‘ভাঙচুর’ করে ভূমিমন্ত্রীর ছেলে কারাগারে

প্রকাশিত: ০৮:৪২ পিএম, ১৯ মে ২০১৭
‘ভাঙচুর’ করে ভূমিমন্ত্রীর ছেলে কারাগারে

পাবনার ঈশ্বরদী উপজেলা থেকে গ্রেফতার ভূমিমন্ত্রী শামসুর রহমান শরিফের ছেলে ও উপজেলা যুবলীগের সভাপতি শিরহান শরিফ তমালসহ ১১ জনকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

শুক্রবার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে তাদের কারাগারে পাঠানো হয়।

এদিকে মন্ত্রীর ছেলেকে আটকের ঘটনায় ঈশ্বরদী শহরে পুলিশি টহল বাড়ানো হয়েছে। মন্ত্রী ও মেয়রের বাসভবনের সামনে বসানো হয়েছে অতিরিক্ত পুলিশি পাহারা।

ঈশ্বরদী থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুল হাই তালুকদার জানান, নিরাপত্তাজনিত কারণে মন্ত্রী ও পৌর মেয়রের বাসভবনের সামনে পুলিশ পাহারা রাখা হয়েছে।

এর আগে বৃহস্পতিবার দুপুরে ঈশ্বরদী শহরে দুটি বাড়ি ও তিনটি দোকান ভাঙচুরের ঘটনায় রাতে উপজেলা যুবলীগের সভাপতি শিরহান শরিফ তমালসহ ১১ জনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। একই সময় উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক রাজিব সরকারের বাড়িতে অভিযান চালিয়েও পুলিশ তাকে পায়নি।

গ্রেফতার অন্যরা হলেন- যুবলীগ কর্মী রূপক, জাহাঙ্গীর, জাফর ইকবাল, রনি, প্রিন্স ইসলাম, মাহবুব ইসলাম, সাবিরুল, মেহেদী হাসান, সামসুল ও মাসুম।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বৃহস্পতিবার সকালে পাবনায় আদালতে একটি মামলার হাজিরা দিতে গেলে উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক রাজিব সরকারের সমর্থক আরিফকে একই কাজে যাওয়া উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি যুবায়ের বিশ্বাসের কর্মীরা মারধর করে।

এই ঘটনায় রাজিব গ্রুপের কর্মীরা সংঘবদ্ধ হয়ে দুপুরে শহরের শহীদ আমিনপাড়ায় অবস্থিত যুবায়ের বিশ্বাসের বাড়িতে হামলা চালায়। এই হামলায় যুবায়েরের মা হাজিরা বেগম আহত হন।

এর কিছুক্ষণের মধ্যে শহরের প্রধান সড়কে পৌর আওয়ামী লীগ সভাপতি ও পৌর মেয়র আবুল কালাম আজাদ মিন্টুর ক্রয়কৃত জায়গায় অবস্থিত ফুড জংসন ও লক্ষ্মী মিষ্টান্ন ভাণ্ডারে হামলা চালিয়ে ভাঙচুর করা হয়।

এ সময় আওয়ামী লীগ নেতা আরিফ বিশ্বাসের পৌর সুপার মার্কেটে অবস্থিত দোকান ও কলেজ রোডে অবস্থিত তার বাড়িতেও হামলা চালানো হয়। হামলাকারীরা কয়েকটি মোটরসাইকেলে আসলেও এদের অনেকের মুখ রুমাল দিয়ে ঢাকা ছিল।

বাড়িতে হামলার ঘটনায় যুবায়ের বিশ্বাসের বাবা আতিয়ার রহমান বাদী হয়ে যুবলীগ সভাপতি তমাল শরিফসহ ৩২ জনের নাম উল্লেখসহ আরও ১০/১৫ জনকে আসামি করে থানায় মামলা করেন।

এ বিষয়ে উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক রাজিব সরকার বলেন, আমাদের কোনো কর্মী এ ধরনের হামলার সঙ্গে জড়িত নয়। আমাদের বিরুদ্ধে এটা একটা ষড়যন্ত্র।

অন্যদিকে ছাত্রলীগ সভাপতি যুবায়ের বিশ্বাস বলেন, যুবলীগের কথিত ওই কমিটি কেন্দ্র থেকে স্থগিত হয়ে আছে। রাজিব সরকার খুনের মামলার আসামি। তার লোকজনই আমার বাড়িতে হামলা করেছে।

আলাউদ্দিন আহমেদ/আরএআর/এমএস