পাঁচ ঘণ্টায় সড়কে ঝরল ১৩ প্রাণ

জাগো নিউজ ডেস্ক
জাগো নিউজ ডেস্ক ফরিদপুর
প্রকাশিত: ০১:৫৬ পিএম, ০৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

দেশের পাঁচ জেলায় সকাল থেকে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় মোট ১৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। বুধবার সকাল ৭টা থেকে বেলা ১২টা পর্যন্ত ৫ ঘণ্টার ব্যাবধানে এসব সড়ক দুর্ঘটনা ঘটে।

বুধবার সকাল পৌনে ৭টার দিকে ফরিদপুরের ভাঙ্গা উপজেলার চৌরাস্তার তমিজউদ্দিন মোড় নামক স্থানে বাসের ধাক্কায় ইঞ্জিনচালিত অটোরিকশার চালকসহ পাঁচ যাত্রী নিহত হন।

ভাঙ্গা থানার ওসি (তদন্ত) মিরাজ হোসেন জানান, ভাঙ্গা অাসার পথে ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের তমিজউদ্দিন মোড় নামক স্থানে ঢাকাগামী ইমাদ পরিবহনের সঙ্গে অটোরিকশাটির মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই চারজন নিহত হয়।

এদিকে সুনামগঞ্জে বাস ও প্রাইভেটকারের মুখোমুখি সংঘর্ষে পাঁচজন নিহত হয়েছেন। বুধবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার পাগলাবাজর এলাকায় এ দুর্ঘটনা হয়। নিহতরা সবাই প্রাইভেটকারের যাত্রী।

এছাড়া কক্সবাজার শহরের ৬নং মোড়ে হানিফ বাসের ধাক্কায় হাসিনা বেগম (৩৫) নামে এক নারীর মৃত্যু হয়েছে। বুধবার সকাল ৭টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ঘাতক হানিফ পরিবহনের বাসটি জব্দ করেছে পুলিশ।

জানা যায়, হাসিনা বেগম রাস্তা পারাপারের সময় হানিফ পরিবহনের একটি বাস তাকে ধাক্কা দেয়। এতে তিনি গুরুতর জখম হন। তাকে উদ্ধার করে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। নিহত হাসিনা বেগম পথশিশু অভির মা। তিনি ভিক্ষা করতেন।

সাতক্ষীরা-যশোর মহাসড়কের ছয়ঘরিয়া এলাকায় যাত্রীবাহী বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে গাছের সঙ্গে ধাক্কা লেগে একজন নিহত ও নারী-শিশুসহ কমপক্ষে ১৫ জন আহত হয়েছেন। বুধবার সকাল ১০টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত বাসযাত্রী হাজী আব্দুল মাজেদ (৫৫) সাতক্ষীরার সদরের কাথন্ডা গ্রামের ব্যবসায়ী।

অপরদিকে সিরাজগঞ্জ-নলকা আঞ্চলিক সড়কের শিয়ালকোলে বাসচাপায় শাকিল আহমেদ (৭) নামে এক স্কুল ছাত্র নিহত হয়েছেন। বুধবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে সদর উপজেলার শিয়ালকোল বাজারে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত শাকিল সদর উপজেলার শিয়ালকোলের শ্যামপুর গ্রামের রেজাউল করিমের ছেলে ও শ্যামপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রথম শ্রেণির ছাত্র।

সিরাজগঞ্জ সদর থানার ওসি হেলাল উদ্দিন জানান, সকালে শাকিল স্কুলে যাওয়ার জন্য রাস্তা পার হচ্ছিল। এ সময় সিরাজগঞ্জ থেকে শাহজাদপুরগামী একটি বাস তাকে চাপা দিলে ঘটনাস্থলেই সে মারা যায়।

এফএ/আরআইপি