও এই একই ভুল করলে চলতি আসরে চেন্নাইয়ের বিপক্ষে চতুর্থ পরাজয় দেখতে হবে সাকিবদের। তাই ডেথ ওভারে কাদের রাখা হবে তা আগে থেকেই সুনির্দিষ্ট পরিকল্পনা করে রাখতে হবে সাকিবদের।

রশিদের ব্যাটিং স্বত্ত্বার পূর্ণ ব্যবহার
চলতি আইপিএলে খুব বেশি ব্যাটিং করার সুযোগ পাননি আফগানিস্তানের লেগস্পিনার রশিদ খান। তবে যখনই ব্যাট হাতে সুযোগ পেয়েছেন, দেখিয়েছেন নিজের ব্যাটিং সামর্থ্য। দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার ম্যাচে রশিদের ১০ বলে করা ৩৪ রানের ইনিংসেই জয়ের ভীত পায় হায়দরাবাদ। তাই রান তাড়া করার ক্ষেত্রে রশিদের ব্যাটিং স্বত্ত্বাকে আরও বেশি ব্যবহার করতে পারে হায়দরবাদ। ক্যারিবিয়ান স্পিনার সুনিল নারিনকে দিয়ে ইনিংস সূচনা করে সাফল্য পেয়েছে কলকাতা নাইট রাইডার্স। একই পথে হেটে হায়দরাবাদও নিজেদের জয়ের সম্ভাবনা বাড়িয়ে নিতে পারে।

এসএএস/জেআইএম

আপনার মতামত লিখুন :