শেষ হলো ডিজিটাল ওয়ার্ল্ড

রফিক মজুমদার
রফিক মজুমদার রফিক মজুমদার , জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৬:৩২ পিএম, ০৯ ডিসেম্বর ২০১৭

ডিজিটাল ওয়ার্ল্ড ২০১৭-এর প্রধান আকর্ষণ ছিল হংকং থেকে আগত কৃত্তিম বুদ্ধিমত্তাসম্পন্ন রোবট সোফিয়া। সোফিয়া দর্শকদের নজর কাড়লেও প্রদর্শনীর শেষ দিকে মাতিয়েছে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের রোবটিক্স বিভাগের শিক্ষার্থীদের আবিষ্কার কৃত্তিম বুদ্ধিমত্তার রিভো নামের আরেকটি রোবট। রিভো শুধু কথা বলেই নয়, হাত নেড়ে এবং করমর্দন করে শেষ দিকে দর্শনার্থীদের বিনোদনের উপকরণ হয়।

sofia-৬ ডিসেম্বর ‘রেডি ফর টুমরো’ স্লোগানে দেশের তথ্যপ্রযুক্তির বড় এই প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন প্রধামন্ত্রী শেখ হাসিনা। শনিবার সমাপনী অনুষ্ঠানের মাধ্যমে জমজমাট আয়োজনের এবারের ডিজিটাল ওয়ার্ল্ডের সফল পরিসমাপ্তি ঘটলো।

বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রের হল অব ফেমে আজকের সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেন, প্রধানমন্ত্রীর দূরদর্শী নেতৃত্ব এবং তরুণদের প্রচেষ্টায় বাংলাদেশ এখন ডিজিটাল বাংলাদেশ। আগামী বাজেটে ইন্টারনেটের ওপর থেকে ভ্যাট কমানোর বিষয়টি অর্থমন্ত্রী বিবেচনায় রাখবেন বলে অনুষ্ঠানে জানান।

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, ঢাকা শহরে অসংখ্য গাড়ি। এজন্য জ্যাম হয়। এটাকে বলে ডেভেলপমেন্ট পেইন। তবে বিদেশিরা যখন আসেন তখন এর মধ্যেই সম্ভাবনা খোঁজেন। বিদ্যমান অবস্থা থেকে উন্নয়নের নতুন ধারায় প্রবেশের ফল এটা। এসব পরিবর্তনই চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের ইঙ্গিত দেয়, যা আমাদের দেশকে বদলে দেবে। বাড়বে দেশের অর্থনীতির পরিধি।

ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ইমরান আহমেদ এমপি তথ্যপ্রযুক্তির বিভিন্ন পণ্যের ওপর থেকে শুল্ক তুলে নেয়ার জন্য অর্থমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানান। এছাড়া আগামী বাজেটে তথ্যপ্রযুক্তি খাতের ওপর বিশেষ বরাদ্দ রাখার জন্য অথর্মন্ত্রীর প্রতি অনুরোধ জানান তিনি।

adআইসিটি বিভাগের সচিব সুবীর কিশোর চৌধুরী বলেন, এবারের ডিজিটাল ওয়ার্ল্ড জমকালো আয়োজনে শেষ হয়েছে। এতে ৫ লাখেরও বেশি দর্শনার্থী আমাদের আয়োজন সশরীরে উপভোগ করেছেন। অনলাইনে ১৯ লাখেরও বেশি মানুষ সম্পৃক্ত থেকেছেন।

বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেসের (বেসিস) সভাপতি মোস্তাফা জব্বার বলেন, এই মেলায় প্রথমবারের মতো মেড ইন বাংলাদেশ প্রোডাক্ট দেখাতে সক্ষম হয়েছি আমরা। এটি আমাদের বিশাল অর্জন। বাংলাদেশ এখন চতুর্থ শিল্প বিপ্লবে নেতৃত্বে দেয়ার মতো দেশ। আমাদের তরুণরা এখন ভুটান নেপালের সরকারের জন্য সফটওয়্যার রফতানি করে। জাপানেও আমাদের সফটওয়্যার রফতানি করা হয়।

আরএম/জেডএ

বিনোদন, লাইফস্টাইল, তথ্যপ্রযুক্তি, ভ্রমণ, তারুণ্য, ক্যাম্পাস নিয়ে লিখতে পারেন আপনিও - [email protected]