গোলাপ গ্রামে কীভাবে যাবেন ও কী দেখবেন?

ভ্রমণ ডেস্ক
ভ্রমণ ডেস্ক ভ্রমণ ডেস্ক
প্রকাশিত: ১২:৫৯ পিএম, ১৯ জানুয়ারি ২০২২

ঢাকার কাছাকাছি ভ্রমণের আদর্শ এক স্থান হলো গোলাপ গ্রাম। একটু মুক্ত হাওয়া আর স্বস্তির নিঃশ্বাস নিতে ছুটির দিনে ঘুরে আসতে পারেন ঢাকার অদূরে সাভারের বিরুলিয়া ইউনিয়নের গোলাপ গ্রামে। শীতকালই হলো গোলাপ গ্রাম ভ্রমণের সেরা সময়।

এই ইউনিয়নের সাদুল্লাহপুর, শ্যামপুর, মোস্তাপাড়া গ্রামজুড়ে আছে গোলাপের রাজ্য। যতদূর চোখ যায় দেখতে পাবেন গোলাপ আর গোলাপ। তুরাগ নদীর তীরে মিরপুর বেড়িবাঁধের পশ্চিম পাশে অবস্থিত সাদুল্লাহপুর, শ্যামপুর, মোস্তা পাড়া গ্রাম।

সাদুল্লাহপুর গ্রামটি এককালে ভাওয়াল রাজার অধীনস্থ ছিল। মিরপুরের দিয়াবাড়ি থেকে ট্রলারে উঠলে ৩০ মিনিটের মধ্যেই পৌঁছে যাবে গোলাপের স্বর্গরাজ্যে। বাণিজ্যিকভাবে উৎপাদিত গোলাপ ঢাকাসহ সারাদেশে সরবরাহ করা হয়।

বর্তমানে শহরবাসীর কাছে ভ্রমণের জন্য বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে এই গোলাপ গ্রাম। খুব অল্প খরচেই ঘুরে আসা যায় এই গ্রাম থেকে। গ্রামের আঁকাবাঁকা সরু পথের পাশ ঘেঁষে অসংখ্য গোলাপের বাগান দেখতে পাবেন সেখানে গেলে।

গ্রামের ৯০ ভাগ স্থানীয়দের পেশা গোলাপ চাষ। যা পুরো গ্রামজুড়ে সারা বছর হয়। পুরো গ্রামে নানা রঙের গোলাপ ফুল দিয়ে ঘেরা। সেখানে গোলাপ ছাড়াও জারভারা, গস্নাডিওলাসু ফুল চাষ হয়।

কীভাবে যাবেন গোলাপ গ্রামে?

ঢাকার খুব কাছেই সাভারে তুরাগ তীরে সাদুল্লাপুর। ঢাকার যে কোনো জায়গা থেকেই প্রথমে যেতে হবে গাবতলী। এরপর গাবতলী বাসস্টান্ড থেকে যে কোনো বাসে সাভার বাসস্ট্যান্ডের ওভারব্রিজের নিচে নেমে ওভারব্রিজ পাড় হয়ে পূর্ব দিকের বিরুলিয়া ইউনিয়নের রাস্তায় যেতে হবে।

সেখান থেকে ব্যাটারিচালিত হ্যালো বাইকে করে ভাড়া ২০ টাকায় পৌঁছে যাবেন স্বপ্নের মতো সুন্দর গোলাপ গ্রামে।

এ ছাড়াও মিরপুর শাহআলী মাজারের সামনে কোনাবাড়ী বাসষ্ট্যান্ড থেকে বাসে করে আকরান বাজার। ভাড়া পড়বে ২০ টাকা। সেখান থেকে ১০ টাকা অটো ভাড়ায় সাদুল্লাহপুর গ্রামে যেতে পারবেন। নিজস্ব পরিবহনে যেতে চাইলে এই পথ দিয়ে যাওয়া যাবে।

সাভার থেকে যেতে চাইলে সাভার চৌরংগী মার্কেটের সামনে থেকে লেগুনা বা মিনি বাস যায় আকরান বাজার। সেখান থেকে অটোতে সাদুল্লাহপুর গ্রাম।

যারা সাঁতার জানেন না তারা নৌকাপথে যাওয়ার ক্ষেত্রে বিশেষ সতর্ক থাকবেন। আর যারা নৌপথে ভ্রমণ করবেন তারা সন্ধ্যা ৭টার মধ্যে ফেরার চেষ্টা করবেন।

গোলাপ বাগানে গিয়ে গোলাপ ছিড়বেন না। গ্রামে ভালো খাবারের হোটেল না থাকায় আপনি খাবার নিয়ে যেতে পারেন। গ্রামের মানুষ বিরক্ত বা তাদের অসুবিধা হয় এমন কাজ করবেন না।

জেএমএস/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]