‘সাব্বির-নাসির, এরা বুড়া হয়ে গেছে’

ক্রীড়া প্রতিবেদক ক্রীড়া প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৮:৫৮ পিএম, ৩০ আগস্ট ২০১৮

এশিয়া কাপের প্রস্তুতি শুরু হওয়ার পর থেকেই জমজমাট মিরপুর ক্রিকেট স্টেডিয়াম। ক্রিকেটার, কোচ, কর্মকর্তাদের সঙ্গে একঝাঁক সাংবাদিকের আনাগোনা সারাক্ষণই লেগে থাকে মিরপুর জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে। তবে অন্যদিনের তুলনায় আজ (বৃহস্পতিবার) দুপুরের পর থেকে আনাগোনাটা একটু বেশিই বেড়ে যায়। সাংবাদিকদের মধ্যেও চাঞ্চল্যভাব বেড়ে যায়।

কয়েকটি কারণে। একটি হচ্ছে, আগেরদিন রাতেই হজ করে দেশে ফিরে এসেছেন সাকিব আল হাসান। বিসিবি প্রেসিডেন্টের সঙ্গে আজই তিনি বৈঠক করেছেন আঙ্গুলে অস্ত্রোপচার নিয়ে। এরপর বিসিবি প্রেসিডেন্ট চলে আসেন মিরপুরে বিসিবি কার্যালয়ে। সেখানে বৈঠক করেন তিনি বিসিবি প্রধান নির্বাহী নিজামউদ্দিন চৌধুরী সুজন, ক্রিকেট অপারেশন্স কমিটির চেয়ারম্যান আকরাম খানসহ বেশ কয়েকজন সিনিয়র পরিচালকের সঙ্গে।

গুঞ্জন ছড়িয়ে পড়ে, বৈঠকে সাব্বির, নাসির এবং মোসাদ্দেকের বিষয়েও আলোচনা হবে। শৃঙ্খলা ভঙ্গের যে সব অভিযোগ এই ক্রিকেটারদের নামে উঠছে, সে সব সম্পর্কে আলোচনা হবে ওই বৈঠকে। আলোচনা হওয়ার কথা এশিয়া কাপ নিয়েও। সাকিবের আঙ্গুলে অস্ত্রোপচারের বিষয়টি তো থাকছেই।

বৈঠক থেকে বেরিয়ে এসে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন বিসিবি প্রধান। শুরুতে জানতে চাওয়া হয়, কি নিয়ে মিটিং করেছেন তিনি? পাপন জানালেন, এটা মিটিং ছিল না। এমনিতে এসেছেন বিসিবিতে। সেখানে খেলোয়াড়দের সঙ্গে কথা হলো। এশিয়া কাপের স্কোয়াড এপ্রোভাল দিলেন।

এরপরই জানতে চাওয়া হয় সাব্বিরের সম্পর্কে। পাপন বলেন, ‘সাব্বিরকে তো ডিসিপ্লিনারি কমিটি থেকে ডাকা হয়েছে। এটার পরে সিদ্ধান্ত হবে। আর এখন তো সে স্কোয়াডে নাই, অবশ্য এর তো একটা প্রভাব আছেই।’

বিসিবি প্রধানের কাছে প্রশ্ন ছিল, সাব্বিরের বিরুদ্ধে অ্যাকশন কি রকম হতে পারে? জবাবে তিনি বলেন, ‘ওরা (ডিসিপ্লিনারি কমিটিতে) কথা বলেই নেবে। কথা না বলে, একজনকে আত্মপক্ষ সুযোগ না দিয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া ঠিক হবে না। সে জন্য ওরা (ডিসিপ্লিনারি কমিটি) ডেকেছে। কথা বলে সিদ্ধান্ত নেবে। যেটা হওয়া উচিৎ তেমন সিদ্ধান্তই আসবে।’ এর পরই পাপন জানান ডিসিপ্লিনারি কমিটিতে ডাকা হয়েছে তিনজনকে (সাব্বির, নাসির এবং মোসাদ্দেক)।

এরপরই পাপনের কাছে প্রশ্ন, ডিসিপ্লিনারি কমিটির সিদ্ধানে জুনিয়রদের পারফরম্যান্সে প্রভাব ফেলবে কি না। পাপন জানতে চান, ‘জুনিয়র প্লেয়ার কাদের বলছেন?’ প্রশ্ন কর্তা বললেন, ‘সাব্বির... নাসির...।’

সঙ্গে সঙ্গেই পাপন বলেন, ‘এরা বুড়া হয়ে গেছে। এখনো যদি ওদের জুনিয়র বলেন, তিন বছর-চার বছর ধরে খেলতেছে একেকজন। জুনিয়র প্লেয়ার যদি বলেন তাহলে শান্ত (পাশে দাঁড়ানো জালাল ইউনুস যোগ করে দিলেন, মিরাজও জুনিয়র)। বাকিদের জুনিয়র বলার কারণ নাই।’

আইএইচএস/পিআর