দেশি মাছ সংরক্ষণ করবেন যেভাবে

জাগো নিউজ ডেস্ক
জাগো নিউজ ডেস্ক জাগো নিউজ ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৩:৫৫ পিএম, ০৭ মার্চ ২০১৮

বর্তমানে দেশি মাছ সংরক্ষণ জরুরি হয়ে পড়েছে। আমাদের নদী-নালা, খাল-বিল, হাওর-সমুদ্রে প্রচুর পরিমাণ মাছ উৎপাদন হয়। তার মধ্যে শতকরা ৩০ ভাগ মাছ ক্রেতার হাতে পৌঁছানোর আগেই পচে নষ্ট হয়ে যায়। এ ক্ষতির পরিমাণ বছরে প্রায় ৬ হাজার কোটি টাকা। তাই মাছ যাতে নষ্ট না হয় সেক্ষেত্রে কিছু পদক্ষেপ নেওয়া যেতে পারে।

fish-in

মাছ সংরক্ষণের জন্য ব্যবহার করা যায় বরফ বাক্স। এতে পলিথিন দিয়ে আগাগোড়া মোড়া থাকে বলে বার বার পরিষ্কার করে একই ঝুড়ি ব্যবহারেও সমস্যা হয় না। ২৫-৩০ কেজি মাছ ধরে এমন একটি বাঁশের ঝুড়ির ভেতরের দিকটা হোগলা পাটি দিয়ে মুড়ে দিতে হবে। হোগলার ওপর দু’স্তর প্লাস্টিকের শিট দিয়ে সেলাই করে দিতে হবে। শিটের কিছু অংশ বাড়তি থাকবে। সেলাই করা প্লাস্টিকের শিটের ওপর আরেকটি পাতলা স্বচ্ছ পলিথিন শিট বিছিয়ে বরফ দেওয়া মাছ পরিবহন করতে হবে।

fish-in

প্রথমে পলিথিন শিটের ওপর প্রথম স্তরে বরফ রেখে মাছ সাজিয়ে দিতে হবে। এরপর ভাঁজে ভাঁজে বরফ ও মাছের স্তর সাজিয়ে উপরে জাম বরফ দিয়ে বাড়তি চট, হোগলা ও পলিথিন শিট একসঙ্গে মুড়ে ঝুড়ির উপরে বেঁধে নিতে হয়। ঝুড়ির মুখ সবসময় বেঁধে রেখে মাছ পরিবহন করতে হয়।

fish-in

এভাবে বরফ দেওয়া মাছ ২৪ ঘণ্টা গুণাগুণ ঠিক রেখে সংরক্ষণ করা যায়। ২৪ ঘণ্টা পরপর মাছের উপর সামান্য জাম বরফ দিয়ে প্রায় ৫-৬ দিন পর্যন্ত মাছ সংরক্ষণ করা যায়। হোগলাপাতা, ছেড়াজাল বা নাইলন কাপড় চমৎকার তাপ প্রতিরোধক হিসেবে কাজ করে। বরফ বাক্সটি মাঠ পর্যায়ের মৎস্যজীবী, মৎস্য ব্যবসায়ী, ক্ষুদ্র প্রক্রিয়াজাতকারী ও মৎস্য পরিবহনকারীরা ব্যবহার করে সুফল পাচ্ছেন।

এসইউ/জেআইএম

আপনার মতামত লিখুন :