জীবন্ত রোবট, হাঁটতে ও সাঁতার কাটতে সক্ষম

তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক
তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক
প্রকাশিত: ১০:৪৫ এএম, ১৫ জানুয়ারি ২০২০

বিশ্বের প্রথম জীবন্ত রোবট তৈরি করলেন বিজ্ঞানীরা। জীবন্ত এ রোবটগুলো হাঁটতে পারে, সাঁতার কাটতে পারে। বাড়তি খাবার সরবরাহ ছাড়াই টানা কয়েক সপ্তাহ টিকে থাকতে পারে। ব্যাঙের স্টেম সেল ব্যবহার করে তৈরি করা এ রোবটের নাম দেয়া হয়েছে ‘জেনোবট’।

যুক্তরাষ্ট্রের ইউনিভার্সিটি অব ভারমন্ত ও টাফটস ইউনিভার্সিটির একদল গবেষক সুপার কম্পিউটারের মাধ্যমে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার (এআই) হাতে করা নকশা এবং গবেষণাগারে পৃথিবীর প্রথম জীবন্ত রোবট তৈরি করেছেন। আফ্রিকান এক প্রজাতির ব্যাঙের স্টেম সেল দিয়ে রোবটটি তৈরি করা হয়। এ রোবটের প্রস্থ ১ মিলিমিটারেরও কম।

ইউনিভার্সিটি অব ভারমন্ত জানায়, কাঙ্ক্ষিত গঠন দেয়ার পর কোষগুচ্ছটি নিজে থেকেই তৎপর হয়ে ওঠে। ত্বকের কোষগুলো এর শরীরের কাঠামো গঠন করে। আর হৃদপেশির কোষগুলোর স্পন্দন দেয় চলৎশক্তি। এমনকি এর আছে স্বনিরাময় ক্ষমতা। বিজ্ঞানীরা একটি রোবটকে কেটে দুই টুকরো করার পর দেখেন তা নিজে থেকে পূর্বরূপে ফেরত আসে এবং চলতেও থাকে।

গবেষকরা বলছেন, জেনোবট কোনো গতানুগতিক রোবট নয়, আবার কোনো সাধারণ প্রাণীও নয়। এরা হলো ‘জীবন্ত যন্ত্র’। এরা একই সঙ্গে জীবন্ত এবং যন্ত্রের মতো প্রোগ্রামযোগ্য। এছাড়া গাঠনিক দিক থেকেও জেনোবটগুলো প্রচলিত রোবটের মতো নয়। এদের কোনো চকচকে গিয়ার বা রোবটিক বাহু নেই। দেখতে গোলাপি রঙের চলন্ত ক্ষুদ্র মাংসপিণ্ডের মতো। এ রোবট এমন কিছু কাজ করতে সক্ষম যা স্টিল বা প্লাস্টিকের রোবট দিয়ে সম্ভব নয়।

গবেষণার সঙ্গে যুক্ত যুক্তরাষ্ট্রের টাফট বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যালেন ডিসকভারি সেন্টারের পরিচালক মিশেল লেভিন বলেছেন, মানব সভ্যতার ইতিহাসে এবারই প্রথম একটি জীবন্ত যন্ত্র তৈরি সম্ভব হলো।

সূত্র : গার্ডিয়ান

আরএস/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]