কোচের পরামর্শে প্রিমিয়ারে নাও খেলতে পারেন তারকা ক্রিকেটাররা

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০১:২৯ এএম, ০৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

বিপিএলের আমেজ থাকতেই শুরু হয়ে গেছে ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন লিগ (ডিপিএল) ক্রিকেটের নতুন আসর শুরুর প্রস্তুতি। ব্যস্ত মৌসুমে বিপিএল শেষেই দেশের ক্রিকেট বরণ করে নেয়ার অপেক্ষায় রয়েছে প্রিমিয়ার লিগকে।

আগামী ২৫ ফেব্রুয়ারি মাঠে গড়াবে এবারের প্রিমিয়ার লিগ। এর আগে ১২ ফেব্রুয়ারি সম্পন্ন হবে দল বদলের আনুষ্ঠানিকতা। তবে জাতীয় দলের নিউজিল্যান্ড সফর থাকায় তারকা ক্রিকেটারদের উপস্থিতি সম্পর্কে সংশয়েই রয়েছে টুর্নামেন্ট আয়োজক কমিটি।

সম্ভব হলে সফর থেকে ফিরে প্রিমিয়ার লিগের শেষের দিকে তথা সুপার লিগে মাঠে নামতেও পারেন জাতীয় দলের ক্রিকেটাররা। তবে জাতীয় দলের প্রধান কোচ স্টিভ রোডস চাচ্ছেন জাতীয় দলের কেউই যাতে প্রিমিয়ার লিগ না খেলে।

বুধবার ঢাকা ডায়নামাইটসের বিপক্ষে দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার ম্যাচ শেষে জাগো নিউজকে এ তথ্য জানিয়েছেন বাংলাদেশ ওয়ানডে দলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা। আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলন শেষে ড্রেসিংরুমে ফেরার পথে জাগো নিউজের সঙ্গে একান্ত আলাপে প্রিমিয়ার লিগ সম্পর্কে নানান কথাই জানান।

মাশরাফি বলেন, 'কোচই আমাদের মানা করেছেন আমরা যারা জাতীয় দলের আছি তারা যেন প্রিমিয়ারে না খেলি। কারণ তিনি মনে করছেন এক মাস বিপিএল খেলার পর বিশ্রাম না নিয়েই যেতে হচ্ছে নিউজিল্যান্ডে। সেখানেও আবার ৪০ দিনের সফর। তা শেষ করে দেশে ফিরেই প্রিমিয়ারে খেলতে নেমে যাওয়াটা আমাদের ফিটনেসের জন্যই খারাপ হবে। এছাড়া বিশ্বকাপের আগে সবাইকে মানসিকভাবেও চাঙা দেখতে চান কোচ।'

এখনো প্রিমিয়ার লিগের ব্যাপারে তেমন কোনো তথ্য পাওয়া না গেলেও এরই মধ্যে একটি সাক্ষাৎকারে তামিম ইকবাল বলেছেন প্রিমিয়ার লিগ থেকে বিরতি চান তিনি। মাশরাফি জাগোনিউজকে জানিয়েছেন তিনিও প্রিমিয়ারের শুরু থেকে খেলবেন না। এছাড়া সাকিব আল হাসান চলে যাবেন আইপিএল খেলতে।

আর নিউজিল্যান্ডে টেস্ট সিরিজ শেষ করে দেশে ফিরতে মুশফিক, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, মেহেদি মিরাজদেরও লেগে যাবে মার্চের ২১-২২ তারিখ পর্যন্ত সময়। ফলে কোচের পরামর্শ মেনে প্রিমিয়ার লিগে তারা নাও খেলতে পারেন।

এআরবি/এসএএস/বিএ