শচীনের রান এক লাখ হতো, দাবি শোয়েবের

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৩:৫৭ পিএম, ২৯ জানুয়ারি ২০২২

ক্রিকেট মাঠে তাদের মধ্যে দ্বৈরথ ছিল। কিন্তু ভারতীয় মাস্টার ব্লাস্টার শচীন টেন্ডুলকারকে অন্য উচ্চতার ব্যাটার হিসেবেই মানেন শোয়েব আখতার। পাকিস্তানের সাবেক এই গতিতারকার মতে, এখনের দিনে খেললে শচীন এক লাখ রান করতে পারতেন।

আধুনিক ক্রিকেট অনেকটাই ব্যাটিং বান্ধব। তিনটি ডিআরএস, দুটি নতুন বল, বাউন্সারে বিধিনিষেধসহ ব্যাটারদের জন্য সবরকম সুবিধাই দিয়ে রেখেছে আইসিসি। এজন্য আন্তর্জাতিক ক্রিকেট সংস্থাটিকে এক হাত নিলেন শোয়েব।

নিজের ইউটিউব চ্যানেলে ভারতের সাবেক কোচ রবি শাস্ত্রীর সঙ্গে এক আলাপচারিতায় শোয়েব বলেন, ‘আপনি দুটি নতুন বল দিচ্ছেন। নিয়মগুলো কঠিন বানাচ্ছেন। এখনকার দিনে ব্যাটারদের জন্য অনেক বেশি সুবিধা দিচ্ছেন। তিনটি রিভিউ আছে। যদি শচীনের সময়ে তিনটি রিভিউ থাকতো, তবে তিনি এক লাখ রান করে ফেলতেন।’

শচীনের সময়ে তাকে তিনটি আলাদা প্রজন্মের সেরা বোলারদের খেলতে হয়েছে, তারপরও ব্যাটার হিসেবে তিনি খুবই কঠিন ছিলেন-এমন প্রশংসায় ভাসালেন শোয়েব।

পাকিস্তানের সাবেক গতিতারকার ভাষায়, ‘আমার তার জন্য মায়া হয়। মায়া হওয়ার কারণ, তিনি ওয়াসিম (আকরাম), ওয়াকার (ইউনুস), শেন ওয়ার্নের বিপক্ষে খেলেছেন; তারপর খেলেছেন (ব্রেট) লি এবং শোয়েবকে (আখতার)। তাকে পরের প্রজন্মের ফাস্ট বোলারদেরও মোকাবেলা করতে হয়েছে। এজন্য আমি তাকে বেশ কঠিন ব্যাটার বলে থাকি।’

শোয়েবের সঙ্গে আলাপে রবি শাস্ত্রীও মেনে নেন, বোলারদের ওভারে দুটি বাউন্সার করার বিধিনিষেধ প্রত্যাহার করা উচিত। শাস্ত্রী বলেন, ‘যদি আপনি ভারসাম্য আনতে চান, তবে দুটি বাউন্সারের নিয়ম রাখা উচিত হবে না। এটা বাড়ান। আমি এটা বলছি, কারণ ব্যাপারটা খুব রোমাঞ্চকর হবে।’

এমএমআর/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]